ঢাকা ০৯:২১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ




এমপিওভুক্তির দাবিতে আমরণ অনশনে সিদ্ধান্ত শিক্ষকদের

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:৪০:১২ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ মার্চ ২০১৯ ১৬ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক; এমপিওভুক্তির দাবিতে আমরণ অনশন পালনের সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছেন রাজপথে অবস্থানকারী শিক্ষক-কর্মচারীরা।সোমবার থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বসে তাদের আমরণ অনশন পালিত হবে বলে জানিয়েছেন নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার।

কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ডলার বলেন, সমাজে মানবেতর জীবন-যাপন করার চাইতে আন্দোলন করে মৃত্যুবরণ করাই শ্রেয়। সারা দেশের ৫ হাজার ২৪২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে প্রায় ১৫ হাজার শিক্ষক কর্মচারী ঢাকায় এসেছেন। সকলে ন্যায্য দাবি আদায়ে গত পাঁচ দিন ধরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে রাজপথে বসে আন্দোলন করে যাচ্ছেন।

সভাপতি বলেন, নন-এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা দীর্ঘ ১৫ থেকে ২০ বছর বিনাবেতনে চাকরি করছেন। প্রায় সকলেই অর্থকষ্টে মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। সকলেই বাধ্য হয়ে এ আন্দোলনে যোগ দিয়েছেন। অনেকের কাছে খাওয়ার অর্থটুকুও নেই। তারা শুধু ভাত কিনে পানি দিয়ে ক্ষুধা মিটাচ্ছেন। রাজপথে রাত কাটিয়ে দিচ্ছেন। তাদের মধ্যে অনেক নারী শিক্ষকও রয়েছেন।

এ কারণে জীবন-মরণ আন্দোলনের দিকে যেতে বাধ্য হচ্ছেন উল্লেখ করে সংগঠনের সভাপতি বলেন, গত পাঁচ দিন ধরে আন্দোলন করার পরও আমাদের দাবি বাস্তবায়ন না হওয়ায় আগামীকাল (সোমবার) থেকে আমরা আমরণ অনশন পালন করার সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছি। শুধু তাই নয়, আমরণ অনশন পালনে কেউ অসুস্থ হয়ে গেলেও স্যালাইন বা ডাক্তারি চিকিৎসাও না নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। আজ দুপুর ২ টায় কেন্দ্রীয় কমিটি বৈঠক করে এমন কঠিন আন্দোলনের সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

আন্দোলনকারী শিক্ষক নেতারা জানান, নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান একযোগে এমপিও’র দাবিতে নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের উদ্যোগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাতের জন্য কদম ফোয়ারা থেকে প্রেস ক্লাবের গেট পর্যন্ত রোদ, ধুলোবালি, মশার কামড় উপেক্ষা করে খোলা আকাশের নিচে ৩০তম বার দিবারাত্রি অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন। সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে শিক্ষক-কর্মচারী এই কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করছেন।

তাদের এই টানা অবস্থানে ৫ম দিনে ১৫ জন শিক্ষক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। আন্দোলনের ২য় দিনে বরগুনা জেলার তালতলি উপজেলার শিক্ষক শৈলেন চন্দ্র মজুমদার (৫০) স্ট্রোক করে জাতীয় হৃদরোগ হাসপাতালে সিসিইউতে চিকিৎসাধীন আছেন।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাত না পেয়ে জাতীয় প্রেস ক্লাসের সামনে বসে ৫ম দিনেরমত অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা। দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আগত এসব শিক্ষক-কর্মচারীরা প্রেস ক্লাবের সামনের মূল সড়কের উপর বসে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন। রাজপথের ধুলো-ময়লায় খোলা আকাশের নিচে শিক্ষক-কর্মচারীদের সঙ্গে বেশ কয়েকজন দুগ্ধজাত শিশুরও উপস্থিত লক্ষ্য করা গেছে। যদিও শিশুদের এ আন্দোলনের প্রয়োজনীয়তা জানা নেই, তবুও অভিভাবকরা বাধ্য হয়েই এসব শিশুদের নিয়ে উপস্থিত হয়েছেন বলে জানান।

প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাস বাস্তবায়ন করতে হবে, এমপিভুক্তি না হলে ঘরে ফিরে যাব না, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশে শিক্ষক কেন রাস্তায় এমন নানা স্লোগান লেখা হাতে প্ল্যাকার্ড ও মাথায় ফিতা বেঁধে মাইকে দেয়া স্লোগানের তালে তালে রাস্তার উপর বসে এমপিভুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ করে চলছেন আন্দোলনকারীরা।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




এমপিওভুক্তির দাবিতে আমরণ অনশনে সিদ্ধান্ত শিক্ষকদের

আপডেট সময় : ০১:৪০:১২ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ মার্চ ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক; এমপিওভুক্তির দাবিতে আমরণ অনশন পালনের সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছেন রাজপথে অবস্থানকারী শিক্ষক-কর্মচারীরা।সোমবার থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বসে তাদের আমরণ অনশন পালিত হবে বলে জানিয়েছেন নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার।

কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ডলার বলেন, সমাজে মানবেতর জীবন-যাপন করার চাইতে আন্দোলন করে মৃত্যুবরণ করাই শ্রেয়। সারা দেশের ৫ হাজার ২৪২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে প্রায় ১৫ হাজার শিক্ষক কর্মচারী ঢাকায় এসেছেন। সকলে ন্যায্য দাবি আদায়ে গত পাঁচ দিন ধরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে রাজপথে বসে আন্দোলন করে যাচ্ছেন।

সভাপতি বলেন, নন-এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা দীর্ঘ ১৫ থেকে ২০ বছর বিনাবেতনে চাকরি করছেন। প্রায় সকলেই অর্থকষ্টে মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। সকলেই বাধ্য হয়ে এ আন্দোলনে যোগ দিয়েছেন। অনেকের কাছে খাওয়ার অর্থটুকুও নেই। তারা শুধু ভাত কিনে পানি দিয়ে ক্ষুধা মিটাচ্ছেন। রাজপথে রাত কাটিয়ে দিচ্ছেন। তাদের মধ্যে অনেক নারী শিক্ষকও রয়েছেন।

এ কারণে জীবন-মরণ আন্দোলনের দিকে যেতে বাধ্য হচ্ছেন উল্লেখ করে সংগঠনের সভাপতি বলেন, গত পাঁচ দিন ধরে আন্দোলন করার পরও আমাদের দাবি বাস্তবায়ন না হওয়ায় আগামীকাল (সোমবার) থেকে আমরা আমরণ অনশন পালন করার সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছি। শুধু তাই নয়, আমরণ অনশন পালনে কেউ অসুস্থ হয়ে গেলেও স্যালাইন বা ডাক্তারি চিকিৎসাও না নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। আজ দুপুর ২ টায় কেন্দ্রীয় কমিটি বৈঠক করে এমন কঠিন আন্দোলনের সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

আন্দোলনকারী শিক্ষক নেতারা জানান, নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান একযোগে এমপিও’র দাবিতে নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের উদ্যোগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাতের জন্য কদম ফোয়ারা থেকে প্রেস ক্লাবের গেট পর্যন্ত রোদ, ধুলোবালি, মশার কামড় উপেক্ষা করে খোলা আকাশের নিচে ৩০তম বার দিবারাত্রি অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন। সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে শিক্ষক-কর্মচারী এই কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করছেন।

তাদের এই টানা অবস্থানে ৫ম দিনে ১৫ জন শিক্ষক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। আন্দোলনের ২য় দিনে বরগুনা জেলার তালতলি উপজেলার শিক্ষক শৈলেন চন্দ্র মজুমদার (৫০) স্ট্রোক করে জাতীয় হৃদরোগ হাসপাতালে সিসিইউতে চিকিৎসাধীন আছেন।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাত না পেয়ে জাতীয় প্রেস ক্লাসের সামনে বসে ৫ম দিনেরমত অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা। দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আগত এসব শিক্ষক-কর্মচারীরা প্রেস ক্লাবের সামনের মূল সড়কের উপর বসে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন। রাজপথের ধুলো-ময়লায় খোলা আকাশের নিচে শিক্ষক-কর্মচারীদের সঙ্গে বেশ কয়েকজন দুগ্ধজাত শিশুরও উপস্থিত লক্ষ্য করা গেছে। যদিও শিশুদের এ আন্দোলনের প্রয়োজনীয়তা জানা নেই, তবুও অভিভাবকরা বাধ্য হয়েই এসব শিশুদের নিয়ে উপস্থিত হয়েছেন বলে জানান।

প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাস বাস্তবায়ন করতে হবে, এমপিভুক্তি না হলে ঘরে ফিরে যাব না, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশে শিক্ষক কেন রাস্তায় এমন নানা স্লোগান লেখা হাতে প্ল্যাকার্ড ও মাথায় ফিতা বেঁধে মাইকে দেয়া স্লোগানের তালে তালে রাস্তার উপর বসে এমপিভুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ করে চলছেন আন্দোলনকারীরা।