ঢাকা ০২:২৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo ঐতিহ্যবাহী সোহরাওয়ার্দী কলেজ সাংবাদিক সমিতির কমিটি গঠন Logo চেয়ারম্যানের আহ্লাদে বেপরোয়া বিআইডব্লিউটিএ‘র কর্মচারি পান্না বিশ্বাস! Logo রাজউকে বদলী ও পদায়নে ভয়ংকর দুর্নীতি ফাঁস: নেপথ্য নায়ক প্রধান প্রকৌশলী  Logo কুবির শেখ হাসিনা হলের গ্যাস লিক, আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা Logo ইন্টার্ন চিকিৎসকের হাত-পা ভেঙে দিলেন সহকর্মীরা Logo ঐতিহ্যবাহী শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজে অফিসার্স কাউন্সিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত  Logo একজন মমতাময়ী মায়ের উদাহরণ শাবির প্রাধ্যক্ষ জোবেদা কনক Logo বাংলা বিভাগের নতুন চেয়ারম্যান ড. শামসুজ্জামান মিলকী Logo মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটি শিক্ষার্থীদের দক্ষ জনশক্তি ও উদ্যোক্তা তৈরীতে ভূমিকা রাখবেঃ ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ জহিরুল হক  Logo কুবিতে প্রক্টরের সামনে সহকারী প্রক্টরকে মারতে তেড়ে গেলেন ২ নেতা




ইসলাম বিরোধী শিক্ষা সিলেবাস বাতিলের আহ্বান ইসলামী আন্দোলনের

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ১২:৩২:৩৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ ১৮ বার পড়া হয়েছে

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব প্রিন্সিপাল হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ বলেছেন, সরকারের একের পর এক গণবিরোধী সিদ্ধান্ত সাধারণ মানুষের জীবনকে চরম দুবির্ষহ করে তুলেছে। এভাবে একের পর এক গণবিরোধী সিদ্ধান্ত জনগণের ওপর চাপিয়ে দিয়ে জনগণকে শোষণ করছে। জনগণের পকেট কাটতে ও একটি গোষ্ঠীকে সুবিধা দিতে অবৈধ সরকার গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি করেছে। সরকারের দুঃশাসন, দুর্নীতি ও অর্থ পাচারের কারণে দেশের অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে। ডলার সংকটের কারণে এলসি খোলা যাচ্ছে না, ব্যবসা-বাণিজ্যে চরম অস্থিরতা ও হতাশা বিরাজ করছে। জনজীবনে চলছে মারাত্মক সংকট। উন্নয়নের নামে দেশে চলছে সীমাহীন লুটপাট।

শনিবার (২১ জানুয়ারি) রাজধানীর সেগুনবাগিচাস্থ একটি মিলনায়তনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর ঢাকা মহানগর দক্ষিণের মজলিসে শুরা অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ইউনুছ আহমাদ বলেন, দেশে বাকস্বাধীনতা নেই, বিচার বিভাগে স্বাধীনতা নেই, নেই রাজনৈতিক অধিকার। প্রতিবাদ করলেই নামে নির্যাতনের খড়গ। চাল, চিনি, তেলসহ নিত্যপণ্যের ঊর্ধ্বগতি, গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানিসহ সব জিনিসের দাম এখন আকাশচুম্বী। সরকারের দুর্নীতি, অব্যবস্থাপনা ও দলীয় লোকদের সিন্ডিকেটের কারণে বিগত ১৪ বছর ধরেই সকল জিনিসের দাম বেড়েছে কয়েক গুণের বেশি। বর্তমানে সাধারণ মানুষের ত্রাহী অবস্থা, মানুষের বেঁচে থাকাই এখন দায়। এ অবস্থায় আবারও বিদ্যুতের পর গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি জনদুর্ভোগ আরও বাড়াবে, যা মড়ার ওপর খাঁড়ার ঘা। অবিলম্বে সরকারকে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির গণবিরোধী সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার আহ্বান জানাচ্ছি। একইসঙ্গে গ্যাস, বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি প্রত্যাহারের দাবি জানান ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের এই নেতা।

তিনি বলেন, বৃহত্তর জনতার চিন্তা চেতনার বিরুদ্ধে গিয়ে সিলেবাস থেকে ইসলামী তাহজীব তামাদ্দুনকে ধুলিস্যাৎ করে দিয়েছে। কতিপয় বেঈমান নাস্তিক-মুরতাদ মুসলমানদের ঈমান-আক্বিদা ধ্বংসের জন্য শিক্ষা সিলেবাসে ডারঊইনের মতবাদ চালু এবং ইসলামী শিক্ষাকে সঙ্কুচিত করেছে। ওই নাস্তিকরা বানর থেকে মানুষের সৃষ্টি বলে পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভূক্ত করে আল্লাহর সাথে বিদ্রোহ ঘোষণা করেছে। ইসলামী জীবন বিধানের ওপর আঘাত করার চেষ্টা করলে জনগণ রুখে দাড়াতে বাধ্য হবে। পবিত্র কোরআনের সাথে সাংঘষিক শিক্ষা সিলেবাসের মাধ্যমে সরকার একটি গোষ্ঠীকে খুশি করছে। দেশে নাস্তিক্যবাদ ও হিন্দুত্ববাদ প্রতিষ্ঠার চক্রান্ত রুখে দিতে হবে। এ দেশের কোমলমতি শিশুদের বানরের সন্তান বানানোর ষড়যন্ত্র এবং হিজাব সর্ম্পকে বিদ্বেষ ছড়ানোর পরিণাম শুভ হবে না।

সভাপতির বক্তব্যে মাওলানা ইমতিয়াজ আলম বলেন, সারাদেশকে নিরবিচ্ছন্ন বিদ্যুৎ দিতে ব্যর্থ বিদ্যুৎ বিভাগ কুইক রেন্টালের নামে হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট করেছে। বিদ্যুৎ বিভাগে চরম দুর্নীতি চলছে। সরকার লুটপাট আর দুর্নীতি বন্ধ না করে আবারো বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির প্রস্তাব করেছে যা জনস্বার্থ বিরোধী। এর মধ্যে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত মানবতাবিরোধী সিদ্ধান্ত। এই মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল করতে হবে। তিনি সিলেবাসে নাস্তিক্যবাদী ডারউইনের মতবাদ বাতিল করে ইসলামী চিন্তা চেতনা অনুযায়ী করার আহ্বান জানান। অন্যথায় ঈমানদার জনতার রুদ্ররোষে সরকারের করুণ পরিণতি হতে বাধ্য।

সংগঠনের সহকারি মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা মুহাম্মদ ইমতিয়াজ আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত শুরা অধিবেশনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন দলের কেন্দ্রীয় প্রচার ও দাওয়াহ বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম, মাওলানা এবিএম জাকারিয়া, ময়মনসিংহ বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম রুহুল আমীন, ফরিদাবাদ মাদরাসার মুহাদ্দিস মুফতী ইমাদুদ্দীন। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আলতাফ হোসেন ও আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন, সেক্রেটারী আব্দুল আউয়াল মজুমদার, জয়েন্ট সেক্রেটারী ডা. শহিদুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক কেএম শরীয়াতুল্লাহ, মুফতী আব্দুল আহাদ, মাওলানা নজরুল ইসলাম, আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম খোকন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




ইসলাম বিরোধী শিক্ষা সিলেবাস বাতিলের আহ্বান ইসলামী আন্দোলনের

আপডেট সময় : ১২:৩২:৩৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২৩

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব প্রিন্সিপাল হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ বলেছেন, সরকারের একের পর এক গণবিরোধী সিদ্ধান্ত সাধারণ মানুষের জীবনকে চরম দুবির্ষহ করে তুলেছে। এভাবে একের পর এক গণবিরোধী সিদ্ধান্ত জনগণের ওপর চাপিয়ে দিয়ে জনগণকে শোষণ করছে। জনগণের পকেট কাটতে ও একটি গোষ্ঠীকে সুবিধা দিতে অবৈধ সরকার গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি করেছে। সরকারের দুঃশাসন, দুর্নীতি ও অর্থ পাচারের কারণে দেশের অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে। ডলার সংকটের কারণে এলসি খোলা যাচ্ছে না, ব্যবসা-বাণিজ্যে চরম অস্থিরতা ও হতাশা বিরাজ করছে। জনজীবনে চলছে মারাত্মক সংকট। উন্নয়নের নামে দেশে চলছে সীমাহীন লুটপাট।

শনিবার (২১ জানুয়ারি) রাজধানীর সেগুনবাগিচাস্থ একটি মিলনায়তনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর ঢাকা মহানগর দক্ষিণের মজলিসে শুরা অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ইউনুছ আহমাদ বলেন, দেশে বাকস্বাধীনতা নেই, বিচার বিভাগে স্বাধীনতা নেই, নেই রাজনৈতিক অধিকার। প্রতিবাদ করলেই নামে নির্যাতনের খড়গ। চাল, চিনি, তেলসহ নিত্যপণ্যের ঊর্ধ্বগতি, গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানিসহ সব জিনিসের দাম এখন আকাশচুম্বী। সরকারের দুর্নীতি, অব্যবস্থাপনা ও দলীয় লোকদের সিন্ডিকেটের কারণে বিগত ১৪ বছর ধরেই সকল জিনিসের দাম বেড়েছে কয়েক গুণের বেশি। বর্তমানে সাধারণ মানুষের ত্রাহী অবস্থা, মানুষের বেঁচে থাকাই এখন দায়। এ অবস্থায় আবারও বিদ্যুতের পর গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি জনদুর্ভোগ আরও বাড়াবে, যা মড়ার ওপর খাঁড়ার ঘা। অবিলম্বে সরকারকে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির গণবিরোধী সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার আহ্বান জানাচ্ছি। একইসঙ্গে গ্যাস, বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি প্রত্যাহারের দাবি জানান ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের এই নেতা।

তিনি বলেন, বৃহত্তর জনতার চিন্তা চেতনার বিরুদ্ধে গিয়ে সিলেবাস থেকে ইসলামী তাহজীব তামাদ্দুনকে ধুলিস্যাৎ করে দিয়েছে। কতিপয় বেঈমান নাস্তিক-মুরতাদ মুসলমানদের ঈমান-আক্বিদা ধ্বংসের জন্য শিক্ষা সিলেবাসে ডারঊইনের মতবাদ চালু এবং ইসলামী শিক্ষাকে সঙ্কুচিত করেছে। ওই নাস্তিকরা বানর থেকে মানুষের সৃষ্টি বলে পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভূক্ত করে আল্লাহর সাথে বিদ্রোহ ঘোষণা করেছে। ইসলামী জীবন বিধানের ওপর আঘাত করার চেষ্টা করলে জনগণ রুখে দাড়াতে বাধ্য হবে। পবিত্র কোরআনের সাথে সাংঘষিক শিক্ষা সিলেবাসের মাধ্যমে সরকার একটি গোষ্ঠীকে খুশি করছে। দেশে নাস্তিক্যবাদ ও হিন্দুত্ববাদ প্রতিষ্ঠার চক্রান্ত রুখে দিতে হবে। এ দেশের কোমলমতি শিশুদের বানরের সন্তান বানানোর ষড়যন্ত্র এবং হিজাব সর্ম্পকে বিদ্বেষ ছড়ানোর পরিণাম শুভ হবে না।

সভাপতির বক্তব্যে মাওলানা ইমতিয়াজ আলম বলেন, সারাদেশকে নিরবিচ্ছন্ন বিদ্যুৎ দিতে ব্যর্থ বিদ্যুৎ বিভাগ কুইক রেন্টালের নামে হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট করেছে। বিদ্যুৎ বিভাগে চরম দুর্নীতি চলছে। সরকার লুটপাট আর দুর্নীতি বন্ধ না করে আবারো বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির প্রস্তাব করেছে যা জনস্বার্থ বিরোধী। এর মধ্যে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত মানবতাবিরোধী সিদ্ধান্ত। এই মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল করতে হবে। তিনি সিলেবাসে নাস্তিক্যবাদী ডারউইনের মতবাদ বাতিল করে ইসলামী চিন্তা চেতনা অনুযায়ী করার আহ্বান জানান। অন্যথায় ঈমানদার জনতার রুদ্ররোষে সরকারের করুণ পরিণতি হতে বাধ্য।

সংগঠনের সহকারি মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা মুহাম্মদ ইমতিয়াজ আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত শুরা অধিবেশনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন দলের কেন্দ্রীয় প্রচার ও দাওয়াহ বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম, মাওলানা এবিএম জাকারিয়া, ময়মনসিংহ বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম রুহুল আমীন, ফরিদাবাদ মাদরাসার মুহাদ্দিস মুফতী ইমাদুদ্দীন। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আলতাফ হোসেন ও আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন, সেক্রেটারী আব্দুল আউয়াল মজুমদার, জয়েন্ট সেক্রেটারী ডা. শহিদুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক কেএম শরীয়াতুল্লাহ, মুফতী আব্দুল আহাদ, মাওলানা নজরুল ইসলাম, আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম খোকন।