• ২৩শে এপ্রিল ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১০ই বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

খালেদার জন্য কেরানীগঞ্জে প্রস্তুত চার কক্ষের একতলা ভবন

সকালের সংবাদ ডেস্ক;
প্রকাশিত মে ১৫, ২০১৯, ১৭:৪১ অপরাহ্ণ
খালেদার জন্য কেরানীগঞ্জে প্রস্তুত চার কক্ষের একতলা ভবন

নিজস্ব প্রতিবেদক;

*মনোরম পরিবেশে থাকবে প্রথম শ্রেণির বন্দির সব সুবিধা
*অস্থায়ী আদালতের কার্যক্রমও শুরু

দন্ডপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে রাখার জন্য কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের অভ্যন্তরে চার কক্ষ বিশিষ্ট একতলা একটি ভবন প্রস্তুত করা হয়েছে। প্রথম শ্রেণির বন্দি হিসেবে একতলা এই ভবনে বিশেষ কারাগারে রাখা হবে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীকে।
সংশ্লিষ্ট নির্ভরযোগ্য সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। তবে খালেদা জিয়াকে ঠিক কবে বা কখন কেরানীগঞ্জের বিশেষ কারাগারে নেওয়া হবে তা নির্ভর করছে তার চিকিৎসকদের মতামতের ওপর। মঙ্গলবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালও এমনটিই জানিয়েছেন।
অন্যদিকে কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের মহিলা সেলের দক্ষিণ পাশে একতলা একটি আধুনিক ভবনে খালেদা জিয়ার অন্যান্য মামলার বিচারকার্য পরিচালনার জন্য অস্থায়ী আদালতের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এই অস্থায়ী আদালতে অত্যাধুনিক ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।
ছয়টি শীততাপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্র (এসি), কথা বলার জন্য তিনটি মাইক্রোফোন এবং বাদী, বিবাদী, উকিল ও সাংবাদিকদের বসা বা অবস্থানের জন্য স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে।
মঙ্গলবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে একজন বিচারক এই অস্থায়ী আদালতে বসেছিলেন। তবে খালেদাকে হাজির না করায় পিছিয়েছে গ্যাটকো দুর্নীতি মামলার শুনানি। খালেদা জিয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকায় গ্যাটকো দুর্নীতির মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানি আবার পিছিয়ে ১৮ জুন নতুন তারিখ রেখেছেন আদালত। অস্থায়ী এজলাসে বসে মঙ্গলবার ঢাকার তিন নম্বর বিশেষ জজ সৈয়দ দিলজার হোসেন এই নতুন দিন ঠিক করে দেন। এ সময় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ও খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা উপস্থিত ছিলেন। ওই এলাকায় মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত পুলিশ।
নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা যায়, এই অস্থায়ী আদালতের পেছনেই মহিলা কারাগারের মূল ভবন থেকে চার থেকে পাঁচটি ভবনের পেছনে সবুজে ঘেরা চারকক্ষ বিশিষ্ট একতলা ভবনকে বিশেষ কারাগার হিসেবে রূপান্তর করা হয়েছে। চার কক্ষের মাঝখানে বড় ড্রয়িং রুম আছে। দুটি কক্ষের সঙ্গে রয়েছে বারান্দা। রয়েছে একাধিক বাথরুম। একতলা এই ভবনের চারদিকে সবুজ গাছপালায় সাজানো-গোছানো এলাকাটি দেখতেও বেশ মনোরম বলে জানা গেছে।
সংশ্লিষ্টদের তথ্যমতে, সাধারণত তিন শ্রেণির ডিভিশন দেওয়া হয়ে থাকে। ডিভিশন-১, ডিভিশন-২ ও ডিভিশন-৩। কারাবিধি অনুসারে প্রথম শ্রেণির ডিভিশন প্রাপ্ত প্রত্যেক বন্দির জন্য আলাদা রুম থাকে। খাট, টেবিল, চেয়ার, তোষক, বালিশ, তেল, চিরুনি ও আয়নাসহ ব্যবহারিক প্রয়োজনীয় প্রায় সব কিছুই থাকবে। তা ছাড়া তিনি বইপত্র পাবেন এবং তিনটি দৈনিক পত্রিকা পাবেন। সাধারণ বন্দিদের চেয়ে ডিভিশন প্রাপ্ত বন্দির খাওয়ার মানও ভালো থাকে। প্রথম শ্রেণির ডিভিশনপ্রাপ্ত বন্দির কাজকর্ম করে দেওয়ার জন্য সাহায্যকারী হিসেবে আরেকজন বন্দিও দেওয়া হয়। ছেলে বন্দির ক্ষেত্রে সাহায্যকারী হিসেবে ছেলে আর মেয়ে বন্দির জন্য একজন মেয়ে বন্দি দেওয়া হয়।
তবে দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে, চার কক্ষের এই ভবনে খালেদা জিয়া একমাত্র বন্দি হিসেবেই থাকবেন। এমনকি তার সাহায্যকারী হিসেবে তার ব্যক্তিগত পরিচর্যাকারী ফাতেমাও সঙ্গে থাকবেন বলে জানা গেছে।
মঙ্গলবা রাজধানীর উপকণ্ঠ কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে গিয়ে দেখা যায়, খালেদা জিয়াকে স্থানান্তর প্রক্রিয়া এবং অস্থায়ী আদালতের কার্যক্রম শুরুর কারণে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। কারারক্ষীদের পাশাপাশি পুলিশ ও র‌্যাবসহ বিভিন্ন সংস্থার গোয়েন্দারাও উপস্থিত ছিলেন। এ সময় সেখানে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার ইকবাল হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি খালেদা জিয়া সংক্রান্ত বিষয়ে কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন।
কবে খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জে নেওয়া হবে সেই প্রশ্নের জবাব কারা কর্তৃপক্ষের কাছে না মিললেও মঙ্গলবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের বলেছেন, কারাবন্দি বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে ভালো এবং তিনি রোজা রাখছেন। বিএসএমএমইউ হাসপাতাল থেকে তাকে ছেড়ে দিলে কেরানীগঞ্জ কারাগারে নেওয়া হবে।
কারাবন্দি খালেদা জিয়ার মামলাগুলোর বিচারে কেরানীগঞ্জের কারাগারে আদালত বসানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এরই অংশ হিসেবে কেরানীগঞ্জে বিশেষ কারাগারে তাকে স্থানান্তরের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। তবে দুর্নীতির দুই মামলায় দাবিতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারা হেফাজতে বর্তমানে (গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত) চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে রয়েছেন। এর আগে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন সড়কের পুরনো কারাগারে এক বছরের বেশি সময় বন্দি থাকার পর ১ এপ্রিল চিকিৎসার জন্য তাকে বিএসএমএমইউ হাসপাতালে নেওয়া হয়। পুরান ঢাকার ঐতিহাসিক কারাগারটি পরিত্যক্তসহ নিরাপত্তাজনিত কারণ দেখিয়ে খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জে স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। নাইকো দুর্নীতি মামলা ছাড়াও রাজধানীর দারুস সালাম থানার নাশকতার ৮ মামলা, যাত্রাবাড়ী এলাকায় বাসে অগ্নিকাণ্ডের মামলা এবং মানহানির অভিযোগে করা ৩টি মামলার বিচারে ঢাকার জজ আদালতের একটি এজলাস বসবে কেরানীগঞ্জের কারাগারের সীমানায় স্থাপিত একতলা একটি ভবনে।

 

খালেদা জিয়া ভালো আছেন রোজা রাখছেন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ভালো আছেন এবং তিনি রমজানে রোজা রাখছেন বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জমান খাঁন কামাল। মঙ্গলবার সচিবালয়ে মন্ত্রীর নিজ দফতরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তর করা হবে। পুরনো জেলখানায় যেখানে খালেদা জিয়াকে রাখা হয়েছে, সেই ভবনটি সংস্কার করা হবে। কেরানীগঞ্জ কারাগারে মহিলা বন্দিদের রাখার জন্য যে ওয়ার্ড সেটি প্রস্তুত ছিল না। সে কারণেই তাকে এতদিন পুরনো জেলখানায় রাখা হয়েছে। কেরানীগঞ্জের মহিলা কারাগার এখন প্রস্তুত। কাজেই তাকে এখন সেখানে রাখা যাবে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনার সব রকমের চেষ্টাই সরকার করছে। সময়মতো একটি সুসংবাদ পেলেও পেতে পারেন।
দক্ষিণখানে মা-ছেলে-মেয়ের লাশ উদ্ধারের ঘটনা সম্পর্কে তিনি বলেন, এ হত্যার রহস্য উদ্ঘাটনের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তবে এখনও এ হত্যার কোনো ক্লু খুঁজে পাওয়া যায়নি। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তদন্ত শেষে এই হত্যাকার রহস্য জানা যাবে।

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৪:১৭
  • ১২:০১
  • ৪:৩০
  • ৬:২৬
  • ৭:৪৩
  • ৫:৩৩