ঢাকা ১২:৩৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo বৈষম্যমূলক প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহার দাবিতে কর্মবিরতির ডাক দিয়েছে শাবি শিক্ষক সমিতি Logo কুলাউড়া স্টুডেন্টস এসোসিয়েশনের কর্মশালা ও অরিয়েন্টেশন সম্পন্ন Logo এমপি আনার খুন: রহস্যময় রূপে শীর্ষ দুই ব্যবসায়ী Logo রূপালী ব্যাংকের ডিজিএম কর্তৃক সহকর্মী নারীকে যৌন হয়রানি: ধামাচাপা দিতে মরিয়া তদন্ত কমিটি Logo প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা হাতিয়ে বহাল তবিয়তে মাদারীপুরের দুই সহকারী সমাজসেবা অফিসারl Logo যমুনা লাইফের গ্রাহক প্রতারণায় ‘জড়িতরা’ কে কোথায় Logo ঢাকাস্থ ভোলা সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আহসান কামরুল, সম্পাদক জিয়াউর রহমান Logo টাটা মটরস বাংলাদেশে উদ্বোধন করলো টাটা যোদ্ধা Logo আশা শিক্ষা কর্মসূচী কর্তৃক অভিভাবক মতবিনিময় সভা Logo গণপূর্ত প্রধান প্রকৌশলীর গাড়ি চাপায় পিষ্ট সহকারী প্রকৌশলী -উত্তাল গণপূর্ত




কুবিতে বাংলা নববর্ষ ১৪৩০ উদযাপিত

আবু সাঈদ, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়
  • আপডেট সময় : ০৩:০৪:৫১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৩ ১২৬ বার পড়া হয়েছে

বাংলার চিরায়ত উৎসব চৈত্র সংক্রান্তি ছিল গতকাল (বৃহস্পতিবার), সেই সঙ্গে বাংলা ১৪২৯ সনের শেষ দিন। সকালের আলো ফুটার সাথে সাথে সারা দেশজুড়ে নানা আয়োজনে বাংলা নতুন বর্ষ ১৪৩০-কে বরণ করে নেয় বাঙালি জাতি। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ও (কুবি) এর ব্যতিক্রম নয়। তবে পবিত্র মাহে রমজানের কারণে অন্যান্য বছরের তুলানায় এবারের আয়োজন ছিল স্বল্প পরিসরে।

শুক্রবার (১৪ এপ্রিল) সকাল সাড়ে দশটায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার মঙ্গল শোভাযাত্রার মাধ্যমে দিনটিকে বরণ করে নেয়। শোভাযাত্রাটি প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে এসে আবার প্রশাসনিক ভবনের সামনে শেষ হয়।

শোভাযাত্রা শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের অফিসে বাঙালির সংস্কৃতি ও দেশপ্রেমের সাথে মিশে থাকা বিভিন্ন গান, কবিতা গেয়ে নববর্ষের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন সকলে।

নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এফ এম আবদুল মঈন বলেন, ‘পহেলা বৈশাখ বাঙালির জাতীয় জীবনে একটি উৎসব মুখর দিন। দিনটি বাঙালি জাতির সংস্কৃতির সাথে মিশে আছে। প্রতি বছরই আমরা দিনটি পালন করে থাকি, তবে এবছর রমজানের কারণে দিনটিকে স্বল্প পরিসরে উদযাপন করা হয়েছে। আমরা দিনটি উপলক্ষে ছাত্র শিক্ষক মিলে একটা শুভেচ্ছা বিনিময় করেছি, শুভেচ্ছা বিনিময়ে বাঙালি সংস্কৃতি ও দেশপ্রেম সম্পৃক্ত বিভিন্ন গান কবিতা পরিবেশন করা হয়েছে। আমি মনে করি কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় দিনটি যথাযথ মর্যাদার সাথে পালন করেছে।’

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. হুমায়ূন কবির সকলকে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, ‘আমাদের বাঙালি জাতির অস্তিত্বের যে জায়গাটা সেটা হচ্ছে বাঙালির সংস্কৃতি। ধর্মীয় পরিচয়ে আমরা অনেকে অনেক ধর্মে বিশ্বাসী হলেও বাঙালি সংস্কৃতির সাথে এই ধর্মের কোনো বিরোধ নাই। ধর্ম এবং সংস্কৃতি এটা সব সময় পাশাপাশি থেকেছে। যারা আজকে ধর্মের নামে বিভিন্ন সমালোচনা করে আমাদের অস্তিত্বে আঘাত করতে চায় সে দিকে আমাদের সচেতন থাকতে হবে। আমরা যে বাঙালি এটাই হচ্ছে আমাদের বড় পরিচয় এবং আমরা এই বাঙালি সংস্কৃতি নিয়ে বিশ্ব দরবারে আরোও অনেক দূর এগিয়ে যাবো।’

বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে পহেলা বৈশাখ উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ শামসুজ্জামান মিলকী বলেন, ‘ বর্তমানে বিশব্বিদ্যালয় বন্ধ আবার রমজান তার কারণে এবার আমরা স্বল্প পরিসরে আয়োজনের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছিলাম এবং সেই মোতাবেক বৈশাখী শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে। যারা উপস্থিত ছিলেন তাদের পরস্পরের মধ্যে শুভেচ্ছা বিনিময়ের প্রসঙ্গ আমরা দেখেছিলাম এবং এর পরবর্তীতে স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে সাংস্কৃতিক পরিবেশনা হয়েছে। এসব কিছু সম্ভব হয়েছে সকলের পারস্পরিকতা, সৌহার্দ্য এবং ভাতৃত্বপূর্ণ যে পরিবেশ সেটির জন্য। আর পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে রেইনবো পেইন্টের সহযোগিতা এবং বৃত্ত কুবির ব্যবস্থাপনায় ক্যাম্পাসে আলপনা করা হয়েছে।’

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন ছাত্র পরামর্শক ও নির্দেশনা দপ্তরের পরিচালক ড. মুহাম্মদ হাবিবুর রহমান, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন এন এম রবিউল আউয়াল চৌধুরী, আইকিউএসির পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. রশিদুল ইসলাম শেখ, শাখা ছাত্রলীগ দুটি গ্রুপের বিভিন্ন নেতাকর্মী ও বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

উল্লেখ্য, বাংলা নববর্ষকে সামনে রেখে রেইনবো পেইন্টসের সহযোগিতায় ও বিশ্ববিদ্যালয়ের একমাত্র গ্রাফিতি সংগঠন বৃত্ত কুবি’র উদ্যোগে গতকাল রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক থেকে শুরু করে গোল চত্ত্বর পর্যন্ত আলপনা আকাঁ হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




কুবিতে বাংলা নববর্ষ ১৪৩০ উদযাপিত

আপডেট সময় : ০৩:০৪:৫১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৩

বাংলার চিরায়ত উৎসব চৈত্র সংক্রান্তি ছিল গতকাল (বৃহস্পতিবার), সেই সঙ্গে বাংলা ১৪২৯ সনের শেষ দিন। সকালের আলো ফুটার সাথে সাথে সারা দেশজুড়ে নানা আয়োজনে বাংলা নতুন বর্ষ ১৪৩০-কে বরণ করে নেয় বাঙালি জাতি। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ও (কুবি) এর ব্যতিক্রম নয়। তবে পবিত্র মাহে রমজানের কারণে অন্যান্য বছরের তুলানায় এবারের আয়োজন ছিল স্বল্প পরিসরে।

শুক্রবার (১৪ এপ্রিল) সকাল সাড়ে দশটায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার মঙ্গল শোভাযাত্রার মাধ্যমে দিনটিকে বরণ করে নেয়। শোভাযাত্রাটি প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে এসে আবার প্রশাসনিক ভবনের সামনে শেষ হয়।

শোভাযাত্রা শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের অফিসে বাঙালির সংস্কৃতি ও দেশপ্রেমের সাথে মিশে থাকা বিভিন্ন গান, কবিতা গেয়ে নববর্ষের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন সকলে।

নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এফ এম আবদুল মঈন বলেন, ‘পহেলা বৈশাখ বাঙালির জাতীয় জীবনে একটি উৎসব মুখর দিন। দিনটি বাঙালি জাতির সংস্কৃতির সাথে মিশে আছে। প্রতি বছরই আমরা দিনটি পালন করে থাকি, তবে এবছর রমজানের কারণে দিনটিকে স্বল্প পরিসরে উদযাপন করা হয়েছে। আমরা দিনটি উপলক্ষে ছাত্র শিক্ষক মিলে একটা শুভেচ্ছা বিনিময় করেছি, শুভেচ্ছা বিনিময়ে বাঙালি সংস্কৃতি ও দেশপ্রেম সম্পৃক্ত বিভিন্ন গান কবিতা পরিবেশন করা হয়েছে। আমি মনে করি কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় দিনটি যথাযথ মর্যাদার সাথে পালন করেছে।’

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. হুমায়ূন কবির সকলকে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, ‘আমাদের বাঙালি জাতির অস্তিত্বের যে জায়গাটা সেটা হচ্ছে বাঙালির সংস্কৃতি। ধর্মীয় পরিচয়ে আমরা অনেকে অনেক ধর্মে বিশ্বাসী হলেও বাঙালি সংস্কৃতির সাথে এই ধর্মের কোনো বিরোধ নাই। ধর্ম এবং সংস্কৃতি এটা সব সময় পাশাপাশি থেকেছে। যারা আজকে ধর্মের নামে বিভিন্ন সমালোচনা করে আমাদের অস্তিত্বে আঘাত করতে চায় সে দিকে আমাদের সচেতন থাকতে হবে। আমরা যে বাঙালি এটাই হচ্ছে আমাদের বড় পরিচয় এবং আমরা এই বাঙালি সংস্কৃতি নিয়ে বিশ্ব দরবারে আরোও অনেক দূর এগিয়ে যাবো।’

বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে পহেলা বৈশাখ উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ শামসুজ্জামান মিলকী বলেন, ‘ বর্তমানে বিশব্বিদ্যালয় বন্ধ আবার রমজান তার কারণে এবার আমরা স্বল্প পরিসরে আয়োজনের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছিলাম এবং সেই মোতাবেক বৈশাখী শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে। যারা উপস্থিত ছিলেন তাদের পরস্পরের মধ্যে শুভেচ্ছা বিনিময়ের প্রসঙ্গ আমরা দেখেছিলাম এবং এর পরবর্তীতে স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে সাংস্কৃতিক পরিবেশনা হয়েছে। এসব কিছু সম্ভব হয়েছে সকলের পারস্পরিকতা, সৌহার্দ্য এবং ভাতৃত্বপূর্ণ যে পরিবেশ সেটির জন্য। আর পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে রেইনবো পেইন্টের সহযোগিতা এবং বৃত্ত কুবির ব্যবস্থাপনায় ক্যাম্পাসে আলপনা করা হয়েছে।’

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন ছাত্র পরামর্শক ও নির্দেশনা দপ্তরের পরিচালক ড. মুহাম্মদ হাবিবুর রহমান, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন এন এম রবিউল আউয়াল চৌধুরী, আইকিউএসির পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. রশিদুল ইসলাম শেখ, শাখা ছাত্রলীগ দুটি গ্রুপের বিভিন্ন নেতাকর্মী ও বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

উল্লেখ্য, বাংলা নববর্ষকে সামনে রেখে রেইনবো পেইন্টসের সহযোগিতায় ও বিশ্ববিদ্যালয়ের একমাত্র গ্রাফিতি সংগঠন বৃত্ত কুবি’র উদ্যোগে গতকাল রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক থেকে শুরু করে গোল চত্ত্বর পর্যন্ত আলপনা আকাঁ হয়েছে।