ঢাকা ০৮:৪৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ




ফিরে যাওয়া জাহাজ কোথায় জানেন না পররাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ১২:০২:৪০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ ১১০ বার পড়া হয়েছে

মার্কিন নিষেধাজ্ঞা থাকায় রুশ যে জাহাজকে বাংলাদেশে ঢূকতে দেওয়া হয়নি সেটি এখন কোথায় আছে তা বাংলাদেশ জানে না।

সোমবার (২৩ জানুয়ারি) চীনের রাষ্ট্রদূত ইয়াও ওয়েনের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের পরে সাংবাদিকদের এ কথা জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন। এর আগে চীনা রাষ্ট্রদূত ইয়াও ওয়েন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের পণ্য নিষিদ্ধ জাহাজে পাঠানোর অভিযোগে বাংলাদেশে ঢুকতে দেওয়া হয়নি জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এ ছাড়া ওই জাহাজটির অবস্থান সম্পর্কেও জানে না বাংলাদেশ।

গত ২৪ ডিসেম্বর উরসা মেজর নামে রাশিয়ার পতাকাবাহী জাহাজটির রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের পণ্য নিয়ে মোংলা বন্দরে পৌঁছানোর কথা ছিল। এর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র থেকে তথ্য পায় রঙ ও নাম বদল করে নিষেধাজ্ঞার তালিকায় থাকা জাহাজ পাঠিয়েছে রাশিয়া। পরে তা নিশ্চিত হয় বাংলাদেশ। বাংলাদেশ জাহাজটি বন্দরে ভিড়তে নিষেধ করে। যদিও জাহাজটিকে বন্দরে পণ্য খালাসের অনুমতি দিতে বাংলাদেশের উপর চাপ সৃষ্টি করে রাশিয়া। তবে জাহাজটি বন্দরে ভিড়তে না দেওয়ার বিষয়ে অনড় অবস্থানে ছিল বাংলাদেশ।

এ অবস্থায় জাহাজটি ভারতের যেকোনো বন্দরে পণ্য খালাস করে পরে তা অন্য জাহাজে করে বাংলাদেশে আনার চেষ্টা করে। কিন্তু জাহাজটি প্রায় দুই সপ্তাহ ভারতের পশ্চিমবঙ্গে পণ্য খালাসের জন্য অপেক্ষা করে ব্যর্থ হয়।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




ফিরে যাওয়া জাহাজ কোথায় জানেন না পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট সময় : ১২:০২:৪০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২৩

মার্কিন নিষেধাজ্ঞা থাকায় রুশ যে জাহাজকে বাংলাদেশে ঢূকতে দেওয়া হয়নি সেটি এখন কোথায় আছে তা বাংলাদেশ জানে না।

সোমবার (২৩ জানুয়ারি) চীনের রাষ্ট্রদূত ইয়াও ওয়েনের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের পরে সাংবাদিকদের এ কথা জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন। এর আগে চীনা রাষ্ট্রদূত ইয়াও ওয়েন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের পণ্য নিষিদ্ধ জাহাজে পাঠানোর অভিযোগে বাংলাদেশে ঢুকতে দেওয়া হয়নি জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এ ছাড়া ওই জাহাজটির অবস্থান সম্পর্কেও জানে না বাংলাদেশ।

গত ২৪ ডিসেম্বর উরসা মেজর নামে রাশিয়ার পতাকাবাহী জাহাজটির রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের পণ্য নিয়ে মোংলা বন্দরে পৌঁছানোর কথা ছিল। এর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র থেকে তথ্য পায় রঙ ও নাম বদল করে নিষেধাজ্ঞার তালিকায় থাকা জাহাজ পাঠিয়েছে রাশিয়া। পরে তা নিশ্চিত হয় বাংলাদেশ। বাংলাদেশ জাহাজটি বন্দরে ভিড়তে নিষেধ করে। যদিও জাহাজটিকে বন্দরে পণ্য খালাসের অনুমতি দিতে বাংলাদেশের উপর চাপ সৃষ্টি করে রাশিয়া। তবে জাহাজটি বন্দরে ভিড়তে না দেওয়ার বিষয়ে অনড় অবস্থানে ছিল বাংলাদেশ।

এ অবস্থায় জাহাজটি ভারতের যেকোনো বন্দরে পণ্য খালাস করে পরে তা অন্য জাহাজে করে বাংলাদেশে আনার চেষ্টা করে। কিন্তু জাহাজটি প্রায় দুই সপ্তাহ ভারতের পশ্চিমবঙ্গে পণ্য খালাসের জন্য অপেক্ষা করে ব্যর্থ হয়।