ঢাকা ০৮:৫০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ




বাকেরগঞ্জে পুলিশ সদস্যের পরিবারের উপর হামলা ভাঙচুর: ধরাছোঁয়ার বাইরে হামলাকারীরা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:১৩:২০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ ডিসেম্বর ২০২৩ ১৩৫ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব সংবাদদাতা: বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলার দুধল ইউনিয়নের বন্দের হাট এলাকায় এক পুলিশ সদস্যের গ্রামের বসত বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুর চালিয়েছে একদল দুর্বৃত্তরা। হামলায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। বসত ঘরের টিন সহ মালামাল লুটপাটের প্রতিবাদ করায় এই হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ সূত্র জানা গেছে। এ ঘটনায় স্থানীয় বাকেরগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার। এই হামলার ঘটনার প্রায় এক মাস পেরিয়ে গেলেও ধরাছোঁয়ার বাইরে হামলাকারীরা।

সুত্র জানায়, ১৮ নভেম্বর ২০২৩ শনিবার দুপুর আনুমানিক ১২.০০ ঘটিকার সময়। বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ থানাধীন ০৪ নং দুধল ইউনিয়নের ০৫ নং ওয়ার্ডস্থ দুধল বাঁধের হাট এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

পুলিশ সদস্য মোঃ আবুল কালাম আজাদ (৫৬) বাদী হয়ে বাকেরগঞ্জ থানার অভিযোগ দায়ের করেন। হামলাকারীরা হলেন, একই এলাকার বাসিন্দা আঃ রশিদ হাওলাদার (৫৫), পিতাঃ মৃত বেল্লাত আলী হাওলাদার, মোঃ আল আমিন হাওলাদার (৪০), মোঃ রাব্বি হাওলাদার (২২), উভয় পিতাঃ আঃ রশিদ হাওলাদার, মোঃ আবুল হাওলাদার (৩৫), মোঃ বাবুল হাওলাদার (৩০), উভয় পিতাঃ মৃত ছোবাহান হাওলাদার, মোঃ আনোয়ার হোসেন (৪০), পিতাঃ অজ্ঞাত, মোঃ আবুল কালাম সিকদার (৬০), পিতাঃ কেরামত আলী সিকদার, সর্ব সাং- দুধল, ০৫ নং ওয়ার্ড, ০৪ নং দুধল ইউনিয়ন, থানাঃ বাকেরগঞ্জ, জেলাঃ বরিশালদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করিতেছি যে, বিবাদীরা আমাদের একই এলাকার লোক ও পাশাপাশি বাড়ীর বাসিন্দা। এক মাস পেরিয়ে গেলেও হামলাকারীরা ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকায় এলাকাবাসী হতাশ। একজন পুলিশ সদস্যের পরিবার যদি আইনি প্রতিকার না পায় তাহলে এসব হিংস্র সন্ত্রাসীদের নিকট থেকে এলাকাবাসী কিভাবে নিরাপদে থাকবে!

ভুক্তভোগী পরিবার অভিযোগে উল্লেখ করেন, আমাদের বসত ঘরের টিন সহ অন্যান্য মালামাল নিয়া যাওয়ার কারন জিজ্ঞাসা করিলে বিবাদীরা আমাদের উপর ক্ষিপ্ত হইয়া আমাকে মারধর করিবার জন্য উদ্যত হয়। আমাদের ডাকচিৎকার শুনিয়া উল্লেখিত সাক্ষীগন আগাইয়া আসিলে উল্লেখিত বিবাদীরা উল্লেখিত সাক্ষীদের এলোপাথাড়ী কিল, ঘুষি ও চর-থাপ্পর মারিয়া শরীরের বিভিন্নস্থানে নীলাফুলা ও বেদনাদায়ক জখম করে। উল্লেখিত সাক্ষিদের ডাকচিৎকার শুনিয়া স্থানীয় আশপাশের বহু লোকজন আগাইয়া আসিলে সকল বিবাদীরা আগত সাক্ষীদের মোকাবেলায় আমাকে পরবর্তীতে সুযোগমতো পাইলে আমাকে সহ সাক্ষীদের হাত-পা ভাঙ্গিয়া দিবে, খুন করিয়া গুম করিয়া দিবে বলিয়া বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদান করে। এই হামলাও হুমকির ঘটনায় পুলিশ সদস্যের পুরো পরিবার ভীতসন্ত্রস্ত বলে সংবাদমাধ্যমকে জানান ভুক্তভোগীরা।

Loading

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




বাকেরগঞ্জে পুলিশ সদস্যের পরিবারের উপর হামলা ভাঙচুর: ধরাছোঁয়ার বাইরে হামলাকারীরা

আপডেট সময় : ১০:১৩:২০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ ডিসেম্বর ২০২৩

নিজস্ব সংবাদদাতা: বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলার দুধল ইউনিয়নের বন্দের হাট এলাকায় এক পুলিশ সদস্যের গ্রামের বসত বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুর চালিয়েছে একদল দুর্বৃত্তরা। হামলায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। বসত ঘরের টিন সহ মালামাল লুটপাটের প্রতিবাদ করায় এই হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ সূত্র জানা গেছে। এ ঘটনায় স্থানীয় বাকেরগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার। এই হামলার ঘটনার প্রায় এক মাস পেরিয়ে গেলেও ধরাছোঁয়ার বাইরে হামলাকারীরা।

সুত্র জানায়, ১৮ নভেম্বর ২০২৩ শনিবার দুপুর আনুমানিক ১২.০০ ঘটিকার সময়। বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ থানাধীন ০৪ নং দুধল ইউনিয়নের ০৫ নং ওয়ার্ডস্থ দুধল বাঁধের হাট এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

পুলিশ সদস্য মোঃ আবুল কালাম আজাদ (৫৬) বাদী হয়ে বাকেরগঞ্জ থানার অভিযোগ দায়ের করেন। হামলাকারীরা হলেন, একই এলাকার বাসিন্দা আঃ রশিদ হাওলাদার (৫৫), পিতাঃ মৃত বেল্লাত আলী হাওলাদার, মোঃ আল আমিন হাওলাদার (৪০), মোঃ রাব্বি হাওলাদার (২২), উভয় পিতাঃ আঃ রশিদ হাওলাদার, মোঃ আবুল হাওলাদার (৩৫), মোঃ বাবুল হাওলাদার (৩০), উভয় পিতাঃ মৃত ছোবাহান হাওলাদার, মোঃ আনোয়ার হোসেন (৪০), পিতাঃ অজ্ঞাত, মোঃ আবুল কালাম সিকদার (৬০), পিতাঃ কেরামত আলী সিকদার, সর্ব সাং- দুধল, ০৫ নং ওয়ার্ড, ০৪ নং দুধল ইউনিয়ন, থানাঃ বাকেরগঞ্জ, জেলাঃ বরিশালদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করিতেছি যে, বিবাদীরা আমাদের একই এলাকার লোক ও পাশাপাশি বাড়ীর বাসিন্দা। এক মাস পেরিয়ে গেলেও হামলাকারীরা ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকায় এলাকাবাসী হতাশ। একজন পুলিশ সদস্যের পরিবার যদি আইনি প্রতিকার না পায় তাহলে এসব হিংস্র সন্ত্রাসীদের নিকট থেকে এলাকাবাসী কিভাবে নিরাপদে থাকবে!

ভুক্তভোগী পরিবার অভিযোগে উল্লেখ করেন, আমাদের বসত ঘরের টিন সহ অন্যান্য মালামাল নিয়া যাওয়ার কারন জিজ্ঞাসা করিলে বিবাদীরা আমাদের উপর ক্ষিপ্ত হইয়া আমাকে মারধর করিবার জন্য উদ্যত হয়। আমাদের ডাকচিৎকার শুনিয়া উল্লেখিত সাক্ষীগন আগাইয়া আসিলে উল্লেখিত বিবাদীরা উল্লেখিত সাক্ষীদের এলোপাথাড়ী কিল, ঘুষি ও চর-থাপ্পর মারিয়া শরীরের বিভিন্নস্থানে নীলাফুলা ও বেদনাদায়ক জখম করে। উল্লেখিত সাক্ষিদের ডাকচিৎকার শুনিয়া স্থানীয় আশপাশের বহু লোকজন আগাইয়া আসিলে সকল বিবাদীরা আগত সাক্ষীদের মোকাবেলায় আমাকে পরবর্তীতে সুযোগমতো পাইলে আমাকে সহ সাক্ষীদের হাত-পা ভাঙ্গিয়া দিবে, খুন করিয়া গুম করিয়া দিবে বলিয়া বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদান করে। এই হামলাও হুমকির ঘটনায় পুলিশ সদস্যের পুরো পরিবার ভীতসন্ত্রস্ত বলে সংবাদমাধ্যমকে জানান ভুক্তভোগীরা।

Loading