ঢাকা ০৫:০১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৫ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo মির্জাগঞ্জ এলজিইডি প্রকৌশলী আশিকুরের ঘুস-দুর্নীতি! Logo দ্রব্যমূল্যের ক্রমাগত ঊর্ধ্বগতি ; বিপাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা Logo পরিবেশের জন্য ই-বর্জ্য হুমকি স্বরূপ ; তা উত্তরণের উপায় Logo বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ Logo ঐতিহ্যবাহী সোহরাওয়ার্দী কলেজ সাংবাদিক সমিতির কমিটি গঠন Logo চেয়ারম্যানের আহ্লাদে বেপরোয়া বিআইডব্লিউটিএ‘র কর্মচারি পান্না বিশ্বাস! Logo রাজউকে বদলী ও পদায়নে ভয়ংকর দুর্নীতি ফাঁস: নেপথ্য নায়ক প্রধান প্রকৌশলী  Logo কুবির শেখ হাসিনা হলের গ্যাস লিক, আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা Logo ইন্টার্ন চিকিৎসকের হাত-পা ভেঙে দিলেন সহকর্মীরা Logo ঐতিহ্যবাহী শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজে অফিসার্স কাউন্সিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত 




খুলনা-৬ আসনে প্রচারণায় এগিয়ে আ.লীগ, কৌশলী প্রচারণায় বিএনপি -জামায়াত

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:০৯:০১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ ৩৭ বার পড়া হয়েছে

 

ওবায়দুল কবির,কয়রা (খুলনা) থেকেঃ আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে খুলনা ০৬ (কয়রা -পাইকগাছা ) আসনে বইছে নির্বাচনী হাওয়া। হাওয়ায় দুলছেন নৌকা ও ধানের শীষের প্রার্থী এবং সমর্থকরা।

তবে নির্বাচনী মাঠে প্রার্থীদের মধ্যে প্রচার প্রচারণায় ও গণসংযোগে এগিয়ে আওয়ামীলীগ। অন্যদিকে কৌশলী প্রচারণায় রয়েছেন বিএনপি -জামায়াত নেতারা। কয়রা -পাইকগাছার ১৭টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত এ আসনে এবার ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৬৬ হাজার ১৯২ জন।এ আসনে আ.লীগ এর প্রার্থী নতুন মুখ জেলা আ.লীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব আক্তারুজ্জামান বাবু।

 

 

অপর দিকে বিএনপি দলীয় প্রার্থী জেলা মহানগর জামায়াতে আমীর মাঃ আবুল কালাম আজাদ ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। নির্বাচনী মাঠে প্রচরণায় এগিয়ে আছেন আ.লীগের প্রার্থী আক্তারুজ্জামান বাবু। তার ব্যানার -পোস্টারে ছেয়ে গেছে পুরো নির্বাচনী এলাকা। অন্যদিকে মাইকে বিভিন্ন গানের সুর নকল করে চলছে দলের, প্রার্থীর গুণকীর্তন ও ভোট প্রার্থনা। সেই তুলনাই ধানের শীষের প্রচার -প্রচারণা সীমিত। প্রচার – প্রচারণা নেই বললেই চলে। এখনো পুরো নির্বাচনী এলাকায় চোখে পড়ছে তাদের সিমীত পোস্টার। আর মাইকিং তো শোনাই যাইনা। তবে এ বিষয়ে বিএনপি ও জামায়াত নেতাদের অভিযোগ, তাদের পোস্টার ছিড়ে ফেলাসহ প্রচারণায় বাধা দেয়া হচ্ছে।

জেলা বিএনপির সভাপতি শরিফুল আলম মনা বলেন, দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন তাই আমাদের কৌশলী প্রচার -প্রচারণা চালাতে হচ্ছে। বিভিন্ন জায়গায় ভয় ভিতি ও নির্বাচনী অফিস স্থাপনে বাঁধা প্রদান করা হচ্ছে। দেয়া হচ্ছে গায়েবী মামলা।আমাদের নেতা কর্মীকে থাকতে হচ্ছে দৌড়ের উপর। তার পরও আমরা আশা রাখি সুষ্ঠু ভোট হলে বিএনপি মনোনিত প্রার্থী ব্যাপক ভোটে জয়ী হবেন।

কয়রা উপজেলা আ.লীগ সভাপতি জি এম মহাজিন রেজা বলেন, ধানের শীষের প্রচার – প্রচারণায় কোনো বাধা দেয়া হচ্ছে না। তারা বুঝতে পারছে তাদের সাধারণ মানুষ আর চাইনা। তা ষড়যন্ত্র করার চেষ্টা করছে কিন্তু তাতে ও তারা ক্ষমতায় আসতে পারবে না জনগণ বোঝে আর ৩০ তারিখ সেটা তারা বুঝিয়ে দেবে। সে কারণে তারা প্রচারণায় নামতে ভয় পাচ্ছে।

কয়রা বাজার ব্যবসায়ী চিকিৎসক হেলাল উদ্দিন একজন সাধারণ ভোটার তিনি বলেন খুলনা ০৬ (কয়রা -পাইকগাছা ) আসনে ভোটাররা প্রচার -প্রচারণায় বাধাবিঘ্ন, হানাহানি চাই না। সব দলের প্রচার -প্রচারণা দেখে উৎসব মুখর পরিবেশে একজন যোগ্য প্রার্থী বেছে নিতে চাই।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




খুলনা-৬ আসনে প্রচারণায় এগিয়ে আ.লীগ, কৌশলী প্রচারণায় বিএনপি -জামায়াত

আপডেট সময় : ১২:০৯:০১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮

 

ওবায়দুল কবির,কয়রা (খুলনা) থেকেঃ আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে খুলনা ০৬ (কয়রা -পাইকগাছা ) আসনে বইছে নির্বাচনী হাওয়া। হাওয়ায় দুলছেন নৌকা ও ধানের শীষের প্রার্থী এবং সমর্থকরা।

তবে নির্বাচনী মাঠে প্রার্থীদের মধ্যে প্রচার প্রচারণায় ও গণসংযোগে এগিয়ে আওয়ামীলীগ। অন্যদিকে কৌশলী প্রচারণায় রয়েছেন বিএনপি -জামায়াত নেতারা। কয়রা -পাইকগাছার ১৭টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত এ আসনে এবার ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৬৬ হাজার ১৯২ জন।এ আসনে আ.লীগ এর প্রার্থী নতুন মুখ জেলা আ.লীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব আক্তারুজ্জামান বাবু।

 

 

অপর দিকে বিএনপি দলীয় প্রার্থী জেলা মহানগর জামায়াতে আমীর মাঃ আবুল কালাম আজাদ ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। নির্বাচনী মাঠে প্রচরণায় এগিয়ে আছেন আ.লীগের প্রার্থী আক্তারুজ্জামান বাবু। তার ব্যানার -পোস্টারে ছেয়ে গেছে পুরো নির্বাচনী এলাকা। অন্যদিকে মাইকে বিভিন্ন গানের সুর নকল করে চলছে দলের, প্রার্থীর গুণকীর্তন ও ভোট প্রার্থনা। সেই তুলনাই ধানের শীষের প্রচার -প্রচারণা সীমিত। প্রচার – প্রচারণা নেই বললেই চলে। এখনো পুরো নির্বাচনী এলাকায় চোখে পড়ছে তাদের সিমীত পোস্টার। আর মাইকিং তো শোনাই যাইনা। তবে এ বিষয়ে বিএনপি ও জামায়াত নেতাদের অভিযোগ, তাদের পোস্টার ছিড়ে ফেলাসহ প্রচারণায় বাধা দেয়া হচ্ছে।

জেলা বিএনপির সভাপতি শরিফুল আলম মনা বলেন, দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন তাই আমাদের কৌশলী প্রচার -প্রচারণা চালাতে হচ্ছে। বিভিন্ন জায়গায় ভয় ভিতি ও নির্বাচনী অফিস স্থাপনে বাঁধা প্রদান করা হচ্ছে। দেয়া হচ্ছে গায়েবী মামলা।আমাদের নেতা কর্মীকে থাকতে হচ্ছে দৌড়ের উপর। তার পরও আমরা আশা রাখি সুষ্ঠু ভোট হলে বিএনপি মনোনিত প্রার্থী ব্যাপক ভোটে জয়ী হবেন।

কয়রা উপজেলা আ.লীগ সভাপতি জি এম মহাজিন রেজা বলেন, ধানের শীষের প্রচার – প্রচারণায় কোনো বাধা দেয়া হচ্ছে না। তারা বুঝতে পারছে তাদের সাধারণ মানুষ আর চাইনা। তা ষড়যন্ত্র করার চেষ্টা করছে কিন্তু তাতে ও তারা ক্ষমতায় আসতে পারবে না জনগণ বোঝে আর ৩০ তারিখ সেটা তারা বুঝিয়ে দেবে। সে কারণে তারা প্রচারণায় নামতে ভয় পাচ্ছে।

কয়রা বাজার ব্যবসায়ী চিকিৎসক হেলাল উদ্দিন একজন সাধারণ ভোটার তিনি বলেন খুলনা ০৬ (কয়রা -পাইকগাছা ) আসনে ভোটাররা প্রচার -প্রচারণায় বাধাবিঘ্ন, হানাহানি চাই না। সব দলের প্রচার -প্রচারণা দেখে উৎসব মুখর পরিবেশে একজন যোগ্য প্রার্থী বেছে নিতে চাই।