• ১৫ই এপ্রিল ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ২রা বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

দেশে ফিরেই পাইলট বললেন, ‘আমরা প্রাণে বেঁচে গেছি’

সকালের সংবাদ ডেস্ক;
প্রকাশিত মে ১১, ২০১৯, ১১:৩৫ পূর্বাহ্ণ
দেশে ফিরেই পাইলট বললেন, ‘আমরা প্রাণে বেঁচে গেছি’

নিজস্ব প্রতিবেদক |
ঢাকায় পৌঁছেছেন মিয়ানমারের ইয়াঙ্গুন বিমানবন্দরে দুর্ঘটনায় আহত ক্যাপ্টেন শামীমসহ আহত ১০ যাত্রী। দেশে ফিরে পাইলট শামীম নজরুল বিমান বন্দরে উপস্থিত সাংবাদিকদের দুর্ঘটনার বিষয়ে বলেন, ‘ উড়োজাহাজটি নিরাপদেই অবতরণ করেছিল। তবে হঠাৎ ঝড়ের কবলে পড়ে বিমানটি রানওয়ে থেকে ছিটকে যায়। তাৎক্ষণিক ইঞ্জিন বন্ধ করে দেওয়ায় বড় দুর্ঘটনা থেকে যাত্রীরা রক্ষা পান।’

এজন্য তিনি সৃষ্টিকর্তার প্রতি শুকরিয়া জানান এবং বলেন, ‘দেশবাসীর দোয়ায় আমরা প্রাণে বেঁচে গেছি’। শুক্রবার রাত পৌনে ১১টার দিকে বিমান বাংলাদেশের একটি বিশেষ ফ্লাইট তাদের নিয়ে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায়।

এর আগে ইয়াঙ্গুন বিমানবন্দরে বৈরী আবহাওয়ায় ছিটকে পড়া বিমানের আহত যাত্রীদের দেশে ফিরিয়ে আনতে বিমানের বিশেষ ফ্লাইটটি বিকেল ৪টার দিকে মিয়ানমারের উদ্দেশে রওনা হয়।

বিকেল ৫টার কিছু সময় পরে বিমানটি ইয়াঙ্গুন বিমানবন্দরে অবতরণ করে। বিমানের জনসংযোগ কর্মকর্তা শাকিল মেরাজ এসব জানান।

তিনি বলেন, পাইলট শামীম নজরুলকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচে) ভর্তি করা হয়েছে। অপর আহতদের এ্যাপলো হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সেখানে স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে তাদের ছাড়পত্র দেওয়া হবে।

আহত যাত্রী ও বিমানকর্মীদের নিয়ে শাহজালাল বিমানবন্দরে বিশেষ বিমানটির অবতরণের পর তাদের দেখতে যান বিমান প্রতিমন্ত্রী মাহাবুব আলী, সচিব মহিবুল হক।

বুধবার ইয়াঙ্গুন বিমানবন্দরে অবতরণের সময় বৈরী আবহাওয়ার কারণে রানওয়ে থেকে পড়ে বিমানের একটি ফ্লাইট।
বিমানটিতে শিশুসহ ২৯ যাত্রী, দু’জন পাইলট, দু’জন কেবিন ক্রু ও দু’জন গ্রাউন্ড ইঞ্জিনিয়ার ছিলেন। এ ঘটনায় আহত ১৯ যাত্রীকে ইয়াঙ্গুনের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।