গণপূর্তে বদলি বানিজ্যের অভিযোগ; আতংকে প্রকৌশলীরা!

সকালের সংবাদ ডেস্ক;সকালের সংবাদ ডেস্ক;
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১১:৪৮ অপরাহ্ণ, ১৪ অক্টোবর ২০২০

বিশেষ প্রতিবেদক; গণপূর্ত জানো দুর্নীতির পাগলা ঘোড়া, বদলি বাণিজ্য, প্রতিষ্ঠান প্রধানের মাথায় পাহাড় সমান দুর্নীতির অভিযোগ তবুও যেন অদৃশ্য শক্তিতে শক্তিশালী গণপূর্ত অধিদপ্তর। বেশ কয়েকজন প্রকৌশলীকে নিয়ম বহির্ভূতভাবে একাধিকবার বদলির অভিযোগ উঠেছে। এর মধ্যে দুজন প্রকৌশলীকে ১০ মাসের মধ্যে ছয়বার বদলি করা হয়েছে। কোনো কারন ছাড়াই এরকম বদলির ফলে গণপূর্ত ভবনের প্রকৌশলীরা আতঙ্কে রয়েছেন। এরকম বদলির আদেশের যাবতীয় কাগজপত্র আমাদের হাতে রয়েছে।
গত ৫ জানুয়ারি গণপূর্ত বিভাগের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী গোলাম বাকী ইবনে হাফিজকে ঢাকা গণপূর্ত উপ বিভাগ-৫ থেকে খুলনা গণপূর্ত উপ বিভাগ-৩ এ বদলি করা হয়। এর মাত্র ৭ দিনের মাথায় ১২ জানুয়ারি খুলনা থেকে ঢাকা-৪ বদলি করে সংযুক্ত করা হয়। এরপর ২ মার্চে আরেক আদেশে ঢাকা-৪ এ রিজার্ভ হিসেবে রাখা হয়। গত ৩১ আগস্ট এক আদেশে ঢাকা গণপূর্ত বিভাগ-০৪ রিজার্ভ থেকে নোয়াখালী গণপূর্ত উপ বিভাগ-১ এ বদলি করা হয়। গত ৫ অক্টোবর নোয়াখালী থেকে ঢাকা গণপূর্ত বিভাগ-০৪ এ সংযুক্ত করা হয় এবং একই দিন বান্দরবানের লামা গণপূর্ত উপ-বিভাগে বদলি করা হয়।
এর আগে ২০১৯ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর ঢাকা গণপূর্ত বিভাগ-০৪ থেকে গোলাম বাকী ইবনে হাফিজ পদোন্নতি পেয়ে উপবিভাগীয় প্রকৌশলী হিসেবে ঢাকা গণপূর্ত উপবিভাগ-৫ এ পোস্টিং পায়।
গোলাম বাকী ইবনে হাফিজের মতো আল আমিন নামে এক নির্বাহী প্রকৌশলীকেও একইভাবে গত ১০ মাসে ৫/৬ বার বদলি করা হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া ওয়াহিদ বিন ফরহাদ, সালেহ উদ্দিন আহমেদ, মোঃ হেলাল উদ্দিন, কামরুল হাসান, কাজী শরীফ উদ্দিন আহমেদ, আল আমিন, মোঃ নুরুল হাসান, আবু সায়েম খান সহ ১০/১৫ জন প্রকৌশলীকে গত ১০ মাসে একাধিকবার বদলির অভিযোগ উঠেছে।
বদলি হওয়া প্রকৌশলীদের মধ্যে উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী গোলাম বাকী ইবনে হাফিজকে ফোন করা হলে তিনি এ বিষয়ে কথা বলতে রাজি হননি। আর নির্বাহী প্রকৌশলী আল আমিনের ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন প্রকৌশলী জানায় গণপূর্তের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ আশরাফুল আলম বদলী বানিজ্যের অংশ হিসেবে তাদের এরকম বদলি করেছেন।
তারা জানান, তার সাথে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (সংস্থাপন) নন্দিতা রাণী সাহা এবং উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী কল্যাণ কুমার কুণ্ডু মিলে মোটা অংকের টাকা নিয়ে বদলিকৃত প্রকৌশলীদের অধিদফতর থেকে বিভিন্ন কার্যালয়ে বদলি করে অন্য প্রকৌশলীদের এখানে বসিয়েছেন।
১০ মাসে ৬ বার বদলির বিষয়ে জানতে গণপূর্ত বিভাগের সংস্থাপন শাখার তত্তাবধায়ক প্রকৌশলী নন্দিতা রাণী সাহার সাথে বার বার চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা যায়নি।
জানা যায়, গণপূর্ত বিভাগের সংস্থাপন শাখার তত্তাবধায়ক প্রকৌশলী নন্দিতা রাণী সাহা প্রায় বিশ বছর ধরে বদলি হয়নি।
১০ মাসে ৬ বার বদলির বিষয়ে জানতে প্রধান প্রকৌশলী মোঃ আশরাফুল আলমকে ফোন করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

আপনার মতামত লিখুন :