ঢাকা ০১:৪৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৫ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo মির্জাগঞ্জ এলজিইডি প্রকৌশলী আশিকুরের ঘুস-দুর্নীতি! Logo দ্রব্যমূল্যের ক্রমাগত ঊর্ধ্বগতি ; বিপাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা Logo পরিবেশের জন্য ই-বর্জ্য হুমকি স্বরূপ ; তা উত্তরণের উপায় Logo বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ Logo ঐতিহ্যবাহী সোহরাওয়ার্দী কলেজ সাংবাদিক সমিতির কমিটি গঠন Logo চেয়ারম্যানের আহ্লাদে বেপরোয়া বিআইডব্লিউটিএ‘র কর্মচারি পান্না বিশ্বাস! Logo রাজউকে বদলী ও পদায়নে ভয়ংকর দুর্নীতি ফাঁস: নেপথ্য নায়ক প্রধান প্রকৌশলী  Logo কুবির শেখ হাসিনা হলের গ্যাস লিক, আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা Logo ইন্টার্ন চিকিৎসকের হাত-পা ভেঙে দিলেন সহকর্মীরা Logo ঐতিহ্যবাহী শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজে অফিসার্স কাউন্সিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত 




নতুন বছরের প্রথম দিনেই বই উৎসব, প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:৩২:২০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮ ৩৩ বার পড়া হয়েছে

 

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কারণে নির্ধারিত দিনে বই উৎসব পালনে অনিশ্চয়তা দেখা দিলেও শেষ পর্যন্ত এ দিনই উৎসব পালন করা হবে। আগামী ২৪ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বই উৎসবের উদ্বোধন করবেন। আর ১ জানুয়ারি বই উৎসব পালন করা হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব নাজমুল হক খান বলেন, ‘আগামী ২৪ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী বই উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। আর ১ জানুয়ারি শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ অথবা শিক্ষা সচিব মো. সোহরাব হোসাইন সারাদেশে একযোগে বই উৎসবের উদ্বোধন করবেন। শিক্ষামন্ত্রী যদি উৎসবের দিন অংশ নিতে না পারেন তাহলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব বই উৎসবের উদ্বোধন করবেন।’

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বছরের প্রথম দিনই সারাদেশে একযোগে বই উৎসব পালনের প্রস্তুতি নিয়ে প্রস্তাব দেওয়া হয় প্রধানমন্ত্রীকে। প্রস্তাবে ১ জানুয়ারি বই উৎসব এবং ২৬ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের উল্লেখ করে সারাংশ পাঠানো হয়। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী ২৪ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ও ১ জানুয়ারি সারাদেশে বই উৎসব পালনের সম্মতি দেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সূত্র জানায়, আগামী ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের পরের দিন ৩১ ডিসেম্বর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। এর একদিন পর ১ জানুয়ারি বই উৎসবের দিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে। ফলে সেদিন উৎসব পালনে কোনও সমস্যা নেই।

রেওয়াজ অনুযায়ী প্রতিবছর ৩০ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বই উৎসবের উদ্বোধন করেন। এরপর ১ জানুয়ারি দেশব্যাপী বই উৎসব পালন করা হয়। বছরের প্রথম দিন শিক্ষামন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে এই উৎসবের সূচনা করেন। আগামী ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সে কারণে এ বছর ৩০ ডিসেম্বরের বদলে আগামী ২৪ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বই উৎসব পালনের অনুমোদন দেন।

মাধ্যমিকও উচ্চশিক্ষা বিভাগের যুগ্মসচিব (মাধ্যমিক) সালমা জাহান বলেন, ‘২০১৯ শিক্ষাবর্ষের ৮০ শতাংশ বই ছাপা শেষ হয়েছে। কয়েকদিনের মধ্যেই বাকি বই ছাপা শেষ হবে। বিনামূল্যের এসব বই বিতরণে কোনও সমস্যা হবে না।’

মন্ত্রণালয় সূত্রে আরও জানা যায়, প্রাক-প্রাথমিকের জন্য ৬৮ লাখ ৫৬ হাজার ২০ কপি, প্রাথমিকের জন্য ৯ কোটি ৮৮ লাখ ৮২ হাজার ৮৯৯ কপি, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ভাষায় ২ লাখ ৭৬ হাজার ৭৮৪ কপি,ইবতেদায়ির জন্য ২ কোটি ২৫ লাখ ৩১ হাজার ২৮৩ কপি, দাখিল মাদ্রাসার জন্য ৩ কোটি ৭৯ লাখ ৫৮ হাজার ৫৩৪ কপি, মাধ্যমিক (বাংলা ভার্সন) ১৮ কোটি ৫৩ হাজার ১২২ কপি, ইংরেজি ভার্সনের ১২ লাখ ৪৭ হাজার ৮২৬ কপি, কারিগরির শিক্ষার্থীদের জন্য ১২ লাখ ৩৫ হাজার ৯৪৮ কপি, এসএসসি ভোকেশনালের জন্য ১ লাখ ৪৩ হাজার ৮৭৫ কপি, ব্রেইল বই ৫ হাজার ৮৫৭ কপি ও সম্পূরক কৃষির জন্য (ষষ্ঠ থেকে নবম) ১ লাখ ২৪ হাজার ২৬১ কপি বই ছাপা হচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




নতুন বছরের প্রথম দিনেই বই উৎসব, প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি

আপডেট সময় : ১০:৩২:২০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮

 

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কারণে নির্ধারিত দিনে বই উৎসব পালনে অনিশ্চয়তা দেখা দিলেও শেষ পর্যন্ত এ দিনই উৎসব পালন করা হবে। আগামী ২৪ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বই উৎসবের উদ্বোধন করবেন। আর ১ জানুয়ারি বই উৎসব পালন করা হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব নাজমুল হক খান বলেন, ‘আগামী ২৪ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী বই উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। আর ১ জানুয়ারি শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ অথবা শিক্ষা সচিব মো. সোহরাব হোসাইন সারাদেশে একযোগে বই উৎসবের উদ্বোধন করবেন। শিক্ষামন্ত্রী যদি উৎসবের দিন অংশ নিতে না পারেন তাহলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব বই উৎসবের উদ্বোধন করবেন।’

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বছরের প্রথম দিনই সারাদেশে একযোগে বই উৎসব পালনের প্রস্তুতি নিয়ে প্রস্তাব দেওয়া হয় প্রধানমন্ত্রীকে। প্রস্তাবে ১ জানুয়ারি বই উৎসব এবং ২৬ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের উল্লেখ করে সারাংশ পাঠানো হয়। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী ২৪ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ও ১ জানুয়ারি সারাদেশে বই উৎসব পালনের সম্মতি দেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সূত্র জানায়, আগামী ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের পরের দিন ৩১ ডিসেম্বর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। এর একদিন পর ১ জানুয়ারি বই উৎসবের দিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে। ফলে সেদিন উৎসব পালনে কোনও সমস্যা নেই।

রেওয়াজ অনুযায়ী প্রতিবছর ৩০ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বই উৎসবের উদ্বোধন করেন। এরপর ১ জানুয়ারি দেশব্যাপী বই উৎসব পালন করা হয়। বছরের প্রথম দিন শিক্ষামন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে এই উৎসবের সূচনা করেন। আগামী ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সে কারণে এ বছর ৩০ ডিসেম্বরের বদলে আগামী ২৪ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বই উৎসব পালনের অনুমোদন দেন।

মাধ্যমিকও উচ্চশিক্ষা বিভাগের যুগ্মসচিব (মাধ্যমিক) সালমা জাহান বলেন, ‘২০১৯ শিক্ষাবর্ষের ৮০ শতাংশ বই ছাপা শেষ হয়েছে। কয়েকদিনের মধ্যেই বাকি বই ছাপা শেষ হবে। বিনামূল্যের এসব বই বিতরণে কোনও সমস্যা হবে না।’

মন্ত্রণালয় সূত্রে আরও জানা যায়, প্রাক-প্রাথমিকের জন্য ৬৮ লাখ ৫৬ হাজার ২০ কপি, প্রাথমিকের জন্য ৯ কোটি ৮৮ লাখ ৮২ হাজার ৮৯৯ কপি, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ভাষায় ২ লাখ ৭৬ হাজার ৭৮৪ কপি,ইবতেদায়ির জন্য ২ কোটি ২৫ লাখ ৩১ হাজার ২৮৩ কপি, দাখিল মাদ্রাসার জন্য ৩ কোটি ৭৯ লাখ ৫৮ হাজার ৫৩৪ কপি, মাধ্যমিক (বাংলা ভার্সন) ১৮ কোটি ৫৩ হাজার ১২২ কপি, ইংরেজি ভার্সনের ১২ লাখ ৪৭ হাজার ৮২৬ কপি, কারিগরির শিক্ষার্থীদের জন্য ১২ লাখ ৩৫ হাজার ৯৪৮ কপি, এসএসসি ভোকেশনালের জন্য ১ লাখ ৪৩ হাজার ৮৭৫ কপি, ব্রেইল বই ৫ হাজার ৮৫৭ কপি ও সম্পূরক কৃষির জন্য (ষষ্ঠ থেকে নবম) ১ লাখ ২৪ হাজার ২৬১ কপি বই ছাপা হচ্ছে।