ঢাকা ০৮:১৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo মঙ্গল শোভাযাত্রা – তাসফিয়া ফারহানা ঐশী Logo সাস্টিয়ান ব্রাহ্মণবাড়িয়া এর ইফতার মাহফিল সম্পন্ন Logo কুবির চট্টগ্রাম স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের ইফতার ও পূর্নমিলনী Logo অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমেদের মায়ের মৃত্যুতে শাবির মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মুক্ত চিন্তা চর্চায় ঐক্যবদ্ধ শিক্ষকবৃন্দ পরিষদের শোক প্রকাশ Logo শাবির অধ্যাপক জহীর উদ্দিনের মায়ের মৃত্যুতে উপাচার্যের শোক প্রকাশ Logo বিশ কোটিতে গণপূর্তের প্রধান হওয়ার মিশনে ‘ছাত্রদল ক্যাডার প্রকৌশলী’! Logo দূর্নীতির রাক্ষস ফায়ার সার্ভিসের এডি আনোয়ার! Logo ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতি হওয়া শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অবকাঠামোর সংস্কার শুরু Logo বুয়েটে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্র রাজনীতির দাবিতে শাবিপ্রবি ছাত্রলীগের মানববন্ধন Logo কুবি উপাচার্যের বক্তব্যের প্রমাণ দিতে শিক্ষক সমিতির সাত দিনের আল্টিমেটাম




দুধ দিচ্ছে বাবু লালের পাঁঠা ছাগল! 

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:১৬:৪৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯ ১৪৬ বার পড়া হয়েছে

জেলা প্রতিনিধি

অবিশ্বাস্য মনে হলেও সত্যি ছাগি নয় দুধ দিচ্ছে একটি পুরুষ ছাগল (পাঁঠা)। এমনই ঘটনা ঘটেছে জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে। ওই উপজেলার মোলান রশিদপুর গ্রামের একটি ছাগল প্রজনন খামারে প্রতি প্রায় এক লিটার করে দুধ দিচ্ছে একটি পাঁঠা। সেই দুধের স্বাদও ছাগীর দুধের মতই। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সেখানে সৃষ্টি হয়েছে ব্যাপক চাঞ্চল্য। এমন ব্যতিক্রমী খবরে দূর দুরন্ত থেকে লোকজন ভিড় করছেন ওই গ্রামে।

জানা গেছে, ওই গ্রামের ছাগল প্রজনন খামারী বাবু লাল প্রায় ২০ বছর আগে বড় ভাইয়ের পাঁচটি পাঁঠা নিয়ে বাণিজ্যিকভাবে ছাগল প্রজনন খামার শুরু করেন। বর্তমানে তার খামারে বিভিন্ন জাতের ১৬টি পাঁঠা আছে । তিনি বছর খানেক আগে খামারের একটি পাঁঠার তলপেটে স্ত্রী ছাগলের মত দুধের বাঁট দেখতে পান। তখন ব্যথার কারণে ছটফট করত পাঁঠাটি। পরে স্থানীয় পশু চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে গেলে চিকিৎসক জানান, পাঁঠাটির বাঁট দিয়ে যে দুধ নিঃসরণ হচ্ছে এর স্বাদ ও গুণগত মান ছাগীর দুধের মতই। এরপর থেকে নিয়মিত দুধ সংগ্রহের পর তা নিজেও খান, আবার পাড়াপড়শিদেরও দেন বাবু লাল।

তিনি জানান, প্রতিদিন প্রায় এক লিটার দুধ দেয় পাঁঠাটি। প্রায় এক বছর আগে এই ঘটনার শুরু হয়। একদিন হঠাৎ খেয়াল করি তিন বছর বয়সী পাঁঠাটির তলপেটে দুধের ওলানের (বাঁট) মত বের হয়ে তা মোটা হয়ে গেছে। তখন পশু ডাক্তার দেখালে তিনি জানান যে, বাঁটে দুধ জমছে। সেই থেকে প্রতিদিন ছাগলটি হাফ লিটার থেকে এক লিটারের মত দুধ দিচ্ছে। পাঁঠার দুধ পান করে এলাকাবাসীরা জানিয়েছেন এর স্বাদ স্ত্রী ছাগলের দুধের মতই।

একই গ্রামের আব্দুল ওয়াহাব, বাদশা মিয়া, নিবারন চন্দ্র, পার্শ্ববর্তী সরাইল গ্রামের লাবন মন্ডলসহ আরও কয়েকজন জানান, বাবু লালের পাঁঠাটির দুধের বাঁট বিদেশি গরুর মত মোটা। তারাও এই দুধ খেয়েছেন। স্বাদ সাধারণ দুধের মতই। এ খবর ছড়িয়ে পরার পর বিভিন্ন জায়গা থেকে এখানে লোকজন আসছে।

এলাকার ৭৫ বছরের বৃদ্ধ আ. খালেক মোল্লা বলেন, পাঁঠাও দুধ দিচ্ছে এমন ঘটনা শুনে স্বচক্ষে দেখার জন্য অনেক দূর দুরান্ত থেকে প্রতিদিন শত শত লোক লাল বাবুর খামারে আসছেন এবং দুধ সংগ্রহ করে নিয়ে যাচ্ছেন।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আব্দুল হাকিম বলেন, মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের মোলান গ্রামের বাবু লাল পাঁঠা দিয়ে বাণিজ্যিকভাবে ছাগল প্রজনন করেন। এরমধ্যে একটি পাঁঠা প্রতিদিন প্রায় ১ এক লিটার দুধ দেয়, যা স্বাভাবিক দুধের মতই। অক্সি-ডক্সিন নামক একটি হরমোনের কারণে এমন হয়েছে। শরীরে এই হরমোনের সিক্রেশন খুব বেশি হয়ে গেলে পুরুষ ছাগলও তখন দুধ দেয়া শুরু করে। ধারণা করা হচ্ছে বাবু লালের পাঁঠাটির ক্ষেত্রেও এমনই হয়েছে। আমরা মাঠকর্মীর দ্বারা ছাগলটিকে পর্যবেক্ষণে রেখেছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




দুধ দিচ্ছে বাবু লালের পাঁঠা ছাগল! 

আপডেট সময় : ০৯:১৬:৪৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯

জেলা প্রতিনিধি

অবিশ্বাস্য মনে হলেও সত্যি ছাগি নয় দুধ দিচ্ছে একটি পুরুষ ছাগল (পাঁঠা)। এমনই ঘটনা ঘটেছে জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে। ওই উপজেলার মোলান রশিদপুর গ্রামের একটি ছাগল প্রজনন খামারে প্রতি প্রায় এক লিটার করে দুধ দিচ্ছে একটি পাঁঠা। সেই দুধের স্বাদও ছাগীর দুধের মতই। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সেখানে সৃষ্টি হয়েছে ব্যাপক চাঞ্চল্য। এমন ব্যতিক্রমী খবরে দূর দুরন্ত থেকে লোকজন ভিড় করছেন ওই গ্রামে।

জানা গেছে, ওই গ্রামের ছাগল প্রজনন খামারী বাবু লাল প্রায় ২০ বছর আগে বড় ভাইয়ের পাঁচটি পাঁঠা নিয়ে বাণিজ্যিকভাবে ছাগল প্রজনন খামার শুরু করেন। বর্তমানে তার খামারে বিভিন্ন জাতের ১৬টি পাঁঠা আছে । তিনি বছর খানেক আগে খামারের একটি পাঁঠার তলপেটে স্ত্রী ছাগলের মত দুধের বাঁট দেখতে পান। তখন ব্যথার কারণে ছটফট করত পাঁঠাটি। পরে স্থানীয় পশু চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে গেলে চিকিৎসক জানান, পাঁঠাটির বাঁট দিয়ে যে দুধ নিঃসরণ হচ্ছে এর স্বাদ ও গুণগত মান ছাগীর দুধের মতই। এরপর থেকে নিয়মিত দুধ সংগ্রহের পর তা নিজেও খান, আবার পাড়াপড়শিদেরও দেন বাবু লাল।

তিনি জানান, প্রতিদিন প্রায় এক লিটার দুধ দেয় পাঁঠাটি। প্রায় এক বছর আগে এই ঘটনার শুরু হয়। একদিন হঠাৎ খেয়াল করি তিন বছর বয়সী পাঁঠাটির তলপেটে দুধের ওলানের (বাঁট) মত বের হয়ে তা মোটা হয়ে গেছে। তখন পশু ডাক্তার দেখালে তিনি জানান যে, বাঁটে দুধ জমছে। সেই থেকে প্রতিদিন ছাগলটি হাফ লিটার থেকে এক লিটারের মত দুধ দিচ্ছে। পাঁঠার দুধ পান করে এলাকাবাসীরা জানিয়েছেন এর স্বাদ স্ত্রী ছাগলের দুধের মতই।

একই গ্রামের আব্দুল ওয়াহাব, বাদশা মিয়া, নিবারন চন্দ্র, পার্শ্ববর্তী সরাইল গ্রামের লাবন মন্ডলসহ আরও কয়েকজন জানান, বাবু লালের পাঁঠাটির দুধের বাঁট বিদেশি গরুর মত মোটা। তারাও এই দুধ খেয়েছেন। স্বাদ সাধারণ দুধের মতই। এ খবর ছড়িয়ে পরার পর বিভিন্ন জায়গা থেকে এখানে লোকজন আসছে।

এলাকার ৭৫ বছরের বৃদ্ধ আ. খালেক মোল্লা বলেন, পাঁঠাও দুধ দিচ্ছে এমন ঘটনা শুনে স্বচক্ষে দেখার জন্য অনেক দূর দুরান্ত থেকে প্রতিদিন শত শত লোক লাল বাবুর খামারে আসছেন এবং দুধ সংগ্রহ করে নিয়ে যাচ্ছেন।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আব্দুল হাকিম বলেন, মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের মোলান গ্রামের বাবু লাল পাঁঠা দিয়ে বাণিজ্যিকভাবে ছাগল প্রজনন করেন। এরমধ্যে একটি পাঁঠা প্রতিদিন প্রায় ১ এক লিটার দুধ দেয়, যা স্বাভাবিক দুধের মতই। অক্সি-ডক্সিন নামক একটি হরমোনের কারণে এমন হয়েছে। শরীরে এই হরমোনের সিক্রেশন খুব বেশি হয়ে গেলে পুরুষ ছাগলও তখন দুধ দেয়া শুরু করে। ধারণা করা হচ্ছে বাবু লালের পাঁঠাটির ক্ষেত্রেও এমনই হয়েছে। আমরা মাঠকর্মীর দ্বারা ছাগলটিকে পর্যবেক্ষণে রেখেছি।