ঢাকা ০৪:১৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo মানসম্পন্ন শিক্ষা নিশ্চিত করা আমাদের অঙ্গীকারঃ ড. তৌফিক রহমান চৌধুরী  Logo মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির নতুন বাসের উদ্বোধন Logo মানসম্পন্ন শিক্ষা নিশ্চিত করতে শিক্ষকদের ভূমিকা অগ্রগণ্য: ভিসি প্রফেসর ড. মোহাম্মদ জহিরুল হক Logo মঙ্গল শোভাযাত্রা – তাসফিয়া ফারহানা ঐশী Logo সাস্টিয়ান ব্রাহ্মণবাড়িয়া এর ইফতার মাহফিল সম্পন্ন Logo কুবির চট্টগ্রাম স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের ইফতার ও পূর্নমিলনী Logo অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমেদের মায়ের মৃত্যুতে শাবির মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মুক্ত চিন্তা চর্চায় ঐক্যবদ্ধ শিক্ষকবৃন্দ পরিষদের শোক প্রকাশ Logo শাবির অধ্যাপক জহীর উদ্দিনের মায়ের মৃত্যুতে উপাচার্যের শোক প্রকাশ Logo বিশ কোটিতে গণপূর্তের প্রধান হওয়ার মিশনে ‘ছাত্রদল ক্যাডার প্রকৌশলী’! Logo দূর্নীতির রাক্ষস ফায়ার সার্ভিসের এডি আনোয়ার!




পোড়া তেল-মবিল পুনরায় প্রক্রিয়াজাত করে বিক্রি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৪ নভেম্বর ২০২০ ১৪১ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক;

রাজধানীর বিভিন্ন রেস্তোরাঁ ও চাইনিজ রেস্টুরেন্টে ব্যবহৃত পোড়া তেল এবং বিভিন্ন যানবাহনে ব্যবহৃত মবিল সংগ্রহের পর প্রক্রিয়াজাতের মাধ্যমে খাবার তেল হিসেবে তৈরি ও বিক্রি করতেন খায়রুল ইসলাম মামুন।

গত দুই বছর যাবত তিনি স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর ওই প্রক্রিয়াজাতকৃত তেল লিটারে ৫০ টাকা বিক্রি করে আসছিলেন তিনি।

পোড়া তেল ও মবিল পুনরায় প্রক্রিয়াজাত করে খাবার তেল হিসেবে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বিক্রয়ের অভিযোগে রাজধানীর হাতিরঝিল থানাধীন মীরেরবাগে অভিযান পরিচালনা করে পুলিশের এলিট ফোর্স র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

অভিযানে সাড়ে চার হাজার লিটার পোড়া মবিল ও তেল জব্দসহ প্রতিষ্ঠানের মালিক ইসলাম মামুনকে ২ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে
র‌্যাব পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার রাত আটটার দিকে সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে হাতিরঝিল থানাধীন মীরেরবাগ নতুন রাস্তা মসজিদ গলি ১৫/১ নং বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাব-৩ এর একটি দল। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেছেন র‌্যাব-৩ এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু।

অভিযান শেষে তিনি জাগো নিউজকে বলেন, রাজধানীর বিভিন্ন রেস্তোরাঁ ও চাইনিজ রেস্টুরেন্টে খাদ্য সামগ্রী তৈরিতে বিপুল পরিমাণ তেল ব্যবহৃত হয় যা পরবর্তীতে অল্প দামে ক্রয় করতেন অভিযুক্ত খায়রুল ইসলাম মামুন।

পোড়া তেল ও মবিল সংগ্রহ করে তিনি তার বাসায় এনে প্রক্রিয়াজাত করার মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন স্থানে ৪৫-৫০ টাকা লিটারে বিক্রি করে আসছিলেন।

ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু বলেন, তার প্রক্রিয়াজাতকৃত এই তেল স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। রাজধানীসহ দেশের বিভিন্নস্থানের বেকারি ও হোটেলগুলোতে তিনি ওই তেল সরবরাহ করতেন। যা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

এজন্য প্রতিষ্ঠানটির মালিক খায়রুল ইসলাম মামুনকে দুই বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। তার প্রক্রিয়াজাত করা কারখানা সিলগালা করা হয়েছে। জব্দ করা হয়েছে সাড়ে চার হাজার লিটার পোড়া তেল ও মবিল।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




পোড়া তেল-মবিল পুনরায় প্রক্রিয়াজাত করে বিক্রি

আপডেট সময় : ০৯:০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৪ নভেম্বর ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক;

রাজধানীর বিভিন্ন রেস্তোরাঁ ও চাইনিজ রেস্টুরেন্টে ব্যবহৃত পোড়া তেল এবং বিভিন্ন যানবাহনে ব্যবহৃত মবিল সংগ্রহের পর প্রক্রিয়াজাতের মাধ্যমে খাবার তেল হিসেবে তৈরি ও বিক্রি করতেন খায়রুল ইসলাম মামুন।

গত দুই বছর যাবত তিনি স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর ওই প্রক্রিয়াজাতকৃত তেল লিটারে ৫০ টাকা বিক্রি করে আসছিলেন তিনি।

পোড়া তেল ও মবিল পুনরায় প্রক্রিয়াজাত করে খাবার তেল হিসেবে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বিক্রয়ের অভিযোগে রাজধানীর হাতিরঝিল থানাধীন মীরেরবাগে অভিযান পরিচালনা করে পুলিশের এলিট ফোর্স র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

অভিযানে সাড়ে চার হাজার লিটার পোড়া মবিল ও তেল জব্দসহ প্রতিষ্ঠানের মালিক ইসলাম মামুনকে ২ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে
র‌্যাব পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার রাত আটটার দিকে সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে হাতিরঝিল থানাধীন মীরেরবাগ নতুন রাস্তা মসজিদ গলি ১৫/১ নং বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাব-৩ এর একটি দল। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেছেন র‌্যাব-৩ এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু।

অভিযান শেষে তিনি জাগো নিউজকে বলেন, রাজধানীর বিভিন্ন রেস্তোরাঁ ও চাইনিজ রেস্টুরেন্টে খাদ্য সামগ্রী তৈরিতে বিপুল পরিমাণ তেল ব্যবহৃত হয় যা পরবর্তীতে অল্প দামে ক্রয় করতেন অভিযুক্ত খায়রুল ইসলাম মামুন।

পোড়া তেল ও মবিল সংগ্রহ করে তিনি তার বাসায় এনে প্রক্রিয়াজাত করার মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন স্থানে ৪৫-৫০ টাকা লিটারে বিক্রি করে আসছিলেন।

ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু বলেন, তার প্রক্রিয়াজাতকৃত এই তেল স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। রাজধানীসহ দেশের বিভিন্নস্থানের বেকারি ও হোটেলগুলোতে তিনি ওই তেল সরবরাহ করতেন। যা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

এজন্য প্রতিষ্ঠানটির মালিক খায়রুল ইসলাম মামুনকে দুই বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। তার প্রক্রিয়াজাত করা কারখানা সিলগালা করা হয়েছে। জব্দ করা হয়েছে সাড়ে চার হাজার লিটার পোড়া তেল ও মবিল।