ঢাকা ০৫:০৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৫ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo মির্জাগঞ্জ এলজিইডি প্রকৌশলী আশিকুরের ঘুস-দুর্নীতি! Logo দ্রব্যমূল্যের ক্রমাগত ঊর্ধ্বগতি ; বিপাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা Logo পরিবেশের জন্য ই-বর্জ্য হুমকি স্বরূপ ; তা উত্তরণের উপায় Logo বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ Logo ঐতিহ্যবাহী সোহরাওয়ার্দী কলেজ সাংবাদিক সমিতির কমিটি গঠন Logo চেয়ারম্যানের আহ্লাদে বেপরোয়া বিআইডব্লিউটিএ‘র কর্মচারি পান্না বিশ্বাস! Logo রাজউকে বদলী ও পদায়নে ভয়ংকর দুর্নীতি ফাঁস: নেপথ্য নায়ক প্রধান প্রকৌশলী  Logo কুবির শেখ হাসিনা হলের গ্যাস লিক, আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা Logo ইন্টার্ন চিকিৎসকের হাত-পা ভেঙে দিলেন সহকর্মীরা Logo ঐতিহ্যবাহী শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজে অফিসার্স কাউন্সিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত 




বাকেরগঞ্জে ছোট খালগুলো পানি শুন্য ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী কৃষকরা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:৫৩:২৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২১ জানুয়ারী ২০১৯ ৪২ বার পড়া হয়েছে

গাজী মোঃ মোশাররফ; 
শীতের মৌসুম শুরু হলেই বাকেরগঞ্জ উপজেলার ছোট-বড় অধিকাংশ খালগুলো শুকিয়ে পানি শুন্য হয়ে যায়। ভবানীপুর থেকে মহেশপুর বাজার বিশখালী নদীর ভারানি খাল, ফলাঘর থেকে বিহারীপুর কাইলকা বাড়ির খাল ও শ্যামপুর খালসহ উপজেলার বিভিন্ন খালে শীতের মৌসুমে পানি শুন্যতা দেখা দেয়। এসব খালগুলো দিয়ে প্রতিদিনের চলাচলরত কৃষক ও ব্যাবসায়ীদের নৌকা ট্রলার সমুহ নিয়ে পরতে হয় বিপাকে। অপেক্ষা করতে হয় ভাটা জোয়ারের। ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে কৃষক, মুদি ও কাঁচামালসহ বিভিন্ন ব্যাবসায়ীরা। দুশ্চিন্তাগ্রস্ত কৃষকরা। পানির অভাবে জমিতে ইরি চাষ করতে পারছে না।

মুদি দোকানদার রফিকুল ইসলাম জানান, নৌপথে আমদানি-রপ্তানিতে খরচ কম ও মালামাল নষ্টও হয় না। খালগুলো জরুরী ভিত্তিতে খনন করা দরকার বলে মনে করেন ভুক্তভোগীরা। কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও হতদরিদ্র কৃষকরা।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




বাকেরগঞ্জে ছোট খালগুলো পানি শুন্য ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী কৃষকরা

আপডেট সময় : ০৪:৫৩:২৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২১ জানুয়ারী ২০১৯

গাজী মোঃ মোশাররফ; 
শীতের মৌসুম শুরু হলেই বাকেরগঞ্জ উপজেলার ছোট-বড় অধিকাংশ খালগুলো শুকিয়ে পানি শুন্য হয়ে যায়। ভবানীপুর থেকে মহেশপুর বাজার বিশখালী নদীর ভারানি খাল, ফলাঘর থেকে বিহারীপুর কাইলকা বাড়ির খাল ও শ্যামপুর খালসহ উপজেলার বিভিন্ন খালে শীতের মৌসুমে পানি শুন্যতা দেখা দেয়। এসব খালগুলো দিয়ে প্রতিদিনের চলাচলরত কৃষক ও ব্যাবসায়ীদের নৌকা ট্রলার সমুহ নিয়ে পরতে হয় বিপাকে। অপেক্ষা করতে হয় ভাটা জোয়ারের। ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে কৃষক, মুদি ও কাঁচামালসহ বিভিন্ন ব্যাবসায়ীরা। দুশ্চিন্তাগ্রস্ত কৃষকরা। পানির অভাবে জমিতে ইরি চাষ করতে পারছে না।

মুদি দোকানদার রফিকুল ইসলাম জানান, নৌপথে আমদানি-রপ্তানিতে খরচ কম ও মালামাল নষ্টও হয় না। খালগুলো জরুরী ভিত্তিতে খনন করা দরকার বলে মনে করেন ভুক্তভোগীরা। কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও হতদরিদ্র কৃষকরা।