ঢাকা ০৭:০৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ




অন্যায় প্রস্তাব না মানায় জবি অধ্যাপককে প্রকাশ্যে হুমকি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:৪২:০৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ অগাস্ট ২০২৩ ৪৭৪ বার পড়া হয়েছে

অন্যায় প্রস্তাব না মানায় জবি অধ্যাপককে প্রকাশ্যে হুমকি

জবি প্রতিনিধি:

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ডিবেটিং সোসাইটির নির্বাচনের জন্য পছন্দ অনুযায়ী ভোটার তালিকা না পাঠানোয় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারপার্সন অধ্যাপক ড. শাহ নিসতার জাহান কবিরকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল সোমবার বিকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বাস ছেড়ে যাওয়ার পূর্ব মুহুর্তে এই ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত সাইদুল ইসলাম সাঈদ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের সাবেক শিক্ষার্থী এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ডিবেটিং সোসাইটির সভাপতি।

জানা যায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ডিবেটিং সোসাইটির নির্বাচন উপলক্ষে প্রতিটি বিভাগ ও ইনস্টিটিউট থেকে (বিতার্কিক) দুইজন ভোটারের তালিকা চাওয়া হয়। গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারপার্সন অধ্যাপক ড. শাহ মো. নিসতার জাহান কবিরের কাছে ডিবেটিং সোসাইটির সভাপতি তার পছন্দক্রম অনুযায়ী দুইজন ভোটারের তালিকা পাঠাতে বলেন। তবে অধ্যাপক শাহ নিসতার জাহান কবির সেই কথা নাকচ করে দিয়ে যোগ্যতার ভিত্তিতে দুইজনের নাম প্রেরণ করেন।

এরই রেষ ধরে সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বাস ছাড়ার পূর্বমুহূর্তে নিসতার জাহান কবিরকে দেখে তার সাথে তর্কে লিপ্ত হন সাঈদ। এক পর্যায়ে আপনি আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে কথা বলেন আমার কাছে প্রমাণ আছে, আপনাকে আমি দেখে দিব বলে হুমকি দেন ডিবেটিং সোসাইটির সভাপতি। এসময় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ইব্রাহীম বিন হারুন পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করলে তাকেও আপমানিত করেন সাইদুল ইসলাম সাঈদ।

এ বিষয়ে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারপার্সন অধ্যাপক ড. শাহ মো. নিসতার জাহান কবির বলেন, বিষয়টি নিয়ে আমি খুব বিরক্ত। বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষার্থী হয়ে সে কেন এই আচরণ করবে?

একই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ইব্রাহীম বিন হারুন বলেন, আমি তাকে (সাঈদকে) বললাম যে আপনি এভাবে কথা বলতে পারেন না। তাতে সে বললো আমার গায়ে লাগে কেন? আমি বললাম,আমার সিনিয়র স্যারের সাথে এভাবে কথা বললে আমার গায়ে লাগবেই। আপনার যদি তার সাথে ব্যক্তিগত কথা থাকলে আপনি স্যারকে পার্সোনালি বলেন। জুনিয়র শিক্ষকদের সামনে আপনি স্যারের সাথে এভাবে কথা বলতে পারেন না।

তবে জানতে চাওয়া হলে জবি ডিবেটিং সোসাইটির সভাপতি সাইদুল ইসলাম সাঈদ এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি বলে ফোন কেটে দেন।

জবি ডিবেটিং সোসাইটির মডারেটর সহকারী অধ্যাপক মেফ্তাহুল হাসান বলেন, বিষয়টি শাহ নিসতার জাহান কবির স্যারের কাছ থেকে মৌখিকভাবে শুনেছি।স্যার অভিযোগ দিবেন বলেছেন।লিখিত অভিযোগ পেলে এ বিষয়ে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল বলেন,একজন অধ্যাপককে এভাবে হুমকির ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত। অভিযোগ পেলে এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




অন্যায় প্রস্তাব না মানায় জবি অধ্যাপককে প্রকাশ্যে হুমকি

আপডেট সময় : ০৬:৪২:০৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ অগাস্ট ২০২৩

অন্যায় প্রস্তাব না মানায় জবি অধ্যাপককে প্রকাশ্যে হুমকি

জবি প্রতিনিধি:

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ডিবেটিং সোসাইটির নির্বাচনের জন্য পছন্দ অনুযায়ী ভোটার তালিকা না পাঠানোয় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারপার্সন অধ্যাপক ড. শাহ নিসতার জাহান কবিরকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল সোমবার বিকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বাস ছেড়ে যাওয়ার পূর্ব মুহুর্তে এই ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত সাইদুল ইসলাম সাঈদ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের সাবেক শিক্ষার্থী এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ডিবেটিং সোসাইটির সভাপতি।

জানা যায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ডিবেটিং সোসাইটির নির্বাচন উপলক্ষে প্রতিটি বিভাগ ও ইনস্টিটিউট থেকে (বিতার্কিক) দুইজন ভোটারের তালিকা চাওয়া হয়। গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারপার্সন অধ্যাপক ড. শাহ মো. নিসতার জাহান কবিরের কাছে ডিবেটিং সোসাইটির সভাপতি তার পছন্দক্রম অনুযায়ী দুইজন ভোটারের তালিকা পাঠাতে বলেন। তবে অধ্যাপক শাহ নিসতার জাহান কবির সেই কথা নাকচ করে দিয়ে যোগ্যতার ভিত্তিতে দুইজনের নাম প্রেরণ করেন।

এরই রেষ ধরে সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বাস ছাড়ার পূর্বমুহূর্তে নিসতার জাহান কবিরকে দেখে তার সাথে তর্কে লিপ্ত হন সাঈদ। এক পর্যায়ে আপনি আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে কথা বলেন আমার কাছে প্রমাণ আছে, আপনাকে আমি দেখে দিব বলে হুমকি দেন ডিবেটিং সোসাইটির সভাপতি। এসময় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ইব্রাহীম বিন হারুন পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করলে তাকেও আপমানিত করেন সাইদুল ইসলাম সাঈদ।

এ বিষয়ে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারপার্সন অধ্যাপক ড. শাহ মো. নিসতার জাহান কবির বলেন, বিষয়টি নিয়ে আমি খুব বিরক্ত। বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষার্থী হয়ে সে কেন এই আচরণ করবে?

একই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ইব্রাহীম বিন হারুন বলেন, আমি তাকে (সাঈদকে) বললাম যে আপনি এভাবে কথা বলতে পারেন না। তাতে সে বললো আমার গায়ে লাগে কেন? আমি বললাম,আমার সিনিয়র স্যারের সাথে এভাবে কথা বললে আমার গায়ে লাগবেই। আপনার যদি তার সাথে ব্যক্তিগত কথা থাকলে আপনি স্যারকে পার্সোনালি বলেন। জুনিয়র শিক্ষকদের সামনে আপনি স্যারের সাথে এভাবে কথা বলতে পারেন না।

তবে জানতে চাওয়া হলে জবি ডিবেটিং সোসাইটির সভাপতি সাইদুল ইসলাম সাঈদ এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি বলে ফোন কেটে দেন।

জবি ডিবেটিং সোসাইটির মডারেটর সহকারী অধ্যাপক মেফ্তাহুল হাসান বলেন, বিষয়টি শাহ নিসতার জাহান কবির স্যারের কাছ থেকে মৌখিকভাবে শুনেছি।স্যার অভিযোগ দিবেন বলেছেন।লিখিত অভিযোগ পেলে এ বিষয়ে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল বলেন,একজন অধ্যাপককে এভাবে হুমকির ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত। অভিযোগ পেলে এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করব।