ঢাকা ০৫:৩৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo মঙ্গল শোভাযাত্রা – তাসফিয়া ফারহানা ঐশী Logo সাস্টিয়ান ব্রাহ্মণবাড়িয়া এর ইফতার মাহফিল সম্পন্ন Logo কুবির চট্টগ্রাম স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের ইফতার ও পূর্নমিলনী Logo অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমেদের মায়ের মৃত্যুতে শাবির মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মুক্ত চিন্তা চর্চায় ঐক্যবদ্ধ শিক্ষকবৃন্দ পরিষদের শোক প্রকাশ Logo শাবির অধ্যাপক জহীর উদ্দিনের মায়ের মৃত্যুতে উপাচার্যের শোক প্রকাশ Logo বিশ কোটিতে গণপূর্তের প্রধান হওয়ার মিশনে ‘ছাত্রদল ক্যাডার প্রকৌশলী’! Logo দূর্নীতির রাক্ষস ফায়ার সার্ভিসের এডি আনোয়ার! Logo ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতি হওয়া শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অবকাঠামোর সংস্কার শুরু Logo বুয়েটে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্র রাজনীতির দাবিতে শাবিপ্রবি ছাত্রলীগের মানববন্ধন Logo কুবি উপাচার্যের বক্তব্যের প্রমাণ দিতে শিক্ষক সমিতির সাত দিনের আল্টিমেটাম




এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের দাবি, হুঁশিয়ারি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:৩১:৩২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২১ ১০২ বার পড়া হয়েছে

মহানগর ডেস্ক:

শুক্রবার (১০ ডিসেম্বর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ হুঁশিয়ারি দেন সংগঠনটির নেতারা।

লিখিত বক্তব্যে সংগঠনটির আহ্বায়ক অধ্যক্ষ মো. মাইন উদ্দিন বলেন, স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পেরিয়ে গেলেও বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীরা পূর্ণাঙ্গ সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত। পাঠ্যক্রম, সিলেবাস, আইন এবং একই মন্ত্রণালয়ের অধীনে শিক্ষা ব্যবস্থা পরিচালিত হলেও শিক্ষা ব্যবস্থায় সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের সুযোগ-সুবিধা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে বিরাট পার্থক্য বিরাজমান।

তিনি আরও বলেন, অধ্যক্ষ থেকে কর্মচারী পর্যন্ত নামমাত্র এক হাজার টাকা বাড়ি ভাড়া ও ৫০০ টাকা চিকিৎসা ভাতা পান এবং ঈদ বোনাস পান বেতনের ২৫ শতাংশ। অবসর ও কল্যাণ ট্রাস্টে শিক্ষক-কর্মচারীদের কাছ থেকে প্রতি মাসে বেতনের ১০ শতাংশ করে কেটে রাখলেও ৬ শতাংশ এর বেশি সুবিধা এখনও দেওয়া হয় না। তাছাড়া বৃদ্ধ বয়সে যথাসময়ে এ টাকা প্রাপ্তির নিশ্চয়তা নেই। অনেক শিক্ষক-কর্মচারী টাকার অভাবে বিনা চিকিৎসায় মারা যান। অধিকাংশ শিক্ষক নিজ জেলার বাইরে চাকরি করেন, তাদের জন্য বদলির ব্যবস্থা চালু অত্যন্ত জরুরি।

মহাজোটের সদস্য সচিব জসিম উদ্দিন আহমেদ বলেন, শেখ হাসিনা ২০১৩ সালে ২৬ হাজার ১ শ ৯৩টির বেশি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করেন। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫’র আওতায় এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদেরকে অন্তর্ভুক্ত করেছেন। কিন্তু বর্তমানে দেশের ৫ লাখ কোটি টাকার বেশি অর্থের বাজেটে এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণ না হওয়ার বিষয়টি খুবই দুঃখজনক ও অমানবিক।

সংগঠনটির নেতারা মনে করেন, বর্তমান সরকারের একটি রাজনৈতিক সিদ্ধান্তই পারে এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর দুর্ভোগ দূর করতে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন মহাজোটের মো. শাহ্ আলম, তালুকদার আব্দুল মন্নাফ, মো. আফজলুর রশিদ, অধ্যক্ষ আফজল হোসেন, বেনী মাধব দেবনাথ প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের দাবি, হুঁশিয়ারি

আপডেট সময় : ০৯:৩১:৩২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২১

মহানগর ডেস্ক:

শুক্রবার (১০ ডিসেম্বর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ হুঁশিয়ারি দেন সংগঠনটির নেতারা।

লিখিত বক্তব্যে সংগঠনটির আহ্বায়ক অধ্যক্ষ মো. মাইন উদ্দিন বলেন, স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পেরিয়ে গেলেও বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীরা পূর্ণাঙ্গ সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত। পাঠ্যক্রম, সিলেবাস, আইন এবং একই মন্ত্রণালয়ের অধীনে শিক্ষা ব্যবস্থা পরিচালিত হলেও শিক্ষা ব্যবস্থায় সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের সুযোগ-সুবিধা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে বিরাট পার্থক্য বিরাজমান।

তিনি আরও বলেন, অধ্যক্ষ থেকে কর্মচারী পর্যন্ত নামমাত্র এক হাজার টাকা বাড়ি ভাড়া ও ৫০০ টাকা চিকিৎসা ভাতা পান এবং ঈদ বোনাস পান বেতনের ২৫ শতাংশ। অবসর ও কল্যাণ ট্রাস্টে শিক্ষক-কর্মচারীদের কাছ থেকে প্রতি মাসে বেতনের ১০ শতাংশ করে কেটে রাখলেও ৬ শতাংশ এর বেশি সুবিধা এখনও দেওয়া হয় না। তাছাড়া বৃদ্ধ বয়সে যথাসময়ে এ টাকা প্রাপ্তির নিশ্চয়তা নেই। অনেক শিক্ষক-কর্মচারী টাকার অভাবে বিনা চিকিৎসায় মারা যান। অধিকাংশ শিক্ষক নিজ জেলার বাইরে চাকরি করেন, তাদের জন্য বদলির ব্যবস্থা চালু অত্যন্ত জরুরি।

মহাজোটের সদস্য সচিব জসিম উদ্দিন আহমেদ বলেন, শেখ হাসিনা ২০১৩ সালে ২৬ হাজার ১ শ ৯৩টির বেশি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করেন। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫’র আওতায় এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদেরকে অন্তর্ভুক্ত করেছেন। কিন্তু বর্তমানে দেশের ৫ লাখ কোটি টাকার বেশি অর্থের বাজেটে এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণ না হওয়ার বিষয়টি খুবই দুঃখজনক ও অমানবিক।

সংগঠনটির নেতারা মনে করেন, বর্তমান সরকারের একটি রাজনৈতিক সিদ্ধান্তই পারে এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর দুর্ভোগ দূর করতে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন মহাজোটের মো. শাহ্ আলম, তালুকদার আব্দুল মন্নাফ, মো. আফজলুর রশিদ, অধ্যক্ষ আফজল হোসেন, বেনী মাধব দেবনাথ প্রমুখ।