ঢাকা ০৯:৩৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo ঐতিহ্যবাহী সোহরাওয়ার্দী কলেজ সাংবাদিক সমিতির কমিটি গঠন Logo চেয়ারম্যানের আহ্লাদে বেপরোয়া বিআইডব্লিউটিএ‘র কর্মচারি পান্না বিশ্বাস! Logo রাজউকে বদলী ও পদায়নে ভয়ংকর দুর্নীতি ফাঁস: নেপথ্য নায়ক প্রধান প্রকৌশলী  Logo কুবির শেখ হাসিনা হলের গ্যাস লিক, আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা Logo ইন্টার্ন চিকিৎসকের হাত-পা ভেঙে দিলেন সহকর্মীরা Logo ঐতিহ্যবাহী শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজে অফিসার্স কাউন্সিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত  Logo একজন মমতাময়ী মায়ের উদাহরণ শাবির প্রাধ্যক্ষ জোবেদা কনক Logo বাংলা বিভাগের নতুন চেয়ারম্যান ড. শামসুজ্জামান মিলকী Logo মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটি শিক্ষার্থীদের দক্ষ জনশক্তি ও উদ্যোক্তা তৈরীতে ভূমিকা রাখবেঃ ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ জহিরুল হক  Logo কুবিতে প্রক্টরের সামনে সহকারী প্রক্টরকে মারতে তেড়ে গেলেন ২ নেতা




সম্পর্ক মধুর হয় যে কারনে

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:১৫:৩৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৯ জানুয়ারী ২০২১ ৮২ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক;

প্রেম থেকে বিয়ে বা বিয়ে থেকে প্রেম! যে যেই নামেই ডাকুক না কেন প্রেম ভালোবাসা সংসার জীবনে নানা চড়াই-উতরাই পেরোতে হয় কম বেশী সকলকে। কিন্তু কিছু জিনিস মাথায় রাখলে আমাদের দাম্পত্য জীবনে তেমন কোনও সমস্যা বা একঘেয়েমিতা আসার কথা না। সে ক্ষেত্রে কি করবেন তাই জানিয়েছেন সম্পর্ক-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটের প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে ।যেখানে ভালোবাসার সম্পর্ক উন্নত করার উপায় সম্পর্কে কিছু টিপস দেয়া হয়।

আসুন দেখে নেই সেই টিপস গুলো কি :

একসঙ্গে রান্না করা: চাপ কমাতে একসঙ্গে রান্না করা খুব ভালো উপায়। বিশষত, যারা ভোজন রশিক। পছন্দের কোনো কাজ আনন্দসহকারে উপভোগ করে করা হলে ভালোবাসার সম্পর্ক আরও মধুর হয়। একেক দিন একেকজন রান্নায় নির্দেশনা দিন এতে বিষয়টা বেশ উপভোগ্য হবে।

মনে রাখবেন রান্নার জন্য একেকদিন একেকজন নির্দেশনা দেবেন। বরাবর একজনের অধিনায়কত্ব একঘেয়েমি সৃষ্টি করতে পারে।

একসঙ্গে পরিষ্কার করা: রান্না করার মতো ধোয়া মোছার কাজও আনন্দঘন হয়ে উঠতে পারে যদি তা একসঙ্গে করা হয়। এতে কাজ অনেকটা সহজ হয়ে যায় এছাড়াও কাজের ফাঁকে ফাঁকে অদ্ভুত আলোচনা বা খোশগল্প করা যেতে পারে। গল্পের ফাঁকেফাঁকে হাতের কাজ করে নেওয়া ব্যপারটাও বেশ মজার।

গুরুত্ব দিয়ে কথা শুনুন: যখন দুজন কথা বলবেন বা কোনো বিষয়ে আলাপ করবেন, গুরুত্ব দিয়ে সঙ্গীর কথা শুনুন। হাতে ফোন বা অন্য কিছু থাকলে সরিয়ে রাখুন। সঙ্গীর জন্য আপনার মনোযোগ হতে পারে গুরুত্বপূর্ণ এক উপহার। সঙ্গী নিশ্চয় অনুভব করবে আপনার গুরুত্বের বিষয়টি। দুজন দুজনকে যখন গুরুত্ব দেন, সম্পর্কের মধ্যে কি ফাঁকফোকর থাকবে?

প্লিজ ও থ্যাংক ইউ: দুজন দুজনের নিশ্চয়ই নানা কাজে সাহায্য করেন। কখনো কি থ্যাংক ইউ বলে দেখেছেন সঙ্গীকে? অনেক সময় পাশাপাশি থেকেও গুরুত্ব দিয়ে কথা বলা হয়ে ওঠে না। কথার সঙ্গে ‘প্লিজ’ জুড়ে দিলে সঙ্গীর কাছে সে কথা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে। প্লিজের সঙ্গে যদি সঙ্গীকে একটা ‘থ্যাংক ইউ’ যোগ হয়, সম্পর্ক আরও মধুর হবে নিঃসন্দেহে।

বাড়িতে ‘ডেইট-নাইট’ পরিকল্পনা: একে অপরের জন্য সাজগোজ করুন। সুন্দর করে টেবিল সাজিয়ে, মোমবাতির আলোতে পছন্দের স্নিগ্ধ গান চালাতে পারেন। একে অপরকে বিশেষ অনুভব করানোর জন্য বিশেষ কোন কাজ বা অনুভূতি প্রকাশ করুন। এছাড়াও একে অপরের সঙ্গে অন্তরঙ্গ সময় কাটানো ভালোবাসার সম্পর্ক উন্নত করতে সহায়তা করে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




সম্পর্ক মধুর হয় যে কারনে

আপডেট সময় : ১০:১৫:৩৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৯ জানুয়ারী ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক;

প্রেম থেকে বিয়ে বা বিয়ে থেকে প্রেম! যে যেই নামেই ডাকুক না কেন প্রেম ভালোবাসা সংসার জীবনে নানা চড়াই-উতরাই পেরোতে হয় কম বেশী সকলকে। কিন্তু কিছু জিনিস মাথায় রাখলে আমাদের দাম্পত্য জীবনে তেমন কোনও সমস্যা বা একঘেয়েমিতা আসার কথা না। সে ক্ষেত্রে কি করবেন তাই জানিয়েছেন সম্পর্ক-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটের প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে ।যেখানে ভালোবাসার সম্পর্ক উন্নত করার উপায় সম্পর্কে কিছু টিপস দেয়া হয়।

আসুন দেখে নেই সেই টিপস গুলো কি :

একসঙ্গে রান্না করা: চাপ কমাতে একসঙ্গে রান্না করা খুব ভালো উপায়। বিশষত, যারা ভোজন রশিক। পছন্দের কোনো কাজ আনন্দসহকারে উপভোগ করে করা হলে ভালোবাসার সম্পর্ক আরও মধুর হয়। একেক দিন একেকজন রান্নায় নির্দেশনা দিন এতে বিষয়টা বেশ উপভোগ্য হবে।

মনে রাখবেন রান্নার জন্য একেকদিন একেকজন নির্দেশনা দেবেন। বরাবর একজনের অধিনায়কত্ব একঘেয়েমি সৃষ্টি করতে পারে।

একসঙ্গে পরিষ্কার করা: রান্না করার মতো ধোয়া মোছার কাজও আনন্দঘন হয়ে উঠতে পারে যদি তা একসঙ্গে করা হয়। এতে কাজ অনেকটা সহজ হয়ে যায় এছাড়াও কাজের ফাঁকে ফাঁকে অদ্ভুত আলোচনা বা খোশগল্প করা যেতে পারে। গল্পের ফাঁকেফাঁকে হাতের কাজ করে নেওয়া ব্যপারটাও বেশ মজার।

গুরুত্ব দিয়ে কথা শুনুন: যখন দুজন কথা বলবেন বা কোনো বিষয়ে আলাপ করবেন, গুরুত্ব দিয়ে সঙ্গীর কথা শুনুন। হাতে ফোন বা অন্য কিছু থাকলে সরিয়ে রাখুন। সঙ্গীর জন্য আপনার মনোযোগ হতে পারে গুরুত্বপূর্ণ এক উপহার। সঙ্গী নিশ্চয় অনুভব করবে আপনার গুরুত্বের বিষয়টি। দুজন দুজনকে যখন গুরুত্ব দেন, সম্পর্কের মধ্যে কি ফাঁকফোকর থাকবে?

প্লিজ ও থ্যাংক ইউ: দুজন দুজনের নিশ্চয়ই নানা কাজে সাহায্য করেন। কখনো কি থ্যাংক ইউ বলে দেখেছেন সঙ্গীকে? অনেক সময় পাশাপাশি থেকেও গুরুত্ব দিয়ে কথা বলা হয়ে ওঠে না। কথার সঙ্গে ‘প্লিজ’ জুড়ে দিলে সঙ্গীর কাছে সে কথা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে। প্লিজের সঙ্গে যদি সঙ্গীকে একটা ‘থ্যাংক ইউ’ যোগ হয়, সম্পর্ক আরও মধুর হবে নিঃসন্দেহে।

বাড়িতে ‘ডেইট-নাইট’ পরিকল্পনা: একে অপরের জন্য সাজগোজ করুন। সুন্দর করে টেবিল সাজিয়ে, মোমবাতির আলোতে পছন্দের স্নিগ্ধ গান চালাতে পারেন। একে অপরকে বিশেষ অনুভব করানোর জন্য বিশেষ কোন কাজ বা অনুভূতি প্রকাশ করুন। এছাড়াও একে অপরের সঙ্গে অন্তরঙ্গ সময় কাটানো ভালোবাসার সম্পর্ক উন্নত করতে সহায়তা করে।