ঢাকা ০৭:৪৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ




মাদরাসায় গ্রন্থাগারিক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় টালবাহানার বিরুদ্ধে চাকুরী প্রত্যাশীদের মানববন্ধন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৫:২০:৩০ অপরাহ্ন, বুধবার, ৯ জুন ২০২১ ৩০ বার পড়া হয়েছে

সকালের সংবাদ ডেস্ক: বেসরকারি এমপিওভুক্ত মাদরাসায় গ্রন্থাগারিক ও সহকারী গ্রন্থাগারিক নিয়োগ প্রক্রিয়া চলমান রাখার দাবি জানিয়েছেন এসব পদে নিয়োগ প্রত্যাশীরা। তারা অভিযোগ করেন, এসব পদে নিয়োগে বেশকিছু দিন ধরে মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের প্রতিনিধি মনোনয়ন করা হচ্ছে না। প্রায় এক বছর আগে আবেদন করলেও নিয়োগ প্রত্যাশীদের নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করা যাচ্ছে না। তাই, এ পদগুলোতে নিয়োগ চলমান রাখতে দ্রুত মহাপরিচালকের প্রতিনিধি মনোনয়ন দেয়া শুরু করা দাবি জানিয়েছেন নিয়োগ প্রত্যাশীরা।

এ দাবিতে বুধবার (৮ জুন) রাজধানীর নিউ বেইলি রোডস্থ গার্লসগাইড ভবনে মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তর কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করেছেন তারা। ‘গ্রন্থাগারিক ও সহকারী গ্রন্থাগারিক পদে চাকরি প্রত্যার্শী ঐক্য পরিষদের’ ব্যানারে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে নিয়োগ প্রত্যাশীরা বলেন, ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দে জারি হওয়া মাদরাসার এমপিও নীতিমালা ও ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের ২৩ নভেম্বর জারি হওয়া মাদরাসার সংশোধিত জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা অনুযায়ী ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের জুলাই থেকে আমরা বিভিন্ন দাখিল, আলিম, ফাজিল ও কামিল মাদরাসায় গ্রন্থাগারিক ও সহকারী গ্রন্থাগারিক পদে বিভিন্ন পত্রিকার প্রকাশিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী ব্যাংক ড্রাফট-পোস্টাল অর্ডারসহ আবেদন করেছি। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় ২০২১ খ্রিষ্টাব্দের ফেব্রুয়ারি মাস থেকে অজ্ঞাত কারণে মাদরাসা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের প্রতিনিধি মনোনয়ন সম্পূর্ণভাবে বন্ধ আছে। এ কারণে আমাদের আবেদন করা অনেক মাদরাসার ম্যানেজিং কমিটি ও গভানিং বডির নির্দিষ্ট মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের সময়ও প্রায় শেষ হওয়ার পথে। আমরা ভুক্তভুগী। অথচ এর জন্য প্রার্থীরা দায়ী নন।

মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী চাকরি প্রত্যাশীরা আরও বলেন, ‘চাকরির প্রত্যাশায় অনেক টাকা পয়সা খরচ করে নির্ধারিত বিষয়ে স্নাতক ও স্নাতোকত্তরের পাশাপাশি আলাদাভাবে গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞানে ডিপ্লোমা ও মাস্টার্স কোর্সে দেশের বিভিন্ন স্বীকৃত কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছিলাম। ভর্তির পর থেকেই আমরা নানা কারণে চরম ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছি। পরীক্ষা কার্যক্রমে দীর্ঘ সময়, ফলাফল প্রকাশে দীর্ঘ অপেক্ষা ও সর্বশেষ করোনা মহামারির কারণে চাকরির প্রত্যাশায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আবেদন করেও যথাসময়ে নিয়োগ পরীক্ষায় কার্যক্রম না হওয়াসহ নানা কারণে আমাদের অনেকেরই চাকরির বয়স অতিবাহিত হওয়ার পথে। সব দিক বিবেচনায় আমরা চরম ক্ষতিগ্রস্থ।

তাই, মাদরাসার গ্রন্থাগারিক ও সহকারী গ্রন্থাগারিক নিয়োগ প্রক্রিয়া চলমান রাখাতে দ্রুত ডিজির প্রতিনিধি মনোনয়ন শুরুর দাবি জানান নিয়োগ প্রত্যাশীরা।

মানববন্ধনে নিয়োগ প্রত্যাশী প্রার্থীদের নেতা সাইফুল ইসলামসহ পরিষদের অন্যান্য সদস্যরা অংশগ্রহণ করেন।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




মাদরাসায় গ্রন্থাগারিক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় টালবাহানার বিরুদ্ধে চাকুরী প্রত্যাশীদের মানববন্ধন

আপডেট সময় : ০৫:২০:৩০ অপরাহ্ন, বুধবার, ৯ জুন ২০২১

সকালের সংবাদ ডেস্ক: বেসরকারি এমপিওভুক্ত মাদরাসায় গ্রন্থাগারিক ও সহকারী গ্রন্থাগারিক নিয়োগ প্রক্রিয়া চলমান রাখার দাবি জানিয়েছেন এসব পদে নিয়োগ প্রত্যাশীরা। তারা অভিযোগ করেন, এসব পদে নিয়োগে বেশকিছু দিন ধরে মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের প্রতিনিধি মনোনয়ন করা হচ্ছে না। প্রায় এক বছর আগে আবেদন করলেও নিয়োগ প্রত্যাশীদের নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করা যাচ্ছে না। তাই, এ পদগুলোতে নিয়োগ চলমান রাখতে দ্রুত মহাপরিচালকের প্রতিনিধি মনোনয়ন দেয়া শুরু করা দাবি জানিয়েছেন নিয়োগ প্রত্যাশীরা।

এ দাবিতে বুধবার (৮ জুন) রাজধানীর নিউ বেইলি রোডস্থ গার্লসগাইড ভবনে মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তর কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করেছেন তারা। ‘গ্রন্থাগারিক ও সহকারী গ্রন্থাগারিক পদে চাকরি প্রত্যার্শী ঐক্য পরিষদের’ ব্যানারে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে নিয়োগ প্রত্যাশীরা বলেন, ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দে জারি হওয়া মাদরাসার এমপিও নীতিমালা ও ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের ২৩ নভেম্বর জারি হওয়া মাদরাসার সংশোধিত জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা অনুযায়ী ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের জুলাই থেকে আমরা বিভিন্ন দাখিল, আলিম, ফাজিল ও কামিল মাদরাসায় গ্রন্থাগারিক ও সহকারী গ্রন্থাগারিক পদে বিভিন্ন পত্রিকার প্রকাশিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী ব্যাংক ড্রাফট-পোস্টাল অর্ডারসহ আবেদন করেছি। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় ২০২১ খ্রিষ্টাব্দের ফেব্রুয়ারি মাস থেকে অজ্ঞাত কারণে মাদরাসা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের প্রতিনিধি মনোনয়ন সম্পূর্ণভাবে বন্ধ আছে। এ কারণে আমাদের আবেদন করা অনেক মাদরাসার ম্যানেজিং কমিটি ও গভানিং বডির নির্দিষ্ট মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের সময়ও প্রায় শেষ হওয়ার পথে। আমরা ভুক্তভুগী। অথচ এর জন্য প্রার্থীরা দায়ী নন।

মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী চাকরি প্রত্যাশীরা আরও বলেন, ‘চাকরির প্রত্যাশায় অনেক টাকা পয়সা খরচ করে নির্ধারিত বিষয়ে স্নাতক ও স্নাতোকত্তরের পাশাপাশি আলাদাভাবে গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞানে ডিপ্লোমা ও মাস্টার্স কোর্সে দেশের বিভিন্ন স্বীকৃত কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছিলাম। ভর্তির পর থেকেই আমরা নানা কারণে চরম ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছি। পরীক্ষা কার্যক্রমে দীর্ঘ সময়, ফলাফল প্রকাশে দীর্ঘ অপেক্ষা ও সর্বশেষ করোনা মহামারির কারণে চাকরির প্রত্যাশায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আবেদন করেও যথাসময়ে নিয়োগ পরীক্ষায় কার্যক্রম না হওয়াসহ নানা কারণে আমাদের অনেকেরই চাকরির বয়স অতিবাহিত হওয়ার পথে। সব দিক বিবেচনায় আমরা চরম ক্ষতিগ্রস্থ।

তাই, মাদরাসার গ্রন্থাগারিক ও সহকারী গ্রন্থাগারিক নিয়োগ প্রক্রিয়া চলমান রাখাতে দ্রুত ডিজির প্রতিনিধি মনোনয়ন শুরুর দাবি জানান নিয়োগ প্রত্যাশীরা।

মানববন্ধনে নিয়োগ প্রত্যাশী প্রার্থীদের নেতা সাইফুল ইসলামসহ পরিষদের অন্যান্য সদস্যরা অংশগ্রহণ করেন।