ঢাকা ০৬:৪৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :




দুর্নীতিমুক্ত দেশ গড়তে ডিজিটাল বাংলাদেশের বিকল্প নেই

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৪২:২৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯ ১৫ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ ঘোষণার পর কিছু মানুষ হাসাহাসি করেছে মূর্খের মতো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশ চেয়েছেন বলেই, আজ দেশে উন্নয়ন। দুর্নীতি দূর করতে হলে, দেশকে এগিয়ে নিতে হলে, ডিজিটাল বাংলাদেশের বিকল্প নেই।

ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ (আইডিইবি)-এর তিন দিনব্যাপী প্রতিনিধি সম্মেলন ও বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন তিনি।

বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় রাজধানীর কাকরাইলে আইডিইবি ভবনের মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আজ ডিজিটাল বাংলাদেশের সর্বত্র ইন্টারনেট। আজ চর কুকরি-মুকরির মানুষও ইন্টারনেট ব্যবহার করে। প্রধানমন্ত্রী যা কমিটমেন্ট করেন তা বাস্তবায়ন করেন। যৌক্তিক তো কিছু দাবি উত্থাপন করেননি। সব হয়ে যাবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী যা করছেন- তা করতে টেকনিক্যাল লোক দরকার। সেটা আপনারা প্রমাণ দিচ্ছেন। ডিজিটাল বাংলাদেশ নিয়ে মানুষ হাসাহাসি করেছে মূর্খের মতো। শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশ চেয়েছেন বলেই, আজ দেশে উন্নয়ন। দুর্নীতি দূর করতে হলে, দেশকে এগিয়ে নিতে হলে, ডিজিটাল বাংলাদেশের বিকল্প নেই।

মন্ত্রী বলেন, ২০১২ সালে প্রধানমন্ত্রী নারীনীতি বাস্তবায়ন করেছেন। নারী পুরুষের সঙ্গে সমানতালে চলছে বলেই দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি প্ল্যানমাফিক কাজ করেন। আমরা ২০২১ সালের মাধ্যমে দেশকে স্বয়ংসম্পূর্ণ করব। ২০০৮ সালে আমাদের পার ইনকাম ছিল ৫০০ ডলারের নিচে। আজ তা ১৯০৯ মার্কিন ডলার। এটা সম্ভব হয়েছে মেধা, সততা, দক্ষতা ও পরিশ্রম, দেশপ্রেমের কারণে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছি। মানুষ দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে, দেশকে যদি এগিয়ে নিতে হয়, উন্নত করতে হয় তাহলে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই। এই দেশের মানুষ বুঝে গেছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মার্চ মাস হলো আমাদের মাস। বাঙালির মাস। এই মাসেই বঙ্গবন্ধু জগৎবিখ্যাত ভাষণ দিয়েছিলেন। ওই ভাষণে আমরা স্বাধীনতা এনেছি। আবার এই মাসেই আমরা গণহত্যা দেখেছি। আমরা সমুচিত ব্যবস্থার মাধ্যমে জবাব দিয়েছিলাম।

মন্ত্রী বলেন, ৭৫ এর নির্মম হত্যাকাণ্ডের পর একটা মিথ্যা ইতিহাস তৈরি করা হয়। বঙ্গবন্ধুর সফলতার ইতিহাস মুছে ফেলার চেষ্টা চলে। যারা ইতিহাস থেকে শিক্ষা নেয় না, তারা কখনো নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারে না। কারণ ইতিহাস মীর জাফরকে ক্ষমা করেনি। আমরা ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিচ্ছি বলেই দেশকে অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। এখনকার প্রজন্ম, আগামীর প্রজন্ম দেশকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাবে।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, মেয়েদেরকেও এগিয়ে নিতে হবে। এই শিক্ষাটা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। তিনি নিজে নারী। তার অদম্য স্পৃহা, পরিশ্রম আজ নারীদের সামনে শিক্ষা। তরুণ প্রজন্মকে অনুরোধ করব মাদক সর্বনাশী নেশা। এই নেশা থেকে দূরে থাকবা। এটা শুধুই ধ্বংসই করে। তাহলেই আমাদের স্বপ্ন স্বার্থক হবে। যেই স্বপ্নটা আমরা দেখে আসছি।

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন আইডিইবির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সভাপতি এ কে এম এ হামিদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইডিইবির কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক শামসুর রহমান।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




error: Content is protected !!

দুর্নীতিমুক্ত দেশ গড়তে ডিজিটাল বাংলাদেশের বিকল্প নেই

আপডেট সময় : ১১:৪২:২৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ ঘোষণার পর কিছু মানুষ হাসাহাসি করেছে মূর্খের মতো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশ চেয়েছেন বলেই, আজ দেশে উন্নয়ন। দুর্নীতি দূর করতে হলে, দেশকে এগিয়ে নিতে হলে, ডিজিটাল বাংলাদেশের বিকল্প নেই।

ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ (আইডিইবি)-এর তিন দিনব্যাপী প্রতিনিধি সম্মেলন ও বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন তিনি।

বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় রাজধানীর কাকরাইলে আইডিইবি ভবনের মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আজ ডিজিটাল বাংলাদেশের সর্বত্র ইন্টারনেট। আজ চর কুকরি-মুকরির মানুষও ইন্টারনেট ব্যবহার করে। প্রধানমন্ত্রী যা কমিটমেন্ট করেন তা বাস্তবায়ন করেন। যৌক্তিক তো কিছু দাবি উত্থাপন করেননি। সব হয়ে যাবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী যা করছেন- তা করতে টেকনিক্যাল লোক দরকার। সেটা আপনারা প্রমাণ দিচ্ছেন। ডিজিটাল বাংলাদেশ নিয়ে মানুষ হাসাহাসি করেছে মূর্খের মতো। শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশ চেয়েছেন বলেই, আজ দেশে উন্নয়ন। দুর্নীতি দূর করতে হলে, দেশকে এগিয়ে নিতে হলে, ডিজিটাল বাংলাদেশের বিকল্প নেই।

মন্ত্রী বলেন, ২০১২ সালে প্রধানমন্ত্রী নারীনীতি বাস্তবায়ন করেছেন। নারী পুরুষের সঙ্গে সমানতালে চলছে বলেই দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি প্ল্যানমাফিক কাজ করেন। আমরা ২০২১ সালের মাধ্যমে দেশকে স্বয়ংসম্পূর্ণ করব। ২০০৮ সালে আমাদের পার ইনকাম ছিল ৫০০ ডলারের নিচে। আজ তা ১৯০৯ মার্কিন ডলার। এটা সম্ভব হয়েছে মেধা, সততা, দক্ষতা ও পরিশ্রম, দেশপ্রেমের কারণে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছি। মানুষ দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে, দেশকে যদি এগিয়ে নিতে হয়, উন্নত করতে হয় তাহলে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই। এই দেশের মানুষ বুঝে গেছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মার্চ মাস হলো আমাদের মাস। বাঙালির মাস। এই মাসেই বঙ্গবন্ধু জগৎবিখ্যাত ভাষণ দিয়েছিলেন। ওই ভাষণে আমরা স্বাধীনতা এনেছি। আবার এই মাসেই আমরা গণহত্যা দেখেছি। আমরা সমুচিত ব্যবস্থার মাধ্যমে জবাব দিয়েছিলাম।

মন্ত্রী বলেন, ৭৫ এর নির্মম হত্যাকাণ্ডের পর একটা মিথ্যা ইতিহাস তৈরি করা হয়। বঙ্গবন্ধুর সফলতার ইতিহাস মুছে ফেলার চেষ্টা চলে। যারা ইতিহাস থেকে শিক্ষা নেয় না, তারা কখনো নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারে না। কারণ ইতিহাস মীর জাফরকে ক্ষমা করেনি। আমরা ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিচ্ছি বলেই দেশকে অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। এখনকার প্রজন্ম, আগামীর প্রজন্ম দেশকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাবে।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, মেয়েদেরকেও এগিয়ে নিতে হবে। এই শিক্ষাটা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। তিনি নিজে নারী। তার অদম্য স্পৃহা, পরিশ্রম আজ নারীদের সামনে শিক্ষা। তরুণ প্রজন্মকে অনুরোধ করব মাদক সর্বনাশী নেশা। এই নেশা থেকে দূরে থাকবা। এটা শুধুই ধ্বংসই করে। তাহলেই আমাদের স্বপ্ন স্বার্থক হবে। যেই স্বপ্নটা আমরা দেখে আসছি।

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন আইডিইবির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সভাপতি এ কে এম এ হামিদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইডিইবির কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক শামসুর রহমান।