থানায় আটকে ১০ দিন ধরে গণধর্ষণ, অভিযুক্ত ৫ পুলিশ

সকালের সংবাদ ডেস্ক;সকালের সংবাদ ডেস্ক;
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৯:৩৪ পূর্বাহ্ণ, ২০ অক্টোবর ২০২০

অনলাইন ডেস্ক;

ফের যোগীরাজ্য!‌ উত্তরপ্রদেশের বিধায়ক বিজয় মিশ্রর নামে ধর্ষণের অভিযোগ। মামলা দায়ের করলেন ধর্ষিতা। এফআইআরে নাম রয়েছে আরও দুইজনের। তার মধ্যে একজন ওই বিধায়কের ছেলে।

২০১৪ সালে সঙ্গীত শিল্পী ওই নারীকে গান গাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে বাড়িতে ডেকেছিল বিধায়ক বিজয় মিশ্র। উত্তরপ্রদেশে বিজেপির শরিক দল নিশাদ পার্টির (‌নির্বল ভারতীয় শোষিত হমরা আম দল)‌ বিধায়ক সে।

কাউকে জানালে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকিও দিয়েছিল অভিযুক্ত। বিধায়ক বিজয় মিশ্র আপাতত একটি অন্য মামলায় ফেঁসে জেলেই রয়েছে। সে কথা জানতে পেরে সাহস করে গোপীগঞ্জ থানায় রোববার মামলা দায়ের করেন নারী।

ভদোহির পুলিশ সুপার রামবদন সিং জানিয়েছেন, ২০১৫ সালে ফের বারাণসীর হোটেলে নারীকে ধর্ষণ করে অভিযুক্ত। বিধায়কের ছেলে এবং ভাইপোও নারীকে ধর্ষণ করে সেবার।

বিধায়ক নির্যাতিতাকে ভিডিও কল করে এবং চ্যাটিং অ্যাপে আপত্তিকর ছবিও পাঠাত। এ সব ঘটনার প্রমাণ আমরা পেয়েছি।’‌ হাথরাস কাণ্ডের পর উত্তরপ্রদেশের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে বিস্তর লেখালেখি হয়েছে।

আলোচনা হয়েছে কিন্তু আরেক বিজেপি শাসিত রাজ্য মধ্যপ্রদেশের ছবিটাও বিশেষ আলাদা কিছু নয়। নারী নির্যাতন, ধর্ষণের ঘটনা সেখানেও নিত্যনৈমিত্তিক। সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে এমনই এক ঘটনা যা চূড়ান্ত বর্বরতার চূড়ান্ত নিদর্শন।

এক নারীকে টানা ১০ দিন থানায় আটকে রেখে গণধর্ষণের অভিযোগ। তাও আবার পুলিশকর্মীদের বিরুদ্ধে। শিবরাজ সিং চৌহানের রাজ্যের এই ঘটনা রীতিমতো আলোড়ন ফেলে দিয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :