ঢাকা ০৪:১৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo মঙ্গল শোভাযাত্রা – তাসফিয়া ফারহানা ঐশী Logo সাস্টিয়ান ব্রাহ্মণবাড়িয়া এর ইফতার মাহফিল সম্পন্ন Logo কুবির চট্টগ্রাম স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের ইফতার ও পূর্নমিলনী Logo অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমেদের মায়ের মৃত্যুতে শাবির মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মুক্ত চিন্তা চর্চায় ঐক্যবদ্ধ শিক্ষকবৃন্দ পরিষদের শোক প্রকাশ Logo শাবির অধ্যাপক জহীর উদ্দিনের মায়ের মৃত্যুতে উপাচার্যের শোক প্রকাশ Logo বিশ কোটিতে গণপূর্তের প্রধান হওয়ার মিশনে ‘ছাত্রদল ক্যাডার প্রকৌশলী’! Logo দূর্নীতির রাক্ষস ফায়ার সার্ভিসের এডি আনোয়ার! Logo ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতি হওয়া শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অবকাঠামোর সংস্কার শুরু Logo বুয়েটে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্র রাজনীতির দাবিতে শাবিপ্রবি ছাত্রলীগের মানববন্ধন Logo কুবি উপাচার্যের বক্তব্যের প্রমাণ দিতে শিক্ষক সমিতির সাত দিনের আল্টিমেটাম




‘নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে বিএনপিকে মোকাবিলা করার দুঃসাহস আ’লীগের নেই’

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:৫৬:১৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১ ১১২ বার পড়া হয়েছে

বাংলাদেশের নির্বাচন ব্যবস্থার বিপর্যয় ঘটেছে এমন মন্তব্য করে বিএনপির সংসদ সদস্য ও যুগ্ম মহাসচিব হারুন অর রশিদ বলেছেন, ২০১৮ সালে নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে যেই সংসদ গঠিত হয়েছে, সেটা দিনের ভোট রাত্রে অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে হয়েছে এবংএর পরবর্তীতে বিভিন্ন স্থানীয় সরকারের নির্বাচন হয়েছে সেগুলো একটারও গ্রহণযোগ্যতা নাই।

তিনি বলেন, এছাড়া জাতীয় নির্বাচনের যেসকল আসনে উপনির্বাচন হয়েছে সেগুলোর কোনটাই নির্বাচন কমিশন গ্রহণযোগ্যতা দেখাতে পারেনি।

সাম্প্রতি একটি বেসরকারি টেলিভিশনের এক টকশো অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপির এই সাংসদ বলেন, সরকার যদি অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন না চায় তাহলে কোন ভাবেই নির্বাচনী যেই বিশৃঙ্খলা, নির্বাচনী সহিংসতা, নির্বাচনের যেই দূরাবস্থা এখান থেকে জাতিকে মুক্ত করা সম্ভব নয়।

তিনি বলেন, এই প্রশাসনের মাধ্যমে সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে পারবে, কিন্তু সরকারের সেই নির্দেশনা থাকতে হবে। সরকার যদি সেই ভাবে প্রশাসনকে নির্দেশ দেয় যে, স্থানীয় সরকার নির্বাচন সুষ্ঠু শান্তিপূর্ণ হতে হবে। আজকে যারা দুই পক্ষ মারামারি করছে গোলাগুলি করছে কারা করছে এসব? সরকারি পক্ষরাই। এখানে কিন্তু বিএনপি আওয়ামী লীগের ঘটনা নয়।

নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে বিএনপিকে মোকাবিলা করার কোন দুঃসাহস আওয়ামী লীগের নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির এই সাংসদ। ‘যদি নির্বাচনের মধ্য দিয়ে মোকাবিলা করতে পারতো তাহলে আজকে নির্বাচনের যেই প্রহসন হচ্ছে তা হতো না।’

তিনি বলেন, পরিষ্কার ভাবে বলছি স্বাধীনতার সুবর্ণা জয়ন্তীর ৫০ বছর উদযাপন হতে যাচ্ছে। যদি সরকার নির্বাচন ব্যবস্থাতে ফিরে না আসে আমরা (বিএনপি) আগামীতে সকল ধরনের নির্বাচন থেকে দূরে সরে যাব। এছাড়া আমাদের দ্বিতীয় কোন পথ নাই।

তিনি আরও বলেন, আমাদের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা অব্যহতি চান। এই প্রহসনের নির্বাচনে কেন আমরা অংশ গ্রহণ করছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




‘নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে বিএনপিকে মোকাবিলা করার দুঃসাহস আ’লীগের নেই’

আপডেট সময় : ০৮:৫৬:১৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১

বাংলাদেশের নির্বাচন ব্যবস্থার বিপর্যয় ঘটেছে এমন মন্তব্য করে বিএনপির সংসদ সদস্য ও যুগ্ম মহাসচিব হারুন অর রশিদ বলেছেন, ২০১৮ সালে নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে যেই সংসদ গঠিত হয়েছে, সেটা দিনের ভোট রাত্রে অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে হয়েছে এবংএর পরবর্তীতে বিভিন্ন স্থানীয় সরকারের নির্বাচন হয়েছে সেগুলো একটারও গ্রহণযোগ্যতা নাই।

তিনি বলেন, এছাড়া জাতীয় নির্বাচনের যেসকল আসনে উপনির্বাচন হয়েছে সেগুলোর কোনটাই নির্বাচন কমিশন গ্রহণযোগ্যতা দেখাতে পারেনি।

সাম্প্রতি একটি বেসরকারি টেলিভিশনের এক টকশো অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপির এই সাংসদ বলেন, সরকার যদি অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন না চায় তাহলে কোন ভাবেই নির্বাচনী যেই বিশৃঙ্খলা, নির্বাচনী সহিংসতা, নির্বাচনের যেই দূরাবস্থা এখান থেকে জাতিকে মুক্ত করা সম্ভব নয়।

তিনি বলেন, এই প্রশাসনের মাধ্যমে সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে পারবে, কিন্তু সরকারের সেই নির্দেশনা থাকতে হবে। সরকার যদি সেই ভাবে প্রশাসনকে নির্দেশ দেয় যে, স্থানীয় সরকার নির্বাচন সুষ্ঠু শান্তিপূর্ণ হতে হবে। আজকে যারা দুই পক্ষ মারামারি করছে গোলাগুলি করছে কারা করছে এসব? সরকারি পক্ষরাই। এখানে কিন্তু বিএনপি আওয়ামী লীগের ঘটনা নয়।

নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে বিএনপিকে মোকাবিলা করার কোন দুঃসাহস আওয়ামী লীগের নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির এই সাংসদ। ‘যদি নির্বাচনের মধ্য দিয়ে মোকাবিলা করতে পারতো তাহলে আজকে নির্বাচনের যেই প্রহসন হচ্ছে তা হতো না।’

তিনি বলেন, পরিষ্কার ভাবে বলছি স্বাধীনতার সুবর্ণা জয়ন্তীর ৫০ বছর উদযাপন হতে যাচ্ছে। যদি সরকার নির্বাচন ব্যবস্থাতে ফিরে না আসে আমরা (বিএনপি) আগামীতে সকল ধরনের নির্বাচন থেকে দূরে সরে যাব। এছাড়া আমাদের দ্বিতীয় কোন পথ নাই।

তিনি আরও বলেন, আমাদের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা অব্যহতি চান। এই প্রহসনের নির্বাচনে কেন আমরা অংশ গ্রহণ করছি।