সিডিবিএল চার্জ সম্পূর্ণ মওকুফ চায় বিনিয়োগকারীরা

সকালের সংবাদ ডেস্ক;সকালের সংবাদ ডেস্ক;
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০১:৪৭ অপরাহ্ণ, ২৮ জুন ২০২০

শেয়ারবাজার প্রতিবেদক:  IPO SUCCESS GROUP Admin)২৭ লাখ শিক্ষিত বেকার বিনিয়োগকারির প্রাণের দাবি এ বছর যেন সিডিবিএল চার্জ সম্পূর্ণ মওকুফ করা হয়। কারন এ বছর তেমন নতুন আইপিও বাজারে আসে নি তাছারা গত ৮ মাস হল নতুন কোন আইপিও বাজারে নেই। একজন বি ও হিসাব ধারি কে প্রতিবছর লাভ হোক বা না হোক বি ও নবায়ন ফি ৪৫০ টাকা ব্যাংকে চার্জ ৬৯০ টাকা পরিশোধ করতেই হয় সব মিলিয়ে ১১৪০ টাকা। যদি ভুল না হয় গড়ে প্রতি বি ও তে এবছর ৫০০ টাকা ও লাভ হয়নি। দেশের স্বার্থে শিক্ষিত বেকারের স্বার্থে সর্বপরি ২৭লাখ বিনিয়োগকারির স্বার্থে চলমান প্রাণঘাতি মহামারী করোনার কথা চিন্তা করে এ বছর সিডিবিএল চার্জ মওকুফ এবং আইপিও প্রথম দিনে লেনদেনে সার্কিট ব্রেকার পত্যাহার করার জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি । শেয়ার বাজারের প্রাণ ভাল মানের আইপিও। বিগত ৮ মাস হল নতুন কোন আইপিও বাজারে নেই। এ অবস্থায় যদি সরকার ও যথাযথ কর্তৃপক্ষ এ বছরের সিডিবিএল চার্জ মুওকুফ না করে তবে বাংলাদেশে র সকল জায়গা থেকে লাখ লাখ বি ও একাউন্ট বন্ধ করে দিবে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচনা চলছে। এ অবস্থায় যদি সিডিবিএল চার্জ মুওকূফ না করা হয় তবে লাখ লাখ বি ও এ বছর বন্ধ হবে ১০০% সিউর। অনেক ক্ষুদ্র বিনিয়োগ কারি এ বছর অনেক লোকসানে আছে। লাখ লাখ বি ও বন্ধ হলে সরকার সিডিবিএল চার্জ কত শত কোটি টাকা থেকে বন্চিত হবে অনুমান করা যায়। দেশের বিভিন্ন সিকিউরিটিজ হাউজ গুলো ক্ষতির সমুক্ষিন হবে কারন এক টা বি ও তে একটা নতুন আইপিও ড্র হলে প্রতি বি ও তে তারা ১০ টাকা করে কমিশন কাটে আর যদি লাখ লাখ বি ও বন্ধ হয় তবে সিকিউরিটিজ হাউজের যে ক্ষতি হবে তার দায়ভার কে নিবে। সিডিবিএল চার্জ যদি মুওকুফ করা হয় তবে সরকার পাবে প্রতি বছরের ন্যায় বিপুল পরিমান টাকা আর সিকিউরিটিজ হাউজ গুলো ও পাবে বিশাল কমিশন। প্রাণঘাতি করোনার কারনে সরকার বিভিন্ন সাহায্য সহযোগিতা ভর্তুকি দিতেছে সে জন্য বাংলাদেশের শিক্ষিত বেকার যাদের ভাগ্যে কোন সরকারি বেসরকারি চাকরি নামক সোনার হরিন জোটে নি তারাই জিবন বাচানোর জন্য আইপিও তে বিনিয়োগ করে কোন রকমে চলার স্বপ্ন দেখত এখন সেই স্বপ্ন শেষ কারন আইপিও লেনদেনের প্রথম দিনে সার্কিট ব্রেকারের কারনে এখন লাভ নেই প্রতি বছর সিডিবিএল চার্জ বিভিন্ন ব্যাংকের চার্জ। সিকিউরিটিজের কমিশন মিলিয়ে লাভের চেয়ে ক্ষতি বেশি বি ও প্রতি। সরকার ও যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে সাধারন বিনিয়োগ কারিদের প্রাণের দাবি প্রাণঘাতি করোনার কারনে গত ৮ মাস যাবৎ নতুন কোন আইপিও বাজারে নেই সেই কারনে সিডিবিএল চার্জ মুওকুফের নিবেদন। সাধারন বিনিয়োগ কারিদের কোন সাহায্য সহযোগিতার দরকার নেই তাদের প্রাণের দাবি এ বছর যেন সিডিবিএল চার্জ মওকুফ করা হয়। অনেক বিনিয়োগ কারি তাদের সিদ্ধান্ত নিতেছে যদি এ বছর সিডিবিএল চার্জ মুওকুফ না করা হয় তবে বি ও একাউন্ট বন্ধ করে দিবে এ লাখ লাখ বন্ধ হলে সরকার ও সিকিউরিটিজ হাউজ গুলোে র অনেক ক্ষতি হবে কারন তারা নতুন কোন আইপিও আসলে প্রতি বি ও তে ১০ টাকা কমিশন পেত আর সিডিবিএল চার্জ ৪৫০ টাকা পেত। দেশের সার্বিক অবস্থা ও প্রাণঘাতি করোনার কথা বিবেচনা করে সরকার এ যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট ২৭ লাখ বিনিয়োগকারির প্রাণের দাবি সিডিবিএল চার্জ মুওকুফের।

আপনার মতামত লিখুন :