ঢাকা ০৫:২৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo পরিবেশের জন্য ই-বর্জ্য হুমকি স্বরূপ ; তা উত্তরণের উপায় Logo বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ Logo ঐতিহ্যবাহী সোহরাওয়ার্দী কলেজ সাংবাদিক সমিতির কমিটি গঠন Logo চেয়ারম্যানের আহ্লাদে বেপরোয়া বিআইডব্লিউটিএ‘র কর্মচারি পান্না বিশ্বাস! Logo রাজউকে বদলী ও পদায়নে ভয়ংকর দুর্নীতি ফাঁস: নেপথ্য নায়ক প্রধান প্রকৌশলী  Logo কুবির শেখ হাসিনা হলের গ্যাস লিক, আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা Logo ইন্টার্ন চিকিৎসকের হাত-পা ভেঙে দিলেন সহকর্মীরা Logo ঐতিহ্যবাহী শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজে অফিসার্স কাউন্সিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত  Logo একজন মমতাময়ী মায়ের উদাহরণ শাবির প্রাধ্যক্ষ জোবেদা কনক Logo বাংলা বিভাগের নতুন চেয়ারম্যান ড. শামসুজ্জামান মিলকী




বিএনপির ২৫০ আসনের তালিকা চূড়ান্ত

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:২৬:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ নভেম্বর ২০১৮ ৩২ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক,

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২৫০ আসনে প্রার্থী দিচ্ছে বিএনপি। শিগগিরই এসব আসনের প্রার্থী ঘোষণা করা হবে। বাকি আসনগুলো ২০ দলীয় জোট ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জন্য রাখা হয়েছে। তবে কোথাও কোথাও বিকল্প প্রার্থীও রাখা হয়েছে। বিএনপি সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, আগামী দুই-এক দিনের মধ্যে প্রার্থী তালিকার খসড়া লন্ডনে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কাছে পাঠানো হবে। এরপরই চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করা হবে।

দলের এক শীর্ষ নেতা জানান, গত বছরের ১৬ জুলাই বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া চিকিৎসার জন্য লন্ডনে যান। সে সময় ৩০০ আসনের একটি সম্ভাব্য তালিকা তারেক রহমানকে দিয়েছিলেন তিনি। সেই তালিকার সঙ্গে বিএনপির পার্লামেন্টারি বোর্ডের তৈরি সংক্ষিপ্ত তালিকা সমন্বয় করে চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। এবারে মনোনয়নের ক্ষেত্রে কারও ব্যক্তিগত কোনো সুপারিশ খাটছে না।

জানা যায়, কোথাও কোথাও বিকল্প প্রার্থীও রাখছে বিএনপি। মামলা, ঋণখেলাপিসহ নানা কারণে প্রথম প্রার্থী নির্বাচন করতে না পারলে দ্বিতীয়জনকেই বেছে নেওয়া হবে। তবে শুধুমাত্র প্রথম প্রার্থীকেই দলীয় প্রতীক দেওয়া হবে। বিকল্প প্রার্থী প্রয়োজনে স্বতন্ত্র নির্বাচন করতে পারেন বলে জানা গেছে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এক নেতা জানান, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী সোম-মঙ্গলবারের মধ্যেই প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করা হতে পারে। এবার যে প্রক্রিয়ায় প্রার্থী বাছাই করা হচ্ছে, তা এককথায় অসাধারণ। কারও ব্যক্তিগত কোনো চাওয়া পাওয়া থাকছে না। জিয়া পরিবারের আত্মীয় বলেও কেউ পার পাচ্ছেন না।

তিনি বলেন, সম্প্রতি এক বৈঠকে দিনাজপুরে জিয়া পরিবারের এক আত্মীয়ের পক্ষে সুপারিশ করেন স্থায়ী কমিটির পাঁচ-ছয়জন সদস্য। তারেক রহমান স্কাইপিতে বলেন, তার চেয়েও কোনো যোগ্য প্রার্থী আছেন কি-না। এ সময় ওই ব্যক্তির নাম উল্লেখ করা হলে তারেক রহমান তাকেই সায় দেন। এ ছাড়া বগুড়া জেলার দায়িত্ব তারেক রহমানের হাতে ছেড়ে দেয় বিএনপির স্থায়ী কমিটি। তারেক রহমান বলেন, সারা দেশে আপনারা প্রার্থী নির্ধারণ করছেন, বগুড়াও আপনারাই করবেন। পরে বগুড়ার প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করে বিএনপির স্থায়ী কমিটি।

সেদিনের ওই বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন— দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান ও আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




বিএনপির ২৫০ আসনের তালিকা চূড়ান্ত

আপডেট সময় : ১১:২৬:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ নভেম্বর ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক,

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২৫০ আসনে প্রার্থী দিচ্ছে বিএনপি। শিগগিরই এসব আসনের প্রার্থী ঘোষণা করা হবে। বাকি আসনগুলো ২০ দলীয় জোট ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জন্য রাখা হয়েছে। তবে কোথাও কোথাও বিকল্প প্রার্থীও রাখা হয়েছে। বিএনপি সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, আগামী দুই-এক দিনের মধ্যে প্রার্থী তালিকার খসড়া লন্ডনে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কাছে পাঠানো হবে। এরপরই চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করা হবে।

দলের এক শীর্ষ নেতা জানান, গত বছরের ১৬ জুলাই বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া চিকিৎসার জন্য লন্ডনে যান। সে সময় ৩০০ আসনের একটি সম্ভাব্য তালিকা তারেক রহমানকে দিয়েছিলেন তিনি। সেই তালিকার সঙ্গে বিএনপির পার্লামেন্টারি বোর্ডের তৈরি সংক্ষিপ্ত তালিকা সমন্বয় করে চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। এবারে মনোনয়নের ক্ষেত্রে কারও ব্যক্তিগত কোনো সুপারিশ খাটছে না।

জানা যায়, কোথাও কোথাও বিকল্প প্রার্থীও রাখছে বিএনপি। মামলা, ঋণখেলাপিসহ নানা কারণে প্রথম প্রার্থী নির্বাচন করতে না পারলে দ্বিতীয়জনকেই বেছে নেওয়া হবে। তবে শুধুমাত্র প্রথম প্রার্থীকেই দলীয় প্রতীক দেওয়া হবে। বিকল্প প্রার্থী প্রয়োজনে স্বতন্ত্র নির্বাচন করতে পারেন বলে জানা গেছে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এক নেতা জানান, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী সোম-মঙ্গলবারের মধ্যেই প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করা হতে পারে। এবার যে প্রক্রিয়ায় প্রার্থী বাছাই করা হচ্ছে, তা এককথায় অসাধারণ। কারও ব্যক্তিগত কোনো চাওয়া পাওয়া থাকছে না। জিয়া পরিবারের আত্মীয় বলেও কেউ পার পাচ্ছেন না।

তিনি বলেন, সম্প্রতি এক বৈঠকে দিনাজপুরে জিয়া পরিবারের এক আত্মীয়ের পক্ষে সুপারিশ করেন স্থায়ী কমিটির পাঁচ-ছয়জন সদস্য। তারেক রহমান স্কাইপিতে বলেন, তার চেয়েও কোনো যোগ্য প্রার্থী আছেন কি-না। এ সময় ওই ব্যক্তির নাম উল্লেখ করা হলে তারেক রহমান তাকেই সায় দেন। এ ছাড়া বগুড়া জেলার দায়িত্ব তারেক রহমানের হাতে ছেড়ে দেয় বিএনপির স্থায়ী কমিটি। তারেক রহমান বলেন, সারা দেশে আপনারা প্রার্থী নির্ধারণ করছেন, বগুড়াও আপনারাই করবেন। পরে বগুড়ার প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করে বিএনপির স্থায়ী কমিটি।

সেদিনের ওই বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন— দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান ও আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী।