ঢাকা ০৪:২১ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo ১৭ মার্চ ও ২৬ মার্চের আহ্বায়কসহ তিনজনকে প্রত্যাহারের আহ্বান কুবি শিক্ষক সমিতির Logo সিলেটে সাইবার ট্রাইব্যুনালে ছাত্রদল ও ছাত্রশিবির সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের Logo ড. ইউনূসের মামলা পর্যবেক্ষণ করছে জাতিসংঘ Logo কাভার্ডভ্যান ও অটোরিকশার সংঘর্ষে ছাত্র নিহত, আহত ৩ Logo রাজশাহীতে যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার ৫ Logo এবার ঢাবি অধ্যাপক নাদিরের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ  Logo সন্দ্বীপ থানার ওসির পিপিএম পদক লাভ Logo মালয়েশিয়ায় ১৩৪ বাংলাদেশি গ্রেফতার Logo শাবির ছাত্রীহলে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্থাপন, কমবে চুরি ও বহিরাগত প্রবেশ, বাড়বে নিরাপত্তা Logo গণতন্ত্র মঞ্চের কর্মসূচিতে হামলার নিন্দা ১২ দলীয় জোটের




দুর্নীতি দমন কমিশন দুদকে অভিযোগ:

উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক শাহিনের হরিলুটের ক্ষেত্র কারিগরি শিক্ষা বোর্ড

বিশেষ প্রতিবেদক:
  • আপডেট সময় : ০৭:২৫:৩৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ২৩৮ বার পড়া হয়েছে

ঘুষ দুর্নীতি অনিয়মের মাধ্যমে সম্পদের পাহাড় গড়েছেন কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের কর্মকর্তা শাহীন। দুর্নীতিগ্রস্থ শাহীনের নিকট কারিগরি শিক্ষা বোর্ড যেন হরি লুটের উৎসব ক্ষেত্র। যেমন খুশি তেমন ভাবে নিজের চারিদার্থ হাসিল করে যাচ্ছেন দিনের পর দিন। অভিযোগ রয়েছে, তার দুর্নীতি অনিয়ম আর ঘুষ বাণিজ্যের সংবাদ প্রচার করলে বিভিন্ন সময় সংবাদকর্মীদের কোণঠাসা করেন নিজের গৃহপালিত কয়েকজন সাংবাদিক দ্বারা।

দেশের অধিকাংশ সেক্টরে বেপরোয়া দুর্নীতিবাজ ও লুটেরাদের মত শাহীন যেন একজন অধরা কর্মকর্তা। যে সকল কিছু লোটে পুটে খেয়ে আজ কোটি টাকার মালিক। তার বিরুদ্ধে রয়েছে সীমাহীন অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগ।

সম্প্রতি মোঃ বকুল মিয়া নামের এক ব্যক্তি বাদী হয়ে দুর্নীতি দমন কমিশন বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগে বলা হয়, ঢাকা কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ডিপ্লোমা) মোঃ আবুল শাহীন কাওসার সরকার দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা ব্যাক্তিদেরকে জিম্মি করে নিজের আখের গোছাতে মেতে উঠেছে বেপরোয়া মচ্ছবে। খোদ দপ্তরে একটি সিন্ডিকেটের নেপথ্যেও নেতৃত্ব দেন তিনি। এই শাহিন সীমাহীন অনিয়ম ও দূর্নীতির নেপথ্যে থেকে সার্টিফিকেট বাণিজ্যের মাধ্যমে অবৈধভাবে গাড়ী-বাড়ীসহ কোটি কোটি টাকার অবৈধ সম্পদের মালিক বনে গেছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, রাজধানীর মিরপুর-১১ ,রোড-০৬ এর ৭৮ নং বাসায় ২১০০ বর্গফুটের একটি ফ্ল্যাটসহ স্ত্রীর নামে ২টি ফ্ল্যাট সবমিলে এই ৩টি ফ্ল্যাটের বাজার মূল্য প্রায় ২ কোটি টাকা । সীমাহীন অনিয়ম ও দূর্নীতির মাধ্যমে মিরপুর মাজার রোডের শহীদ বুদ্ধিজীবি কবরস্থানের বিপরীতে ১৫ নং বাসার ৪র্থ তলায় স্ত্রীর নামে ১৫০০ বর্গফুটের প্রায় ৯০ লক্ষ টাকা মূল্যের একটি ফ্ল্যাট কিনেন। এছাড়াও সাভার,আশুলিয়ার বিরুলিয়ায়,নরসিংদী জেলাসহ রায়পুরা উপজেলাতেও নামে বেনামে গড়ে তুলেছেন অবৈধ সম্পদের পাহাড়।

এব্যাপারে ঢাকা কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ডিপ্লোমা) মোঃ আবুল শাহীন কাওসার সরকারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি অভিযোগটি মিথ্যে বলে মন্তব্য করেন।

Loading

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




দুর্নীতি দমন কমিশন দুদকে অভিযোগ:

উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক শাহিনের হরিলুটের ক্ষেত্র কারিগরি শিক্ষা বোর্ড

আপডেট সময় : ০৭:২৫:৩৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

ঘুষ দুর্নীতি অনিয়মের মাধ্যমে সম্পদের পাহাড় গড়েছেন কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের কর্মকর্তা শাহীন। দুর্নীতিগ্রস্থ শাহীনের নিকট কারিগরি শিক্ষা বোর্ড যেন হরি লুটের উৎসব ক্ষেত্র। যেমন খুশি তেমন ভাবে নিজের চারিদার্থ হাসিল করে যাচ্ছেন দিনের পর দিন। অভিযোগ রয়েছে, তার দুর্নীতি অনিয়ম আর ঘুষ বাণিজ্যের সংবাদ প্রচার করলে বিভিন্ন সময় সংবাদকর্মীদের কোণঠাসা করেন নিজের গৃহপালিত কয়েকজন সাংবাদিক দ্বারা।

দেশের অধিকাংশ সেক্টরে বেপরোয়া দুর্নীতিবাজ ও লুটেরাদের মত শাহীন যেন একজন অধরা কর্মকর্তা। যে সকল কিছু লোটে পুটে খেয়ে আজ কোটি টাকার মালিক। তার বিরুদ্ধে রয়েছে সীমাহীন অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগ।

সম্প্রতি মোঃ বকুল মিয়া নামের এক ব্যক্তি বাদী হয়ে দুর্নীতি দমন কমিশন বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগে বলা হয়, ঢাকা কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ডিপ্লোমা) মোঃ আবুল শাহীন কাওসার সরকার দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা ব্যাক্তিদেরকে জিম্মি করে নিজের আখের গোছাতে মেতে উঠেছে বেপরোয়া মচ্ছবে। খোদ দপ্তরে একটি সিন্ডিকেটের নেপথ্যেও নেতৃত্ব দেন তিনি। এই শাহিন সীমাহীন অনিয়ম ও দূর্নীতির নেপথ্যে থেকে সার্টিফিকেট বাণিজ্যের মাধ্যমে অবৈধভাবে গাড়ী-বাড়ীসহ কোটি কোটি টাকার অবৈধ সম্পদের মালিক বনে গেছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, রাজধানীর মিরপুর-১১ ,রোড-০৬ এর ৭৮ নং বাসায় ২১০০ বর্গফুটের একটি ফ্ল্যাটসহ স্ত্রীর নামে ২টি ফ্ল্যাট সবমিলে এই ৩টি ফ্ল্যাটের বাজার মূল্য প্রায় ২ কোটি টাকা । সীমাহীন অনিয়ম ও দূর্নীতির মাধ্যমে মিরপুর মাজার রোডের শহীদ বুদ্ধিজীবি কবরস্থানের বিপরীতে ১৫ নং বাসার ৪র্থ তলায় স্ত্রীর নামে ১৫০০ বর্গফুটের প্রায় ৯০ লক্ষ টাকা মূল্যের একটি ফ্ল্যাট কিনেন। এছাড়াও সাভার,আশুলিয়ার বিরুলিয়ায়,নরসিংদী জেলাসহ রায়পুরা উপজেলাতেও নামে বেনামে গড়ে তুলেছেন অবৈধ সম্পদের পাহাড়।

এব্যাপারে ঢাকা কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ডিপ্লোমা) মোঃ আবুল শাহীন কাওসার সরকারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি অভিযোগটি মিথ্যে বলে মন্তব্য করেন।

Loading