ঢাকা ০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo পরিবেশের জন্য ই-বর্জ্য হুমকি স্বরূপ ; তা উত্তরণের উপায় Logo বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ Logo ঐতিহ্যবাহী সোহরাওয়ার্দী কলেজ সাংবাদিক সমিতির কমিটি গঠন Logo চেয়ারম্যানের আহ্লাদে বেপরোয়া বিআইডব্লিউটিএ‘র কর্মচারি পান্না বিশ্বাস! Logo রাজউকে বদলী ও পদায়নে ভয়ংকর দুর্নীতি ফাঁস: নেপথ্য নায়ক প্রধান প্রকৌশলী  Logo কুবির শেখ হাসিনা হলের গ্যাস লিক, আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা Logo ইন্টার্ন চিকিৎসকের হাত-পা ভেঙে দিলেন সহকর্মীরা Logo ঐতিহ্যবাহী শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজে অফিসার্স কাউন্সিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত  Logo একজন মমতাময়ী মায়ের উদাহরণ শাবির প্রাধ্যক্ষ জোবেদা কনক Logo বাংলা বিভাগের নতুন চেয়ারম্যান ড. শামসুজ্জামান মিলকী




সওজ প্রকৌশলী শাহাজাদা ফিরোজের অস্বাভাবিক সম্পদ: অনুসন্ধানে দুদক

এইচ আর শফিক:
  • আপডেট সময় : ০৫:৫৬:৪২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৪ জানুয়ারী ২০২৩ ৪৫ বার পড়া হয়েছে

মানিকগঞ্জ সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী শাহজাদা ফিরোজ ও তার পরিবার অবৈধভাবে কোটি কোটি টাকার মালিক বনে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। মাহবুব আলম নামে জনৈক এক ব্যক্তি শাহজাদা ফিরোজ ও তার স্ত্রী শামীমা নাছরীন এর নামে বাদী হয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশনে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগে জানা যায়, বাসা নং- সি ব্লকের ২ নং রোডের (ফ্ল্যাট নং- এ/৬), শাহ আলীবাগ, থানা মিরপুর, ঢাকায়

বসবাস করে আসছে। শাহজাদা সড়ক ও জনপদ বিভাগের একই সঙ্গে দুইটি পদ দখল করে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে। সড়ক ও জনপদ বিভাগ মানিকগঞ্জের সরকারি অর্থ আত্মসাৎ করেছেন এমন অভিযোগে অভিযুক্ত প্রধান প্রকৌশলী মারুফের সকল অনৈতিক ও অবৈধ কর্মকান্ড পরিচালনা ও স্যাটেলম্যান হিসেবে পরিচিত তিনি। নির্বাহী প্রকৌশলীর একনিষ্ঠ সেবক হওয়ার কারণেই তাকে দুইটি দায়িত্বে ক্ষমতা দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। শাহজাদা ফিরোজের বিরুদ্ধে মানিকগঞ্জ সড়ক ও জনপদ বিভাগের ঠিকাদারী টেন্ডার নিয়ন্ত্রণের অভিযোগ রয়েছে। তিনি প্রতিটি ঠিকাদারদের কাছ থেকে নিয়মিত ৫% হারে এককভাবে অবৈধ অর্থ আদায় করে আসছে। দুদকের অভিযোগ সূত্রে আরো জানা যায় যে, শাহজাদা ফিরোজ শাহ আলীবাগ ২৩ বাসার সি ব্লকে (ফ্ল্যাট নং এ/৬), থানা মিরপুর, ঢাকা ফ্ল্যাটটি ক্রয় করেছেন প্রায় ১ কোটি টাকা দিয়ে। ঢাকার গুলশান -২ এর এফ ব্লক, বাড়ী নং- ৬৪/২। উক্ত বাড়ীটির ৩য় তলায় ২৬০০ বর্গফুটের তার একটি ফ্ল্যাট রয়েছে; ঢাকার উত্তরা হাউজ বিল্ডিং এলাকায় সেক্টর নং- ১০, বাসা নং ৬৭, রোড ১১। উক্ত বাড়ীটি তার নিজের এবং উক্ত বাড়ীটিতে ১৪টি ফ্ল্যাট রয়েছে; ঢাকা জেলার আশুলিয়া থানাধীন সাভার মৌজায় তার নিজ নামে ৫০ কাঠা জমি রয়েছে। সেখানে একটি কারখানা প্রতিষ্ঠিত করেছেন। আয়কর নথি মূলে বরিশাল মূল শহরে তার ১২০ শতাংশ জমি, তার স্ত্রী শামীমা নাছরীন এর নামে ঢাকার মোহাম্মদপুরের বাবর রোডে ১টি ৭ম তলা বাড়ী রয়েছে। বাড়ীটিতে ১৪টি ফ্ল্যাট রয়েছে; ঢাকার মোহাম্মদপুর বসিলা এলাকায় তার স্ত্রীর নামে কয়েক বিঘা জমি রয়েছে। তার ও তার পরিবারের প্রত্যের সদস্যের নামে বেনামে বিভিন্ন জায়গায় সম্পদের পাহাড় গড়েছে, এছাড়াও কয়েকটি ব্যাংকে অর্ধ কোটি টাকার এফডিআর রয়েছে। শাহজাদা ফিরোজের টিআইএন ৫৭২৯৬৯৫৪৫৯৭২। এলাকাবাসী বলেন তার স্ত্রী শামীমা নাছরিন একটি বিলাশ বহুল প্রাইভেট গাড়িতে চলাফেরা করে। তিনি মিরপুরের বাসায় বর্তমানে বসবাস করে। কিন্তু সরকারী নিয়ম অনুযায়ী প্রত্যেক কর্মকর্তা কর্মচারী তার কর্মস্থলে বসবাস করার নিয়ম থাকলেও তিনি নিয়ম ভঙ্গ করে ঢাকার মিরপুরে পরিবার নিয়ে বসবাস করছে। তিনি মানিকগঞ্জ সড়ক ও জনপদ বিভাগের একক ক্ষমতার প্রভাব বিস্তার করে একই সঙ্গে ২টি পদ দখল করে দায়িত্ব পালন আসছে, যা সরকারী বিধি লংঘন।

এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে শাহজাদা ফিরোজের সাথে তার মুঠোফোন নাম্বার যোগাযোগ করা হয় কিন্তু তিনি ফোন রিসিভ করেননি। (পর্ব ২) চলবে…

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




সওজ প্রকৌশলী শাহাজাদা ফিরোজের অস্বাভাবিক সম্পদ: অনুসন্ধানে দুদক

আপডেট সময় : ০৫:৫৬:৪২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৪ জানুয়ারী ২০২৩

মানিকগঞ্জ সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী শাহজাদা ফিরোজ ও তার পরিবার অবৈধভাবে কোটি কোটি টাকার মালিক বনে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। মাহবুব আলম নামে জনৈক এক ব্যক্তি শাহজাদা ফিরোজ ও তার স্ত্রী শামীমা নাছরীন এর নামে বাদী হয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশনে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগে জানা যায়, বাসা নং- সি ব্লকের ২ নং রোডের (ফ্ল্যাট নং- এ/৬), শাহ আলীবাগ, থানা মিরপুর, ঢাকায়

বসবাস করে আসছে। শাহজাদা সড়ক ও জনপদ বিভাগের একই সঙ্গে দুইটি পদ দখল করে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে। সড়ক ও জনপদ বিভাগ মানিকগঞ্জের সরকারি অর্থ আত্মসাৎ করেছেন এমন অভিযোগে অভিযুক্ত প্রধান প্রকৌশলী মারুফের সকল অনৈতিক ও অবৈধ কর্মকান্ড পরিচালনা ও স্যাটেলম্যান হিসেবে পরিচিত তিনি। নির্বাহী প্রকৌশলীর একনিষ্ঠ সেবক হওয়ার কারণেই তাকে দুইটি দায়িত্বে ক্ষমতা দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। শাহজাদা ফিরোজের বিরুদ্ধে মানিকগঞ্জ সড়ক ও জনপদ বিভাগের ঠিকাদারী টেন্ডার নিয়ন্ত্রণের অভিযোগ রয়েছে। তিনি প্রতিটি ঠিকাদারদের কাছ থেকে নিয়মিত ৫% হারে এককভাবে অবৈধ অর্থ আদায় করে আসছে। দুদকের অভিযোগ সূত্রে আরো জানা যায় যে, শাহজাদা ফিরোজ শাহ আলীবাগ ২৩ বাসার সি ব্লকে (ফ্ল্যাট নং এ/৬), থানা মিরপুর, ঢাকা ফ্ল্যাটটি ক্রয় করেছেন প্রায় ১ কোটি টাকা দিয়ে। ঢাকার গুলশান -২ এর এফ ব্লক, বাড়ী নং- ৬৪/২। উক্ত বাড়ীটির ৩য় তলায় ২৬০০ বর্গফুটের তার একটি ফ্ল্যাট রয়েছে; ঢাকার উত্তরা হাউজ বিল্ডিং এলাকায় সেক্টর নং- ১০, বাসা নং ৬৭, রোড ১১। উক্ত বাড়ীটি তার নিজের এবং উক্ত বাড়ীটিতে ১৪টি ফ্ল্যাট রয়েছে; ঢাকা জেলার আশুলিয়া থানাধীন সাভার মৌজায় তার নিজ নামে ৫০ কাঠা জমি রয়েছে। সেখানে একটি কারখানা প্রতিষ্ঠিত করেছেন। আয়কর নথি মূলে বরিশাল মূল শহরে তার ১২০ শতাংশ জমি, তার স্ত্রী শামীমা নাছরীন এর নামে ঢাকার মোহাম্মদপুরের বাবর রোডে ১টি ৭ম তলা বাড়ী রয়েছে। বাড়ীটিতে ১৪টি ফ্ল্যাট রয়েছে; ঢাকার মোহাম্মদপুর বসিলা এলাকায় তার স্ত্রীর নামে কয়েক বিঘা জমি রয়েছে। তার ও তার পরিবারের প্রত্যের সদস্যের নামে বেনামে বিভিন্ন জায়গায় সম্পদের পাহাড় গড়েছে, এছাড়াও কয়েকটি ব্যাংকে অর্ধ কোটি টাকার এফডিআর রয়েছে। শাহজাদা ফিরোজের টিআইএন ৫৭২৯৬৯৫৪৫৯৭২। এলাকাবাসী বলেন তার স্ত্রী শামীমা নাছরিন একটি বিলাশ বহুল প্রাইভেট গাড়িতে চলাফেরা করে। তিনি মিরপুরের বাসায় বর্তমানে বসবাস করে। কিন্তু সরকারী নিয়ম অনুযায়ী প্রত্যেক কর্মকর্তা কর্মচারী তার কর্মস্থলে বসবাস করার নিয়ম থাকলেও তিনি নিয়ম ভঙ্গ করে ঢাকার মিরপুরে পরিবার নিয়ে বসবাস করছে। তিনি মানিকগঞ্জ সড়ক ও জনপদ বিভাগের একক ক্ষমতার প্রভাব বিস্তার করে একই সঙ্গে ২টি পদ দখল করে দায়িত্ব পালন আসছে, যা সরকারী বিধি লংঘন।

এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে শাহজাদা ফিরোজের সাথে তার মুঠোফোন নাম্বার যোগাযোগ করা হয় কিন্তু তিনি ফোন রিসিভ করেননি। (পর্ব ২) চলবে…