ঢাকা ০৫:০০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo সাস্টিয়ান ব্রাহ্মণবাড়িয়া এর ইফতার মাহফিল সম্পন্ন Logo কুবির চট্টগ্রাম স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের ইফতার ও পূর্নমিলনী Logo অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমেদের মায়ের মৃত্যুতে শাবির মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মুক্ত চিন্তা চর্চায় ঐক্যবদ্ধ শিক্ষকবৃন্দ পরিষদের শোক প্রকাশ Logo শাবির অধ্যাপক জহীর উদ্দিনের মায়ের মৃত্যুতে উপাচার্যের শোক প্রকাশ Logo বিশ কোটিতে গণপূর্তের প্রধান হওয়ার মিশনে ‘ছাত্রদল ক্যাডার প্রকৌশলী’! Logo দূর্নীতির রাক্ষস ফায়ার সার্ভিসের এডি আনোয়ার! Logo ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতি হওয়া শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অবকাঠামোর সংস্কার শুরু Logo বুয়েটে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্র রাজনীতির দাবিতে শাবিপ্রবি ছাত্রলীগের মানববন্ধন Logo কুবি উপাচার্যের বক্তব্যের প্রমাণ দিতে শিক্ষক সমিতির সাত দিনের আল্টিমেটাম Logo কুবি বাংলা বিভাগের অ্যালামনাইদের ইফতার ও দোয়া মাহফিল




যুবলীগের দায়িত্ব পেলে উপাচার্য পদ ছাড়তে রাজি জবি ভিসি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৫০:১৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯ ৯৫ বার পড়া হয়েছে

জবি প্রতিনিধি :– জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য় অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী চাইলে আমি উপাচার্য পদ ছেড়ে যুবলীগের দায়িত্ব নিতে রাজি আছি। এটা এতটাই ভালোবাসার সংগঠন আমি উপাচার্যশিপ ছেড়ে দিতে রাজি আছি। শুক্রবার (১৮ নভেম্বর) ফোনালাপে তিনি একথা বলেন।

এর আগে বেসরকারি টেলিভিশনের এক টকশো’তেও তিনি একথা বলেছেন। অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, ‘ওয়ান ইলেভেনের পর আমাকে যুবলীগের দায়িত্ব পালন করতে হয়েছে। সেই আন্দোলনের সময় আমি দেখেছি লাখ লাখ তরুণ নেতা সংগঠনে আছে। বহু ত্যাগী নেতা আছে যারা এখনো চাকরি পায়নি, শুধু সংগঠনকে ভালোবেসে এখনো রয়ে গেছে। তারা কখনো ক্যাসিনো ব্যবসা, টেন্ডারবাজির সঙ্গে জাড়িত হয়নি।’

সংগঠনের কিছু নেতা তাদের নিজস্ব বলয় তৈরি করতে গিয়ে ক্যাসিনো ব্যবসা এবং টেন্ডারবাজির সঙ্গে জড়িয়ে গেছে উল্লেখ করে জবির ভিসি বলেন, ‘যার কারণে পুরো সংগঠনটা বদনামের মুখে পড়ে গেল। আমি সরকারের শুদ্ধি অভিযান নিয়ে খুব আশাবাদী। আশাকরি আওয়ামী লীগের ঘর থেকে আস্তে আস্তে সহযোগী বিভিন্ন সংগঠনসহ সব স্তরে এই শুদ্ধি অভিযান চলবে।’

এসময় যুবলীগের এক নম্বর প্রেসিডিয়াম সদস্য জানান, তিনি ভাইস চ্যান্সেলর হওয়ার পর যুবলীগের কোনো মিটিংয়ে অংশ নেননি।

এদিকে আগামী ২৩ নভেম্বর যুবলীগের সম্মেলন। সর্বশেষ ২০১২ সালের ১৪ জুলাই যুবলীগের ষষ্ঠ জাতীয় কংগ্রেস হয় দীর্ঘ ৯ বছর পর। এসময় যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মো. হারুনুর রশিদকে নেতৃত্বে আনা হয়। এ কমিটিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমানকে ১নং প্রেসিডিয়াম সদস্য করা হয়। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী প্রতি ৩ বছর অন্তর সম্মেলন হওয়ার কথা থাকলেও সম্মেলনের পর কেটে গেছে ৭ বছর। এ কমিটিরও মেয়াদ ফুরিয়েছে ২০১৫ সালের ১৪ জুলাই।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের মার্চে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে যোগ দেন। পরে ২০১৭ সালে দ্বিতীয় মেয়াদে দায়িত্ব নেন তিনি। এর আগে, তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার পদে ছিলেন তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




যুবলীগের দায়িত্ব পেলে উপাচার্য পদ ছাড়তে রাজি জবি ভিসি

আপডেট সময় : ১১:৫০:১৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯

জবি প্রতিনিধি :– জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য় অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী চাইলে আমি উপাচার্য পদ ছেড়ে যুবলীগের দায়িত্ব নিতে রাজি আছি। এটা এতটাই ভালোবাসার সংগঠন আমি উপাচার্যশিপ ছেড়ে দিতে রাজি আছি। শুক্রবার (১৮ নভেম্বর) ফোনালাপে তিনি একথা বলেন।

এর আগে বেসরকারি টেলিভিশনের এক টকশো’তেও তিনি একথা বলেছেন। অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, ‘ওয়ান ইলেভেনের পর আমাকে যুবলীগের দায়িত্ব পালন করতে হয়েছে। সেই আন্দোলনের সময় আমি দেখেছি লাখ লাখ তরুণ নেতা সংগঠনে আছে। বহু ত্যাগী নেতা আছে যারা এখনো চাকরি পায়নি, শুধু সংগঠনকে ভালোবেসে এখনো রয়ে গেছে। তারা কখনো ক্যাসিনো ব্যবসা, টেন্ডারবাজির সঙ্গে জাড়িত হয়নি।’

সংগঠনের কিছু নেতা তাদের নিজস্ব বলয় তৈরি করতে গিয়ে ক্যাসিনো ব্যবসা এবং টেন্ডারবাজির সঙ্গে জড়িয়ে গেছে উল্লেখ করে জবির ভিসি বলেন, ‘যার কারণে পুরো সংগঠনটা বদনামের মুখে পড়ে গেল। আমি সরকারের শুদ্ধি অভিযান নিয়ে খুব আশাবাদী। আশাকরি আওয়ামী লীগের ঘর থেকে আস্তে আস্তে সহযোগী বিভিন্ন সংগঠনসহ সব স্তরে এই শুদ্ধি অভিযান চলবে।’

এসময় যুবলীগের এক নম্বর প্রেসিডিয়াম সদস্য জানান, তিনি ভাইস চ্যান্সেলর হওয়ার পর যুবলীগের কোনো মিটিংয়ে অংশ নেননি।

এদিকে আগামী ২৩ নভেম্বর যুবলীগের সম্মেলন। সর্বশেষ ২০১২ সালের ১৪ জুলাই যুবলীগের ষষ্ঠ জাতীয় কংগ্রেস হয় দীর্ঘ ৯ বছর পর। এসময় যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মো. হারুনুর রশিদকে নেতৃত্বে আনা হয়। এ কমিটিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমানকে ১নং প্রেসিডিয়াম সদস্য করা হয়। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী প্রতি ৩ বছর অন্তর সম্মেলন হওয়ার কথা থাকলেও সম্মেলনের পর কেটে গেছে ৭ বছর। এ কমিটিরও মেয়াদ ফুরিয়েছে ২০১৫ সালের ১৪ জুলাই।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের মার্চে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে যোগ দেন। পরে ২০১৭ সালে দ্বিতীয় মেয়াদে দায়িত্ব নেন তিনি। এর আগে, তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার পদে ছিলেন তিনি।