ঢাকা ০৭:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ




ইউসেপের বিশ্ব যুব দক্ষতা দিবসের অনুষ্ঠানে এমইউ ভিসি প্রফেসর ড. মোহাম্মদ জহিরুল হক

মানবসম্পদের অপচয় রোধ না করলে উন্নয়নের গতি থেমে যাবে: এমইউ ভিসি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:৩৯:৪৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুলাই ২০২৩ ১৩১ বার পড়া হয়েছে

মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ জহিরুল হক বলেছেন, বাংলাদেশের অদম্য উন্নয়নের পেছনে অন্যতম উপাদান হচ্ছে মানব সম্পদ তথা অনুকূল জনমিতিক সুবিধা। প্রতিবছর দেশের প্রায় ২২ লাখ কর্মক্ষম জনগোষ্ঠী শ্রমবাজারে যুক্ত হচ্ছে। যা চলবে ২০৩৩ সাল পর্যন্ত। আমরা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের শ্রমবাজারে প্রবেশ করছি। গত জুন মাসে দেশে রেমিট্যান্স এসেছিল ২১৯ কোটি ৯০ লাখ ডলার। এ মাসে গড়ে প্রতিদিন ৭২২ কোটি টাকা রেমিট্যান্স আসছে। এই রেমিট্যান্সই আমাদের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভকে ধরে রাখছে। মধ্যপ্রাচ্যসহ পাশ্চাত্যদেশসমূহে অদক্ষ ও অপেক্ষাকৃত কম দক্ষতা নিয়ে আমাদের তরুণ ও যুবকরা যাচ্ছে। তাদের ভাষাজ্ঞানও পর্যাপ্ত নয়। আন্তর্জাতিকমানের দক্ষতা ও ভাষাজ্ঞান অর্জন করে বিদেশ গেলে তারা নিজেদের ভাগ্যান্নোয়নের পাশাপাশি দেশের উন্নয়নে আরো ব্যাপক ভূমিকা রাখতে পারতেন। আজ ১৬ জুলাই রোববার দুপুর সাড়ে ১১ টায় সিলেটের বটেশ্বরস্ত ইউসেপ হাফিজ মজুমদার টিভিইটি ইন্সটিটিউটের কনফারেন্স হলে বিশ্ব যুব দক্ষতা দিবস ২০২৩ উপলক্ষ্যে ইউসেপ বাংলাদেশ আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপর্যুক্ত কথা বলেন।

ইউসেপ সিলেট অঞ্চলের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ কাইয়ূম মোল্লার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জালালাবাদ গ্যাসের প্লান্ট ম্যানেজার প্রকৌশলী মাসুদ রানা, সিলকো ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেডের প্লান্ট ম্যানেজার মোঃ তানভীর আলম, খাদিম সিরামিক্স এর সহকারি ব্যবস্থাপক মোঃ সাদিকুল আলম।

ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ জহিরুল হক আরো বলেন, দেশের উন্নয়নের স্বার্থেই সনদসর্বস্ব শিক্ষাব্যবস্থার পরিবর্তন করতে হবে। যুবসমাজকে নির্দিষ্ট বিষয়ে দক্ষ করে না তুলতে পারলে আমরা অনুকূল জনমিতিক সুবিধার সুফল পাবো না। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির অগ্রগতিকে বিবেচনায় রেখে দক্ষতার মান উন্নয়ন ও যুগোপযোগীকরণ করতে হবে। জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে এ নিয়ে আরও কার্যকর ভূমিকা রাখতে হবে। দেশের মানবসম্পদের অপচয় রোধ না করলে উন্নয়নের গতি থেমে যাবে। প্রধান অতিথি ইউসেপের বিভিন্ন ক্লাস ও ওয়ার্কশপ ঘুরে দেখেন এবং প্রশিক্ষক ও প্রশিক্ষণার্থীদের সাথে কথা বলেন।

উল্লেখ্য, গত ১৫ জুলাই ছিল বিশ্ব যুব দক্ষতা দিবস। জাতিসংঘ ঘোষিত এ দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য হলো ‘পরিবর্তনশীল আগামীর জন্য দক্ষতা’। ইউসেপ দেশের ৭টি বিভাগের ১২টি জেলায় যুব সমাজের দক্ষতা উন্নয়নে কাজ করছে। সিলেটের সুবিধাবঞ্চিত শিশু ও তরুণদের ৯ টি ট্রেড কোর্সে প্রশিক্ষন দিচ্ছে তারা। ইউসেপ থেকে দক্ষ হয়ে এলাকার তরুন-তরুনীরা দেশ-বিদেশে সম্মানজনক পেশায় নিয়োজিত থেকে নিজেদের ভাগ্যান্নোয়ন করেছেন। তারা দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




ইউসেপের বিশ্ব যুব দক্ষতা দিবসের অনুষ্ঠানে এমইউ ভিসি প্রফেসর ড. মোহাম্মদ জহিরুল হক

মানবসম্পদের অপচয় রোধ না করলে উন্নয়নের গতি থেমে যাবে: এমইউ ভিসি

আপডেট সময় : ০১:৩৯:৪৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুলাই ২০২৩

মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ জহিরুল হক বলেছেন, বাংলাদেশের অদম্য উন্নয়নের পেছনে অন্যতম উপাদান হচ্ছে মানব সম্পদ তথা অনুকূল জনমিতিক সুবিধা। প্রতিবছর দেশের প্রায় ২২ লাখ কর্মক্ষম জনগোষ্ঠী শ্রমবাজারে যুক্ত হচ্ছে। যা চলবে ২০৩৩ সাল পর্যন্ত। আমরা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের শ্রমবাজারে প্রবেশ করছি। গত জুন মাসে দেশে রেমিট্যান্স এসেছিল ২১৯ কোটি ৯০ লাখ ডলার। এ মাসে গড়ে প্রতিদিন ৭২২ কোটি টাকা রেমিট্যান্স আসছে। এই রেমিট্যান্সই আমাদের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভকে ধরে রাখছে। মধ্যপ্রাচ্যসহ পাশ্চাত্যদেশসমূহে অদক্ষ ও অপেক্ষাকৃত কম দক্ষতা নিয়ে আমাদের তরুণ ও যুবকরা যাচ্ছে। তাদের ভাষাজ্ঞানও পর্যাপ্ত নয়। আন্তর্জাতিকমানের দক্ষতা ও ভাষাজ্ঞান অর্জন করে বিদেশ গেলে তারা নিজেদের ভাগ্যান্নোয়নের পাশাপাশি দেশের উন্নয়নে আরো ব্যাপক ভূমিকা রাখতে পারতেন। আজ ১৬ জুলাই রোববার দুপুর সাড়ে ১১ টায় সিলেটের বটেশ্বরস্ত ইউসেপ হাফিজ মজুমদার টিভিইটি ইন্সটিটিউটের কনফারেন্স হলে বিশ্ব যুব দক্ষতা দিবস ২০২৩ উপলক্ষ্যে ইউসেপ বাংলাদেশ আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপর্যুক্ত কথা বলেন।

ইউসেপ সিলেট অঞ্চলের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ কাইয়ূম মোল্লার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জালালাবাদ গ্যাসের প্লান্ট ম্যানেজার প্রকৌশলী মাসুদ রানা, সিলকো ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেডের প্লান্ট ম্যানেজার মোঃ তানভীর আলম, খাদিম সিরামিক্স এর সহকারি ব্যবস্থাপক মোঃ সাদিকুল আলম।

ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ জহিরুল হক আরো বলেন, দেশের উন্নয়নের স্বার্থেই সনদসর্বস্ব শিক্ষাব্যবস্থার পরিবর্তন করতে হবে। যুবসমাজকে নির্দিষ্ট বিষয়ে দক্ষ করে না তুলতে পারলে আমরা অনুকূল জনমিতিক সুবিধার সুফল পাবো না। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির অগ্রগতিকে বিবেচনায় রেখে দক্ষতার মান উন্নয়ন ও যুগোপযোগীকরণ করতে হবে। জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে এ নিয়ে আরও কার্যকর ভূমিকা রাখতে হবে। দেশের মানবসম্পদের অপচয় রোধ না করলে উন্নয়নের গতি থেমে যাবে। প্রধান অতিথি ইউসেপের বিভিন্ন ক্লাস ও ওয়ার্কশপ ঘুরে দেখেন এবং প্রশিক্ষক ও প্রশিক্ষণার্থীদের সাথে কথা বলেন।

উল্লেখ্য, গত ১৫ জুলাই ছিল বিশ্ব যুব দক্ষতা দিবস। জাতিসংঘ ঘোষিত এ দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য হলো ‘পরিবর্তনশীল আগামীর জন্য দক্ষতা’। ইউসেপ দেশের ৭টি বিভাগের ১২টি জেলায় যুব সমাজের দক্ষতা উন্নয়নে কাজ করছে। সিলেটের সুবিধাবঞ্চিত শিশু ও তরুণদের ৯ টি ট্রেড কোর্সে প্রশিক্ষন দিচ্ছে তারা। ইউসেপ থেকে দক্ষ হয়ে এলাকার তরুন-তরুনীরা দেশ-বিদেশে সম্মানজনক পেশায় নিয়োজিত থেকে নিজেদের ভাগ্যান্নোয়ন করেছেন। তারা দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখছে।