ঢাকা ১১:০৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :




জাবিতে সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:৩৪:১৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ নভেম্বর ২০১৯ ২৫ বার পড়া হয়েছে

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্যাম্পাসের বাইরে অবস্থানরত কোনো শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসে এসে সভা-সমাবেশ, মিছিল কিংবা কোনো অফিস বা আবাসিক এলাকায় অবস্থান করতে পারবে না।

বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতর থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গতকাল মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেটের জরুরি সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আজ বুধবার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ক্লাস ও পরীক্ষা অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া শিক্ষার্থীরা আবাসিক হল ত্যাগ করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরের দোকানপাটও বন্ধ করা হয়েছে। তাই এ সময়ে ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরে কোনো শিক্ষার্থীর অবস্থান সমীচীন নয়।

এতে আরও বলা হয়, যে কোনো অনাকাঙিক্ষত ঘটনা রোধ এবং সার্বিক নিরাপত্তার স্বার্থে ক্যাম্পাসের বাইরে অবস্থানরত কোনো শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসে এসে সভা-সমাবেশ, মিছিল কিংবা কোনো অফিস বা আবাসিক এলাকায় অবস্থান করতে পারবে না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল বন্ধ করার পরে সভা-সমাবেশ ও ক্যাম্পাসে প্রবেশে এমন নিষেধাজ্ঞাকে আন্দোলন দমানোর অপকৌশল হিসেবে দেখছেন আন্দোলনকারীরা।

তারা বলছেন, হল বন্ধের কারণে ক্যাম্পাসের বাইরে থেকে এসে তারা আন্দোলন চালাবেন। এ কারণেই প্রশাসন এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

প্রসঙ্গত, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের অপসারণের দাবিতে প্রায় তিন মাস ধরে আন্দোলন করছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনের মধ্যে গতকাল মঙ্গলবার তাদের ওপর হামলা চালায় ছাত্রলীগ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




error: Content is protected !!

জাবিতে সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ

আপডেট সময় : ১০:৩৪:১৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ নভেম্বর ২০১৯

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্যাম্পাসের বাইরে অবস্থানরত কোনো শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসে এসে সভা-সমাবেশ, মিছিল কিংবা কোনো অফিস বা আবাসিক এলাকায় অবস্থান করতে পারবে না।

বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতর থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গতকাল মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেটের জরুরি সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আজ বুধবার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ক্লাস ও পরীক্ষা অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া শিক্ষার্থীরা আবাসিক হল ত্যাগ করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরের দোকানপাটও বন্ধ করা হয়েছে। তাই এ সময়ে ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরে কোনো শিক্ষার্থীর অবস্থান সমীচীন নয়।

এতে আরও বলা হয়, যে কোনো অনাকাঙিক্ষত ঘটনা রোধ এবং সার্বিক নিরাপত্তার স্বার্থে ক্যাম্পাসের বাইরে অবস্থানরত কোনো শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসে এসে সভা-সমাবেশ, মিছিল কিংবা কোনো অফিস বা আবাসিক এলাকায় অবস্থান করতে পারবে না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল বন্ধ করার পরে সভা-সমাবেশ ও ক্যাম্পাসে প্রবেশে এমন নিষেধাজ্ঞাকে আন্দোলন দমানোর অপকৌশল হিসেবে দেখছেন আন্দোলনকারীরা।

তারা বলছেন, হল বন্ধের কারণে ক্যাম্পাসের বাইরে থেকে এসে তারা আন্দোলন চালাবেন। এ কারণেই প্রশাসন এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

প্রসঙ্গত, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের অপসারণের দাবিতে প্রায় তিন মাস ধরে আন্দোলন করছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনের মধ্যে গতকাল মঙ্গলবার তাদের ওপর হামলা চালায় ছাত্রলীগ।