মানবতাবিরোধী অপরাধী ‘সাঈদী’র মুক্তি চাওয়া এনাম মুন্সী ধরাছোঁয়ার বাইরে

সকালের সংবাদ ডেস্ক;সকালের সংবাদ ডেস্ক;
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১২:২৯ পূর্বাহ্ণ, ০৫ জুলাই ২০২০

নিয়াজ মো. || বরিশালের জমজম নার্সিং ইনস্টিটিউটের পিআরও এবং জেনিথ একাডেমি নামের একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ডিরেক্টর পদধারী এনাম নামের এক ব্যক্তির ফেইসবুকে করা একটি পোষ্ট নিয়ে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযুক্ত ও যুদ্ধাপরাধী দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর মুক্তি চেয়ে ২ মে একটি ফেইসবুক স্ট্যাটাস দেন এনাম। মুন্সী এনাম বরিশাল সদর উপজেলার চাদপুরা ইউনিয়নের হিজলতলার মৃত আবু মোতালেব এর পুত্র।

২০ জুন প্রাথমিক অনুসন্ধান শেষে এ বিষয়ে রিপোর্ট প্রকাশ করে বেশ কয়েকটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। ইতিপূর্বে সারা দেশে মানবতা বিরোধী নেতা ও যুদ্ধাপরাধী দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর পক্ষে ফেইসবুক পোষ্ট দিয়ে দেশে বেশ কয়েকজন গ্রেফতার হলেও বরিশালের ক্ষেত্রে বিষয়টি ভিন্ন দেখা গেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, জমজম নার্সিং ইনস্টিটিউটের পিআরও মুন্সী এনাম একজন সক্রিয় কর্মী জামায়াত ইসলামি বাংলাদেশ এর। তিনি গা বাঁচাতে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠন এর নেতাদের নাম বিক্রি করে চলেন।

তাকে (এনাম) মানবতা বিরোধী ও যুদ্পরাধী অভিযুক্ত দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর মুক্তির দাবীর বিষয়ে জানতে চাইলে নির্দ্ধিধায় তিনি তা স্বীকার করেন। এবং বলেন ‘ আমি জেনে শুনেই সাইদী সাহেবের মুক্তি চেয়েছি। আমি আমার দ্বায়িত্ব পালন করেছি মুসলিম হিসেবে। ‘

সদর উপজেলায় ছাত্রলীগের কর্মী ও পদ প্রত্যাশী তরিকুল ইসলাম রাসেলকে জানতে চাইলে তিনি বলেন ‘ এনাম সাহেব আমার তেমন খুব পরিচিত কেউ না। ছাত্রছাত্রী যোগাড় করে দেন শুধু তিনি। আমি এনাম সাহেবকে এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে তিনি মুক্তি চাওয়ার বিষয় স্বীকার করেন। আমি তার জামায়াত সংশ্লিষ্টতা সমন্ধে৷ জানিনা। ‘ যদিও সংবাদ প্রকাশের পর থেকে এখন অবদি কোন ব্যাবস্থা নেয়া হয়নি জেনিথ একাডেমির পক্ষ থেক। জেনিথ একাডেমির নিরব ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন স্বাধীনতার স্বপক্ষে থাকা সচেতন নাগরিকদের অনেকে ।

আপনার মতামত লিখুন :